kalerkantho

সোমবার ।  ১৬ মে ২০২২ । ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৪ শাওয়াল ১৪৪৩  

গ্রাহকরা আজ থেকে অর্থ ফেরত পাচ্ছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গ্রাহকরা আজ থেকে অর্থ ফেরত পাচ্ছেন

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকমের যেসব ক্রেতা আগাম টাকা পরিশোধ করে পণ্য পাননি, তাঁদের পাওনা অর্থ ধাপে ধাপে ফেরত দেওয়া শুরু হচ্ছে। প্রথম ধাপে আজ সোমবার ২০ ভাগ্যবান গ্রাহক তাঁদের টাকা ফেরত পাচ্ছেন। গতকাল রবিবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কেন্দ্রীয় ডিজিটাল কমার্স সেল এই তথ্য জানায়।

মন্ত্রণালয়ের নোটিশে বলা হয়, আজ সোমবার ১২টায় মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে ডিজিটাল কমার্স সেলের টেকনিক্যাল কমিটির দ্বিতীয় সভা শেষে গ্রাহকের আটকে থাকা টাকা আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা শুরু হবে।

বিজ্ঞাপন

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, টাকা নিয়ে পণ্য দেয়নি, টাকাও ফেরত দেয়নি—এমন ছয় হাজার ৭২১টি লেনদেনের তালিকা তৈরি করেছে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকম লিমিটেড ও তাদের পেমেন্ট গেটওয়ে প্রতিষ্ঠান ফস্টার করপোরেশন লিমিটেড। এসব লেনদেনের বিপরীতে ৫৯ কোটি পাঁচ লাখ টাকা রয়েছে। এসব টাকা গ্রাহকদের পর্যায়ক্রমে ফেরত দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (আমদানি ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য) এ এইচ এম সফিকুজ্জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, প্রাথমিকভাবে কিউকমে আটকে থাকা ২০ জন গ্রাহককে সোমবার (আজ) আনুষ্ঠানিকভাবে টাকা ফেরত দেওয়া হবে। পরে ধাপে ধাপে অন্য গ্রাহকদের পাওনা অর্থ পরিশোধ করা হবে।

সফিকুজ্জামান বলেন, পেমেন্ট গেটওয়ে ফস্টারের কাছে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান কিউকমের ৩৯৭ কোটি টাকা আটকে আছে। এর মধ্যে প্রায় ১০০ কোটি টাকা পণ্য ডেলিভারি দেওয়ার অপেক্ষায় আছে। এ ছাড়া কিছু পণ্য ডেলিভারি দেওয়া হয়েছে, যা কিউকমের হিসাবে স্থানান্তরিত হয়নি। ফস্টারের জব্দ করা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে এসব টাকা আটকে আছে।

যেসব ক্রেতা আগাম টাকা পরিশোধ করেও পণ্য পাননি, তার একটি পূর্ণাঙ্গ তালিকা গত ১০ জানুয়ারির মধ্যে মন্ত্রণালয়ের কাছে জমা দিতে কিউকম ও ফস্টারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। ওই তালিকা অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে অর্থ ফেরত দেওয়া হবে।

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারিতে যাত্রা শুরু করে কিউকম ডটকম। ইভ্যালির মতো তারাও বিশাল ছাড়ে বাজারমূল্যের চেয়ে কম দামে পণ্য বিক্রি করছিল।

কিউকম ‘বিজয় আওয়ার’, ‘স্বাধীনতা আওয়ার’, ‘বিগ বিলিয়ন’ নামে বিভিন্ন অফারে কম দামে মোটরসাইকেল বিক্রির বিজ্ঞাপন দিত। অগ্রিম টাকা নিয়ে দুই থেকে ১৫ দিনের মধ্যে গ্রাহককে পণ্য বুঝিয়ে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিত প্রতিষ্ঠানটি।

 

 

 



সাতদিনের সেরা