kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

শিল্পকলায় নাচে-ছন্দে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ

মোহাম্মদ আসাদ   

২১ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিল্পকলায় নাচে-ছন্দে বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ

নৃত্য : মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে শিল্পকলা একাডেমিতে শুরু হয়েছে তিন দিনের জাতীয় নৃত্য উৎসব। উৎসবে অংশ নিচ্ছে ৭৫টি দল। গতকাল প্রথম দিনে ১৫টি দল নৃত্য পরিবেশন করে। ছবি : মোহাম্মদ আসাদ

নাচের ছন্দে আর তার আবহ সংগীতে ফুটে উঠেছিল মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং এর মহান কারিগর বঙ্গবন্ধুর বীরত্ব আর আত্মত্যাগ। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে তুলে ধরা এই নৃত্যকলায় বিমোহিত হয় দর্শক। মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে তিন দিনের এই জাতীয় নৃত্য উৎসব।

‘ডান্স এগেইনস্ট করোনা’ শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় নৃত্য উৎসবটির আয়োজন করেছে শিল্পকলা একাডেমি।

বিজ্ঞাপন

উদ্বোধনী আনুষ্ঠানিকতায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন নৃত্যশিল্পী সংস্থার সভাপতি মিনু হক।

নৃত্য উৎসবের জন্য নির্বাচিত ৭৫ দলের মধ্যে প্রথম দিনে ১৫টি দল তাদের কাজ উপস্থাপন করে। নৃত্য দল ‘ভাবনা’র প্রযোজনায় ‘উদয়াচলের পথে’ নৃত্যানুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। সামিনা হোসেন প্রেমার পরিচালনায় ১০ মিনিটের এই নাট্যানুষ্ঠান ছিল অনবদ্য।

এরপর একে একে ছন্দে-বর্ণে-মুদ্রায় দর্শকদের মধ্যে মুক্তিযুদ্ধের বোধ এবং জাতির জনকের বীরত্বগাথা তুলে ধরে অন্য দলগুলো। ‘নৃত্যগ্রাম’ মঞ্চস্থ করে স্বাধীনতার অনুগল্প, বেনুকা ললিতকলা  কেন্দ্র করে—চেতনায় বঙ্গবন্ধু, সাধনা উপমহাদেশীয় সংস্কৃতি প্রসার কেন্দ্র করে মহানন্দা ৭১, মণিপুরি থিয়েটার—রক্তবলাকা, ভঙ্গিমা ডান্স থিয়েটার—বাংলাদেশ আমার বাংলাদেশ, বাংলাদেশ ব্যালে ট্রুপ করে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাংলাদেশ গৌড়ীয় নৃত্য একাডেমি উপস্থাপন করে দিগম্বর দ্যুতি।  

কায়া আশ্রমের উপস্থাপনার নাম ছিল অন্তর্দেশ; নৃত্যশৈলী করে—মালনীছড়া, নাঈম খান ডান্স কম্পানি—একটি আত্মসমর্পণের দলিল, বহ্নিশিখা—স্বাধীনতা প্রিয় স্বাধীনতা, ইভান্স ডান্স পিরেশন—ক্ষুদ্র বিসর্জন, নন্দন কলা কেন্দ্র—মধুমতির বরপুত্র, অ্যালিফিয়া স্কোয়াড—স্বদেশের শবযাত্রা।

 



সাতদিনের সেরা