kalerkantho

সোমবার । ৩ মাঘ ১৪২৮। ১৭ জানুয়ারি ২০২২। ১৩ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বাঁশখালীতে আবার হাতির মৃত্যু

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাঁশখালীতে আবার হাতির মৃত্যু

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে মৃত হাতিটিকে মাটিচাপা দেওয়া হয়। ছবি : কালের কণ্ঠ

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে আরেকটি বন্য হাতি হত্যার ঘটনা ঘটেছে। সাধনপুর ইউনিয়নের লটমনি পাহাড়ে একটি হাতি হত্যা করে মাটিতে পুঁতে রাখার খবর পেয়ে এর মৃতদেহ গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় উদ্ধার করেছে বন বিভাগ।

হাতিটিকে স্থানীয় পাহাড়ের অবৈধ দখলদাররা বিদ্যুতের তারে জড়িয়ে হত্যা করেছে বলে জানা গেছে। মৃত হাতিটি পুঁতে রাখা পাহাড়ের আশপাশে অন্তত আটটি অবৈধ ইটভাটা রয়েছে।

এর আগে গত ১২ নভেম্বরই বাঁশখালীর চাম্বল ইউনিয়নের জঙ্গল চাম্বল গ্রামে একটি হাতি রহস্যজনক কারণে মারা যায়। এ ছাড়া গত নভেম্বর মাসে চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় একটি, শেরপুরের শ্রীবরদীতে দুটি এবং কক্সবাজারের চকরিয়ায় দুটিসহ মোট সাতটি মৃত হাতি উদ্ধার করা হয়েছে।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (দক্ষিণ) মো. সফিকুল ইসলাম বলেন, লটমনি পাহাড়ে ইটভাটার পাশে মাটিতে পুঁতে রাখা হাতিটির ময়নাতদন্ত হয়েছে। একে বৈদ্যুতিক শকে হত্যা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে বাঁশখালী থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। কারা হাতিটি হত্যা করেছে তা বের করা হচ্ছে।

গতকাল উদ্ধার করা মৃত হাতিটিসহ শুধু বাঁশখালীতে গত সাত বছরে ১৬টি বন্য হাতির মৃত্যু হয়েছে।

বাঁশখালী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ড. সমরঞ্জন বড়ুয়া বলেন, ‘হাতি জাতীয় সম্পদ। অনেক মৃত হাতির ময়নাতদন্ত করেছি। প্রকৃতভাবে এভাবে ময়নাতদন্তে কিছুতেই হাতি মৃত্যুর রহস্য বের হবে না। আমরা শুধু চোখে দেখা পর্যবেক্ষণের ওপর রায় দিই। একের পর এক হাতির মৃত্যুরহস্য বের করতে বন বিভাগকে শক্তিশালী পদক্ষেপ নিতে হবে। অস্বাভাবিকভাবে মৃত হাতির প্রতিটি অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ পরীক্ষা করার মতো যন্ত্র, সরঞ্জাম ও রাসায়নিক উপকরণ থাকতে হবে। দায়সারা পরীক্ষা হয় বলে হাতির মৃত্যুর রহস্য বের হচ্ছে না। এভাবে চললে ভবিষ্যতে সংরক্ষিত বনাঞ্চল হাতিশূন্য হয়ে পড়বে।’



সাতদিনের সেরা