kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ মাঘ ১৪২৮। ১৮ জানুয়ারি ২০২২। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

খালেদা জিয়ার লিভার সিরোসিস

জানালেন চিকিৎসকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে




খালেদা জিয়ার লিভার সিরোসিস

খালেদা জিয়া

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার লিভার সিরোসিস হয়েছে বলে জানিয়েছে তাঁর চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড।

গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, লিভার সিরোসিসের কারণেই তাঁর রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে চিকিৎসকরা জানান, খালেদা জিয়ার এই রোগের চিকিৎসা দেশে সম্ভব নয়। চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র বা জার্মানির বিশেষায়িত হাসপাতালের সুপারিশ করেছেন তাঁরা। মেডিক্যাল বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ডা. এ এফ এম সিদ্দিকী, অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম মোহসীন, অধ্যাপক ডা. শামসুল আরেফিন, অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, ডা. আল মামুন সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

অধ্যাপক ডা. এ এফ এম সিদ্দিকী বলেন, বর্তমানে খালেদা জিয়ার শারীরিক পরিস্থিতি স্থিতিশীল। লিভারে রক্তক্ষরণ বন্ধে সর্বোচ্চ চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এর চেয়ে বেশি কিছু করার নেই। আগামী সপ্তাহে এই ঝুঁকি আরো ৫০ শতাংশ বাড়তে পারে, আর ছয় সপ্তাহে বাড়তে পারে ৭০ শতাংশ।

ইন্টারভেনশনাল গ্যাস্ট্রো অ্যানালিস্ট চিকিৎসক আরেফিন সিদ্দিক লিভারে রক্তক্ষরণ ঠেকাতে চিকিৎসা পদ্ধতি তুলে ধরে বলেন, ‘এটা একটা হাইলি টেকনিক্যাল কাজ। এটাকে বলে টিপস। বাংলাদেশে টিপস করা রোগী আমরা দেখি না।’

তাহলে কোথায় এর চিকিৎসা করা যায়—এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা আমেরিকা বা ইউরোপ-বেজড, বিশেষ করে যুক্তরাজ্য, জার্মানি, যুক্তরাষ্ট্রে কিছু সেন্টার আছে।

সুচিকিৎসার জন্য খালেদাকে বিদেশে পাঠানোর দাবি বিএনপির

গতকাল দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের কর্মসূচিতে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, শান্তিপূর্ণভাবে বারবার বলছি, আপনারা চিকিৎসার জন্য তাঁকে বিদেশে পাঠান। দেশের যদি সত্যিকার শান্তি-স্থিতিশীলতা চান, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করতে চান, তাহলে খালেদা জিয়াকেই দরকার হবে।

এদিকে গতকাল দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের আবদুস সালাম হলে খালেদা জিয়াকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে অনুমতি না দেওয়ার প্রতিবাদে জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চাইলে, বিদেশে সুচিকিৎসার জন্য পাঠাতে চাইলে একমাত্র পথ জনগণকে সঙ্গে নিয়ে রাজপথে নামতে হবে। এখন আর বসে থাকলে চলবে না।

আইনের শাসন থাকলে বহু আগেই খালেদা জিয়া জামিন পেতেন, সংসদে বিএনপির দাবি

খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত করে মুক্তি দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, তিনি (খালেদা) দুটি শর্তে সম্পূর্ণ মুক্ত। তিনি এখন সরকারের কাস্টডিতে নেই। মুক্ত বলে তিনি মুক্তভাবে বাসায় থাকতে পারছেন। মুক্ত আছেন বলেই তিনি মুক্তভাবে চিকিৎসা নিতে পারছেন।

অন্যদিকে বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশিদ, মোশাররফ হোসেন ও ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বলেন, খালেদা জিয়া সরকারের হেফাজতেই আছে, দেশে আইনের শাসন ও বিচার বিভাগের স্বাধীনতা থাকলে বহু আগেই তিনি জামিন পেতেন।

গতকাল সংসদ অধিবেশনে তাঁরা এসব কথা বলেন।

বিএমএ সাবেক নেতাদের বিবৃতি

বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সাবেক নেতারা বলেছেন, খালেদা জিয়াকে জামিন দিয়ে অবিলম্বে বিদেশে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করা হোক।

গতকাল সংগঠনের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কে এম আজিজুল হক ও সাবেক মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে এ কথা বলা হয়।

 



সাতদিনের সেরা