kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে আপত্তি

মেয়র আব্বাসকে আহ্বায়ক থেকে বহিষ্কার, মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

২৫ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মেয়র আব্বাসকে আহ্বায়ক থেকে বহিষ্কার, মামলা

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে রাজশাহীর পবা উপজেলার কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীকে পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

একই সঙ্গে তাঁর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাঁকে গ্রেপ্তার ও দলের সদস্য পদ থেকেও বহিষ্কারের দাবিতে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে আওয়ামী লীগের লোকজন।

পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাজদার রহমান সরকার জানান, গতকাল বুধবার বিকেলে দলীয় কার্যালয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের জরুরি বৈঠকে মেয়র আব্বাসকে পৌর আহ্বায়কের পদ থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয়।

বিজ্ঞাপন

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলীর সভাপতিত্বে এ সভা হয়।

মাজদার রহমান সরকার আরো জানান, কেন দলীয় সদস্য পদ  থেকে আব্বাস আলীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না, জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়ারও সিদ্ধান্ত হয়। বৈঠক শেষে তিন দিনের মধ্যে জবাব দেওয়ার নির্দেশ দিয়ে আব্বাসের নামে কারণ দর্শানোর নোটিশ ইস্যু করা হয়েছে। জবাব পাওয়ার পর তাঁকে স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য দলের কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে সুপারিশ পাঠানো হবে।

এর আগে দুপুরে নগরীর বোয়ালিয়া থানায় মেয়র আব্বাসের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করেন ১৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল মোমিন।

বোয়ালিয়া থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ বলেন, ‘মেয়র আব্বাসের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করা হয়েছে। ওই মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। তবে তিনি পলাতক রয়েছেন। ’

মেয়র আব্বাসকে গ্রেপ্তার ও বহিষ্কারের দাবিতে সকালে মহানগরীর সাহেববাজার জিরো পয়েন্টে মানববন্ধন করে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ রাজশাহী জেলা ও মহানগর ইউনিট। এই মানববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করেন বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতারা। বক্তারা বলেন, একজন পৌর মেয়র জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে এমন মন্তব্য করার সাহস পান কিভাবে? তাঁর পেছনে কারা মদদদাতা রয়েছেন তাঁদের খুঁজে বের করতে হবে।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের মহানগর শাখার সাবেক কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা ডা. আবদুল মান্নান, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইশতিয়াক আহমেদ লিমন, কবিকুঞ্জের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক রুহুল আমিন প্রামাণিকসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের নেতারা।

একই দাবিতে দুপুরে বিক্ষোভ করেছেন কাটাখালী পৌরসভা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। সেখানে প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা মোতাহার আলী, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বোরহান উদ্দিন রাব্বানী, ওয়ার্ড কাউন্সিলর মঞ্জুর রহমান, ফরিদুল ইসলাম রাজু প্রমুখ বক্তব্য দেন।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি একটি ঘরোয়া বৈঠকে রাজশাহী-ঢাকা মহাসড়কের কাটাখালী পৌরসভার অংশের উন্নয়নকাজ নিয়ে কথা বলার সময় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপনের  বিপক্ষে আপত্তিকর কথাবার্তা বলেন মেয়র আব্বাস। ফেসবুকে সেই বক্তব্যের অডিও ফাঁস হওয়ার পর থেকে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা চলছে।

 

 



সাতদিনের সেরা