kalerkantho

শনিবার । ১৫ মাঘ ১৪২৮। ২৯ জানুয়ারি ২০২২। ২৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

করোনার টিকার আওতায় স্কুল শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



করোনার টিকার আওতায় স্কুল শিক্ষার্থীরা

১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। গতকাল রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। কেন্দ্রের সামনে টিকা নেওয়ার জন্য শিক্ষার্থীর লাইন। ছবি : মোহাম্মদ আসাদ

স্কুল শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়েছে। গতকাল সোমবার রাজধানীর মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে প্রতিষ্ঠানটির নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী তাহসান হোসেন ও মাহজাবিন তমাকে টিকা দেওয়ার মাধ্যমে শুরু হয় এই কার্যক্রম। আজ মঙ্গলবার থেকে প্রতিদিন রাজধানীতে আটটি কেন্দ্রের প্রতিটিতে পাঁচ হাজার করে মোট ৪০ হাজার শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে।

শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার এই কার্যক্রম উদ্বোধন করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক ও শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

বিজ্ঞাপন

শিক্ষার্থীদের দেওয়া হবে ফাইজার-বায়োএনটেকের টিকা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় ১২ থেকে ১৭ বছরের শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার কার্যক্রম শুরু করতে পারলাম। কিছুদিন আগে আমরা যাদের পরীক্ষামূলক এই টিকা দিয়েছি, তারা সুস্থ আছে। ’

বাংলাদেশে করোনা নিয়ন্ত্রণে আছে উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বেশ কিছুদিন ধরে করোনা আক্রান্তের হার কমছে। এটা আমাদের জন্য খুবই আশার আলো। টিকা নেওয়ার পর কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘন করা যাবে না। ’

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের সব মানুষকে নিয়ে ভাবেন। যত দ্রুত সম্ভব আমরা যেন শিক্ষার্থীদের টিকা দিতে পারি সেই নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সহায়তায় শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়া শুরু করতে পেরেছি। মানিকগঞ্জে পরীক্ষামূলক টিকায় কোনো সমস্যা হয়নি। ’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘টিকা দেওয়ার পর কোনো সমস্যা হলে, সঙ্গে সঙ্গে আমরা ব্যবস্থা নেব। সবদিক থেকে আমরা প্রস্তুত রয়েছি। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এখনো আমরা সব ক্লাস নিতে পারছি না। টিকাদান যত দ্রুত হবে, ক্লাসও তত দ্রুত নেওয়া সম্ভব হবে। ’

টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল আর মিলার, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিকল্পনা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ড. শাহান আরা বেগমসহ ইউনিসেফ ও বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংগঠনের কর্মকর্তারা।

টিকা নেওয়ার প্রতিক্রিয়ায় শিক্ষার্থী তাহসান হোসেন বলে, ‘এত দিন করোনা নিয়ে মনে যে ভয় ছিল, এখন আর তা নেই। এখন নতুন উদ্যমে স্কুলে আসতে পারব। ’

মাহজাবিন তমা বলে, ‘প্রথমে একটু ভয় লাগছিল, এখন আর লাগছে না। বরং টিকা নিতে পেরে আনন্দ লাগছে। ’

আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক মোফাজ্জল হোসেন বলেন, ‘করোনা মহামারিতে শিশুদের জন্য সরকার যে কার্যক্রম শুরু করেছে, তা সাধুবাদ পাওয়ার যোগ্য। টিকা দেওয়া গেলে শিক্ষার্থীরা অনেক বেশি সুরক্ষিত থাকবে। ’

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, যে আটটি কেন্দ্রে টিকা দেওয়া হবে সেগুলো হলো—বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার হার্ডকো স্কুল, মালিবাগের সাউথ পয়েন্ট স্কুল, গুলশানের চিটাগাং গ্রামার স্কুল, মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, মিরপুরের ঢাকা কমার্স কলেজ, ধানমণ্ডির কাকলী স্কুল, উত্তরার সাউথব্রিজ স্কুল এবং মিরপুরের স্কলাস্টিকা স্কুল।

মানিকগঞ্জে বিশেষ কোটায় ১,০৭৪ শিক্ষার্থী পেল টিকা

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের করোনার টিকাদান কর্মসূচির আওতায় বিশেষ কোটায় মানিকগঞ্জের ১,০৭৪ শিক্ষার্থী টিকা পেয়েছে। গতকাল সদর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ে দিনব্যাপী শিক্ষার্থীদের এই টিকা দেওয়া হয়।

জেলা সিভিল সার্জন (ভারপ্রাপ্ত) ডা. লুত্ফর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, গতকাল সকাল ১০টায় টিকাদান কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক আব্দুল লতিফ। আরো উপস্থিত ছিলেন জেলা শিক্ষা অফিসার রেবেকা জাহান।



সাতদিনের সেরা