kalerkantho

বুধবার । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৮ ডিসেম্বর ২০২১। ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

ভোটের মাঠে বিভেদ বাড়ছে

কাপ্তাইয়ে ১০ দিনের মধ্যে আরো একজন নিহত

বিশেষ প্রতিনিধি   

২৮ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে




ভোটের মাঠে বিভেদ বাড়ছে

দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে গতকাল প্রতীক বরাদ্দ এবং প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের আনুষ্ঠানিক প্রচার শুরুর আগেই দেশের বিভিন্ন এলাকায় সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে। ১০ দিনের মধ্যে রাঙামাটির কাপ্তাইয়ে আরো একজন নিহত হয়েছেন। কুমিল্লার দাউদকান্দিতে গুলিবিদ্ধ হয়েছেন ছাত্রলীগের স্থানীয় একজন নেতা। চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর কার্যালয়ে হামলা করা হয়েছে। সেখানে আরো রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

গতকাল বুধবার বিকেলে নেত্রকোনা সদর উপজেলার দক্ষিণ বিশিউড়া ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী এবং একই দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। এ ধরনের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে আরো কিছু এলাকায়। এর আগে গত ১৫ অক্টোবর মাগুরায় নির্বাচনী সংঘর্ষে চারজন নিহত হন। ২৩ অক্টোবর সিলেট ও ফরিদপুরে নিহত হন দুজন। ২৫ অক্টোবর নরসিংদীর রায়পুরে গুলিবিদ্ধ হন ২০ জন। সব মিলিয়ে এ ধাপের নির্বাচনে আনুষ্ঠানিক প্রচার শুরু হওয়ার আগেই ৯ জন নিহত হয়েছেন। 

প্রথম ধাপেও সীমিত কয়েকটি এলাকায় দুই দফায় ৩৬৪টি ইউপির নির্বাচনে সহিংসতা এড়ানো যায়নি। গত ২১ জুন ও ২০ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত প্রথম ধাপের নির্বাচনে সাতজনের মৃত্যু এবং ২০০-এর বেশি লোক আহত হন। এ নির্বাচনে ভোটগ্রহণের দিন গুলিবর্ষণ ও বোমাবাজির ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষ থামাতে পুলিশকেও গুলি ছুড়তে হয়। নির্বাচন কমিশন এ সহিংস ঘটনার দায় নিতে চায়নি। এবার দেশের ৬৩টি জেলার ১১৫টি উপজেলার ৮৪৬টি ইউপিতে নির্বাচন হতে যাচ্ছে।

নির্বাচন কমিশন যা বলছে : নির্বাচন কমিশন এ নির্বাচনে সহিংসতা এড়ানোর জন্য কী ধরনের ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে, জানতে চাইলে কমিশনার বেগম কবিতা খানম গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘প্রাণহানি একটি পরিবারের যে ক্ষতি করে তা অপূরণীয়। নির্বাচন কমিশন থেকে আমরা সহিংসতা এড়ানোর জন্য সাধ্যমতো সব ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছি। সহিংসতাপ্রবণ এলাকাগুলোর প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে বলছি। জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারদের বলেছি, কোনো পক্ষ যেন তাঁদের প্রশ্রয় না পায়। পুরো পরিস্থিতি আমরা সতর্কতার সঙ্গে পর্যবেক্ষণে রাখছি।’

একই প্রশ্নে নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাত হোসেন চৌধুরী (অব.) বলেন, ‘যেসব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে তার অতিরিক্ত আর কী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে? আমরা আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর মাধ্যমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার চেষ্টা করে যাচ্ছি। তার পরও অপ্রত্যাশিতভাবে কিছু ঘটনা ঘটছে। এটা অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক।’

কাপ্তাইসহ বিভিন্ন এলাকায় সহিংসতা : রাঙামাটির কাপ্তাই উপজেলায় ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রাতে উপজেলার নতুন বাজার এলাকায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কাপ্তাই ইউপির ৫ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান সদস্য এবং স্বেচ্ছাসেবক লীগের জেলা কমিটির সদস্য সজিবুর রহমান নিহত হন। আহত হয়েছেন তিনজন।

কাপ্তাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসক ওমর ফারুক জানিয়েছেন, রাতে আহত অবস্থায় চারজনকে হাসপাতালে আনলে সজিবুর রহমান মারা যান, অন্য তিনজনের চিকিৎসা চলছে।

স্থানীয় লোকজন জানায়, নিহত সজিবুর রহমান আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল লতিফের সমর্থক। আব্দুল লতিফের প্রতিপক্ষ হিসেবে আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন পাটোয়ারি বাদলও চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হয়েছেন। মঙ্গলবার রাতে নতুন বাজার এলাকায় এই দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে প্রথমে বচসা এবং পরে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। এ সময় ভারী কিছু দিয়ে মাথায় আঘাত করায় গুরুতর আহত হন সজিবুর রহমান। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

এর আগে গত ১৭ অক্টোবর এই উপজেলার সদর ইউনিয়নের পার্শ্ববর্তী চিত্মরম ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী নেথোয়াই মারমাকে তাঁর নিজ বাসায় গুলি করে হত্যা করে একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত।

চট্টগ্রাম :  মিরসরাইয়েও দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে নির্বাচনী মাঠ সহিংস হয়ে উঠছে। এখানকার ১৬টি ইউনিয়নের মধ্যে তিনটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় তাঁদের দমনে ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থীদের লোকজন মাঠে সশস্ত্র অবস্থান নিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিদ্রোহী প্রার্থীদের আশঙ্কা, মিরসরাই সদর ও খৈয়াছড়া ইউনিয়নে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে। 

কুমিল্লা : জেলার দাউদকান্দিতে আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর ভাতিজার বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষের সমর্থককে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে। গুলিবিদ্ধ ইব্রাহিম খলিল ছাত্রলীগ নেতা। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ইলিয়টগঞ্জ উত্তর ইউপির কুশিয়ারা বাজারে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় কয়েকজন জানায়, ওই বাজারে ইলিয়টগঞ্জ উত্তর ইউপির বর্তমান চেয়ারম্যান এবং এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী জসিম উদ্দিন প্রধানের ভাতিজা সৌরভ হোসেন একই ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ও এবারের ইউপি নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. লোকমান হোসেনের কর্মী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহসভাপতি ইব্রাহিম খলিলকে (২১) গুলি করেন। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে রাতেই তাঁকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

সিরাজগঞ্জ : জেলার উল্লাপাড়ায় আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থককে মারধর, ভয়ভীতি ও জীবননাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার পূর্ণিমাগাঁতী ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থক শুকুর আলীকে ব্যাপক মারধরের অভিযোগে বিদ্রোহী প্রার্থী ও বর্তমান চেয়ারম্যান আল আমীন সরকারের সমর্থকদের বিরুদ্ধে গত মঙ্গলবার রাতে উল্লাপাড়া মডেল থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে।

নেত্রকোনা : নেত্রকোনা সদর উপজেলার দক্ষিণ বিশিউড়া ইউপির  নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ এবং এ দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের ২০ ব্যক্তি আহত হয়েছেন। গতকাল প্রতীক বরাদ্দের পর বিকেলে বিশিউড়া বাজারে এই সংঘর্ষ হয়। এ সময় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী অফিসে ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। এ সময় বিদ্রোহী চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আবুল কালামসহ অন্তত ২০ জন আহত হন।

ভোলা :  জেলার দৌলতখানে দুই সদস্য পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ২০ জন আহত হয়েছেন। আটটি মোটরসাইকেল ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে।

আগের নির্বাচনে সহিংসতা : নির্বাচন কমিশন ও বিভিন্ন সূত্রের তথ্য অনুসারে, দেশে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ইতিহাস স্বস্তির নয়। এর আগে এই স্থানীয় সরকার নির্বাচনের প্রতিটিতেই সহিংসতার নজির রয়েছে। ২০১৬ সালে এ নির্বাচনে প্রাণহানি ঘটে ১১০ জনের। ব্যাপক সহিংসতা, ভোটকেন্দ্র দখল, ব্যালট বাক্স ছিনতাই, ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদেরই অনিয়মে জড়িয়ে পড়া—এসব ক্ষেত্রে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি এবং দেশের নির্বাচনব্যবস্থাকেই প্রশ্নবিদ্ধ রেখেই শেষ হয় ছয় ধাপে অনুষ্ঠিত দেশের নবম এবং দলীয় প্রতীকের প্রথম ইউপি নির্বাচন। নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থা ডেমোক্রেসি ওয়াচের প্রতিবেদন অনুসারে, ২০১১ সালের ইউপি নির্বাচনে ওই বছরের ৬ মে থেকে ২০ জুন পর্যন্ত নির্বাচনী সহিংসতায় ২৭ জন নিহত হন আর আহত হন ৪৩৬ জন। এঁদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ হন ১৫ জন।

[প্রতিবেদনটি তৈরিতে নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিরা তথ্য দিয়েছেন।]



সাতদিনের সেরা