kalerkantho

বুধবার । ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৮ ডিসেম্বর ২০২১। ৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিভিন্ন স্থানে হামলা-ভাঙচুর

নোয়াখালীতে ৩ জনের জবানবন্দি পীরগঞ্জে দুজনের স্বীকারোক্তি

► মুখ খুলছেন না কুমিল্লার ইকবাল, বাকি তিনজনও নিজেদের নির্দোষ দাবি করছেন
► কুমিল্লার মামলা সিআইডিতে, গদা উদ্ধার
► পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৬৪ জন

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৫ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



নোয়াখালীতে ৩ জনের জবানবন্দি পীরগঞ্জে দুজনের স্বীকারোক্তি

রংপুরের পীরগঞ্জের রামনাথপুর ইউনিয়নের মাঝিপাড়ায় সনাতন ধর্মাবলম্বী মানুষের ঘরবাড়িতে হামলা-ভাঙচুর ও আগুন দেওয়ার ঘটনার হোতা বহিষ্কৃত ছাত্রলীগ নেতা সৈকত মণ্ডল ও স্থানীয় মসজিদের ইমাম রবিউল ইসলাম আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় রংপুরের জ্যেষ্ঠ বিচার বিভাগীয় হাকিম দেলোয়ার হোসেন তাঁদের জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালত পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলাম।

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনীতে মন্দিরে হামলা ও সহিংসতার ঘটনায় আরো তিনজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এ নিয়ে মোট চারজন জবানবন্দি দিলেন।

কুমিল্লা নগরের নানুয়ার দীঘির পাড়ের অস্থায়ী পূজামণ্ডপে কোরআন রেখে আসা এবং এর জের ধরে হামলা-ভাঙচুরের ঘটনায় গ্রেপ্তার চারজনকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ (রিমান্ড) চলছে। তবে গতকাল পর্যন্ত তাঁরা ঘটনার পেছনে অন্য কেউ আছে কি না সে ব্যাপারে মুখ খোলেননি। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রধান অভিযুক্ত ইকবাল হোসেন কোরআন রেখে আসার কথা স্বীকার করেছেন। গতকাল রাত সাড়ে ১১টার দিকে জেলা পুলিশের একটি দল হনুমানের মূর্তির হাত থেকে ইকবালের নিয়ে যাওয়া গদাটি উদ্ধার করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) এম তানভীর আহমেদ। এদিকে এ ঘটনায় করা মামলাটি অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) হস্তান্তর করা হয়েছে।

সৈকত ও রবিউলের জবানবন্দি : পীরগঞ্জের মাঝিপাড়ায় সহিংসতার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই সুদীপ্ত শাহীন সাংবাদিকদের জানান, গতকাল সন্ধ্যায় সৈকত মণ্ডল ও রবিউল ইসলামকে আদালতে হাজির করা হয়। তাঁরা ঘটনার বিশদ বর্ণনা দিয়ে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। এরপর দুজনকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন বিচারক। গত শুক্রবার গাজীপুরের টঙ্গী থেকে সৈকত ও রবিউলকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। গতকাল সকালে র‌্যাব-১৩-এর উপসহকারী পরিচালক (ডিএডি) আব্দুল আজিজ বাদী হয়ে পীরগঞ্জ থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন। এই মামলায় সৈকত মণ্ডলকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। আর রবিউলকে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাটের মামলায় আসামি করা হয়েছে।

এ ছাড়া তিন দিনের রিমান্ড শেষে ৩৭ আসামিকে গতকাল বিকেলে রংপুরের জ্যেষ্ঠ বিচার বিভাগীয় হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। আসামিরা কেউ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি না হওয়ায় বিচারক তাঁদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। পুলিশ জানিয়েছে, সহিংসতার ঘটনায় গতকাল আরো চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ নিয়ে ৬৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

পীরগঞ্জ থানার ওসি সরেস চন্দ্র কালের কণ্ঠকে জানান, এ ঘটনায় আলাদা চারটি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে তিনটি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে। একটি অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর ও লুটপাটের মামলা।

কমিটি বিলুপ্ত : গতকাল বিকেলে রংপুর মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ায় কারমাইকেল কলেজ শাখা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ওই কলেজের দর্শন বিভাগ ইউনিট ছাত্রলীগের সহসভাপতি ছিলেন সৈকত মণ্ডল। তাঁকে গত ১৮ অক্টোবর বহিষ্কার করা হয়।

তবু নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ : মাঝিপাড়ার মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থা, সংগঠন ও ব্যক্তি। পুড়ে যাওয়া ঘরবাড়িও আবার মাথা তুলেছে। পেশায় জেলে ক্ষতিগ্রস্ত এসব মানুষ মাছ ধরার জালও পেয়েছে। স্বাভাবিক জীবনে ফেরার চেষ্টা করছে তারা। তবে সেই রাতের বিভীষিকা ভুলতে পারছে না কেউ। তাদের তাড়া করে বেড়াচ্ছে সেই দুঃসহ স্মৃতি। এখনো নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগ দূর হয়নি তাদের। প্রদীপ চন্দ্র নামের এক বাসিন্দা কালের কণ্ঠকে বলেন, আবার আগের মতো মাছ ধরবেন তিনি। আরেক জেলে অমল চন্দ্র বলেন, তিনি ভয়ে এখনো রাতে ঘুমাতে পারেন না। তবে সব কিছু এখন স্বাভাবিক হতে চলেছে।

ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তা : একুশে পদকপ্রাপ্ত আলোকচিত্র শিল্পী পাভেল রহমান গতকাল পাঁচ জেলেকে মাছ ধরার জাল দিয়েছেন। রংপুর জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, পীরগঞ্জের ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৬৬টি পরিবারের মাঝে প্রায় ৬৫ লাখ টাকাসহ খাদ্য ও বস্ত্র দেওয়া হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত ১৪টি ঘর নির্মাণ এবং ৪০টি ঘর মেরামত করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর মাঝে সরকারের পক্ষ থেকে ১৬৬টি শাড়ি, ২৬৬টি লুঙ্গি, ১৬৬টি কম্বল, ৪০০ প্যাকেট শুকনা খাবার, ২৫ প্যাকেট গোখাাদ্য, ৪০ প্যাকেট শিশুখাদ্য, ১০০ বান্ডেল টিন ও নগদ ২৫ লাখ ৮০ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়েছে। ১৪ জন জেলেকে মাছ ধরার জাল দেওয়া হয়েছে। ৪০ জন শিক্ষার্থীর জন্য ৪০ সেট নতুন বই এবং ন্যাশনাল আইডি কার্ডের ১৬টি সার্টিফায়েড কপি দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ছাড়া বেসরকারি সংস্থা রেড ক্রিসেন্ট, বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন, আরডিআরএস মোট ৩৪ লাখ ৩৫ হাজার টাকা দিয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার এবং দুটি মন্দিরের জন্য ১১ লাখ টাকা দিয়েছে জেলা পুলিশ।

রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসান বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর নিরাপত্তাসহ সব ধরনের সহযোগিতা করা হচ্ছে।

নোয়াখালীতে তিনজনের স্বীকারোক্তি : চৌমুহনীতে মন্দিরে হামলা ও সহিংসতার ঘটনায় গত শনিবার রাতে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন বেগমগঞ্জের ছোট শরীফপুর গ্রামের আরাফাত হোসেন আবির (১৯), হাজীপুর ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইব্রাহিম খলিল রাজিব (২৪) ও চৌমুহনী পৌরসভার গণিপুর এলাকার রিপন আহম্মেদ মাহির (১৯)। মুখ্য বিচার বিভাগীয় হাকিম আদালতের বিচারক তাঁদের জবানবন্দি গ্রহণ করেন। ওই দিন তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এর আগে একই ঘটনায় আব্দুর রহিম সুজন (১৯) নামের একজন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম জানান, কুমিল্লার ঘটনার জের ধরে বেগমগঞ্জের বিভিন্ন মন্দিরে হামলার ঘটনায় করা ১০টি মামলায় এ পর্যন্ত ১২২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

কুমিল্লার মামলা সিআইডিতে : মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কুমিল্লা কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মফিজুল ইসলাম জানান, গতকাল রাতে পুলিশ সদর দপ্তরের এআইজি (ক্রাইম-ইস্ট) মো. জামাল উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়। সিআইডি, কুমিল্লার বিশেষ পুলিশ সুপার খান মোহাম্মদ রেজওয়ান রাত ১১টায় কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা কিছুক্ষণ আগে চিঠি পেয়েছি। সোমবার (আজ) মামলার তদন্তভার আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করব।’ পুলিশের একটি সূত্র জানায়, এ ঘটনায় ইকরাম হোসেন, হুমায়ুন কবির ও ফয়সাল আহমেদ এখনো মুখ খোলেননি। তাঁরা নিজেদের ‘নির্দোষ’ দাবি করছেন। পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের তদন্তদল জিজ্ঞাসাবাদের ক্ষেত্রে ইকবালকে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছে।

[প্রতিবেদনটি তৈরিতে তথ্য দিয়েছেন রংপুর অফিস, পীরগাছা (রংপুর) ও নোয়াখালী প্রতিনিধি এবং কুমিল্লা সংবাদদাতা]



সাতদিনের সেরা