kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ৯ ডিসেম্বর ২০২১। ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাশিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ১৬ প্যারাশুট জাম্পার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাশিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ১৬ প্যারাশুট জাম্পার

ছবি: ইন্টারনেট

রাশিয়ায় বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১৬ জন নিহত হয়েছেন। গতকাল রবিবার তাতারস্তান অঞ্চলের মেনজেলিনস্ক শহরের কাছে স্থানীয় সময় সকাল ৯টা ২৩ মিনিটে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। বিমানটিতে ২০ জন বেসামরিক প্যারাশুট জাম্পারের একটি দল ও দুজন ক্রু ছিলেন।

দেশটির জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলাবিষয়ক মন্ত্রণালয় স্থানীয় টেলিগ্রাম চ্যানেলকে এ কথা জানিয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বার্তা সংস্থা ইন্টারফ্যাক্সকে জানিয়েছে, উদ্ধার করা ছয়জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁদের অবস্থা গুরুতর।

রুশ বার্তা সংস্থা টিএএসএসের খবরে বলা হয়েছে, বিধ্বস্ত হওয়া লেট এল-৪১০ টারব্যুলেট বিমানটি ছিল স্বল্প পাল্লার দুই ইঞ্জিনবিশিষ্ট। এটি তৈরি হয় চেক প্রজাতন্ত্রে। এর মালিক মেনজেলিনস্ক শহরের এরোক্লাব। ওই ক্লাবের পরিচালক রাভিল নুরমুখামেটভের উদ্ধৃতি দিয়ে টিএএসএস জানিয়েছে, যে অঞ্চলে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে সে জায়গাটি মহাকাশচারীদের প্রশিক্ষণে ব্যবহূত হয়। এরোক্লাব সেখানে স্থানীয় এবং ইউরোপীয় ও ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপের আয়োজন করে থাকে।

একটি সূত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে টিএসএস জানিয়েছে, রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান কসমোনট ট্রেইনিং ফ্যাসিলিটি এই দুর্ঘটনার পর এরোক্লাবের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করেছে। ঘটনাটি তদন্তের অপেক্ষায় রয়েছে।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষের উদ্ধৃতি দিয়ে বার্তা সংস্থা আরআইএ জানিয়েছে, বিধ্বস্ত হওয়ার আগে বিমানটির একটি ইঞ্জিন সম্ভবত বিকল হয়ে গিয়েছিল।

হতাহত প্যারাশুট জাম্পারদের কয়েকজনের বিমানের কাছে দাঁড়িয়ে এবং বিমানের ভেতরে থাকা অবস্থায় বিভিন্ন সরঞ্জাম সঙ্গে নিয়ে তোলা একাধিক ছবি দেখিয়েছে রেন টিভি। ছবিগুলো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ছড়িয়ে পড়েছে।

বিমান দুর্ঘটনায় রাশিয়ার কুখ্যাতি রয়েছে। যদিও সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিমান চলাচল নিরাপদ করতে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেয় রাশিয়া। এই পদক্ষেপের অংশ হিসেবে দেশটির প্রধান এয়ারলাইনগুলো সোভিয়েত বিমান বদলে আধুনিক জেট বিমান ব্যবহার শুরু করে।

এর পরও বিমান তদারকির অভাব এবং নিরাপত্তার মান বজায় রাখার ক্ষেত্রে শিথিলতার কারণে দেশটির বিভিন্ন দুর্গম এলাকায় প্রায়ই ছোট বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার খবর পাওয়া যায়। মাঝে মধ্যে বড় বিমানও দুর্ঘটনায় পড়ছে।

গত মাসে পুরনো একটি আন্তোনভ এন-২৬ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ছয়জনের মৃত্যু হয়েছিল। গত জুলাইয়ে কামচাটকায় একটি দুই ইঞ্জিনবিশিষ্ট আন্তোনভ এন-২৬ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে মারা যায় ২৮ জন। এর আগে চলতি বছরের শুরুতে দুটি এল-৪১০ বিমান বিধ্বস্ত হয়ে মারা যায় আটজন। সূত্র : এএফপি, সিএনএন, রয়টার্স।



সাতদিনের সেরা