kalerkantho

রবিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ২৮ নভেম্বর ২০২১। ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

বিএনপি নেতারা বললেন

আ. লীগ থেকে বাঁচতে মানুষ বিএনপিকে ভোট দেবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আ. লীগ থেকে বাঁচতে মানুষ বিএনপিকে ভোট দেবে

‘বিএনপিকে মানুষ কেন ভোট দেবে’, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন বক্তব্যের জবাবে বিএনপির নেতারা বলেছেন, আওয়ামী লীগ, প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সরকারের হাত থেকে বাঁচার জন্যই জনগণ বিএনপিকে ভোট দেবে।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর গতকাল মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেন, ‘উনাদের (আওয়ামী লীগ) হাত থেকে বাঁচার জন্যই জনগণ বিএনপিকে ভোট দেবে। এখন মানুষের জীবন-জীবিকার কোনো নিরাপত্তা নেই, চারদিকে ভয়-ত্রাস-সন্ত্রাস ছাড়া কোনো কিছু নেই। যার ফলে মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে গেছে। ওই কারণেই ভোট দেবে।’

গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের ফখরুল বলেন, ‘তারা ১০ টাকা কেজি চাল খাওয়াবে বলে এখন ৭০ টাকা কেজি চাল কিনে খেতে হয়। এত টাকা দিয়ে চাল কিনে খাওয়া জনগণের পক্ষে সম্ভব নয়। তাই জনগণ বিএনপিকে ভোট দেবে। তারা বিনা পয়সায় সার দেবে বলেছিল, যেটি এখন আকাশচুম্বী। এর জন্যই ভোট দেবে। করোনার সময় ব্যর্থতার কারণেই ভোট দেবে। প্রণোদনার কথা বলেছিল, মানুষকে দেয়নি। আবার গার্মেন্ট সেক্টরে প্রণোদনার কথা বলেও ধোঁকাবাজি করেছে। সরকারদলীয় লোকজন ছাড়া গার্মেন্ট সেক্টরে প্রণোদনা কেউ পায়নি। আড়াই হাজার টাকা করে গরিব মানুষকে দেওয়ার কথা বলেছিল, সেটি জনগণ পায়নি। এ দেশকে তারা এমন জায়গায় নিয়ে গেছে, সেই জায়গা থেকে, আওয়ামী লীগের হাত থেকে, শেখ হাসিনার হাত থেকে, সরকারের হাত থেকে মুক্তি চায়। বিএনপি একমাত্র দল, যে দলটি মানুষকে শান্তি দিয়েছিল। তাই তারা বিএনপিকে ভোট দেবে।’

দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর দিনে ভোট হলে জনগণ বিএনপিকে ভোট দিত, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে তারা বিএনপিকে ভোট দেবে। জনগণ সুযোগ খুঁজছে, সুযোগ পেলেই তারা বিএনপিকে ভোট দেবে। এ জন্যই ২০১৮ সালের নির্বাচনে আগের রাতে ডাকাতি করেছে।’

দলের ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লা বুলু বলেন, ‘উনার (প্রধানমন্ত্রী) এত আত্মবিশ্বাস থাকলে শতভাগ নয়, ৫০ শতাংশ নির্বাচন নিরপেক্ষ করার সুযোগ তৈরি করুন। এরপর ভোটের ব্যবস্থা করুন। দেখুক, বিএনপিকে কারা ভোট দেয়। তিনি তখন দেখতে পারবেন নৌকায় কয়টা সিল পড়ে আর ধানের শীষে কতগুলো পড়ে।’ সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী বলেন, ‘বিএনপিকে তো ভোট দেবে জনগণ, সেটা দিনের আলোয়। বিএনপিকে কেউ রাতের অন্ধকারে ভোট দেয় না। এ জন্য সরকার ভোটারদেরও চেনেও না।’

প্রসঙ্গত, গত সোমবার বিকেলে গণভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘জনগণ ভোট দিতে পারছে না বলে যাঁরা অভিযোগ করছেন, তাঁদের কে ভোট দেবে। একটা দল কিভাবে জিতবে? তাঁর নেতৃত্ব কোথায়? একজন এতিমের অর্থ আত্মসাৎ করে সাজাপ্রাপ্ত আসামি। আরেকজন ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা, দশ ট্রাক অস্ত্র মামলাসহ নানা ধরনের কর্মকাণ্ডের ফলে দেশান্তরি, সাজাপ্রাপ্ত আসামি। তাঁদের নেতৃত্ব দিয়েছে। তাহলে জনগণ কোন ভরসায় ওই দলকে ভোট দেবে, আমাকে সেটা বলেন।’

 

 



সাতদিনের সেরা