kalerkantho

রবিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৮। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১১ সফর ১৪৪৩

প্রথম দিনটি চীনের

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

২৫ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



প্রথম দিনটি চীনের

৭৭৭ জনের বিশাল বহর নিয়ে টোকিও এসেছে চীন। প্রথম দিন হতাশ করেননি তাদের অ্যাথলেটরা। টোকিও অলিম্পিকের প্রথম সোনাটাই জিতেছেন চীনের শ্যুটার ইয়াং কিয়ান, তা-ও রেকর্ড গড়ে। মেয়েদের ১০ মিটার এয়ার রাইফেল শ্যুটিংয়ে ২৫১.৮ পয়েন্ট স্কোর করেছেন কিয়ান, যা অলিম্পিকের রেকর্ড। প্রথম দিন তিনটি সোনাসহ সর্বোচ্চ চারটি পদক চীনেরই। অপর দুটি সোনা এসেছে ভারোত্তোলন ও ফেন্সিং থেকে। স্বাগতিক জাপান প্রথম দিন জিতেছে একটি সোনা, একটি রুপা। মেয়েদের ফুটবলে জাম্বিয়ার বারবারা বান্দা করেছেন অনন্য কীর্তি। প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের পর গতকাল চীনের বিপক্ষেও হ্যাটট্রিক করেছেন তিনি। প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে অলিম্পিকে টানা দুই ম্যাচে হ্যাটট্রিকের গর্ব এখন বান্দার।  ম্যাচটি ড্র হয়েছে ৪-৪ গোলে।

বাংলাদেশের রোমান সানা ও দিয়া সিদ্দিকীকে হারানো দক্ষিণ কোরিয়ান জুটি কিম জে দিওক ও অ্যান সান শেষ পর্যন্ত সবাইকে পেছনে ফেলে সোনা জিতেছেন আর্চারির মিশ্র দলগত রিকার্ভে। এ ছাড়া একটি করে সোনা জিতেছে ইকুয়েডর, হাঙ্গেরি, ইরান, ইতালি, থাইল্যান্ড ও কসোভো। প্রথম দিনের শেষ সোনাটা জেতেন ইতালির ভিতো দেল আকিলা। তায়কোয়ান্দোয় ছেলেদের ৫৮ কেজি ওজন শ্রেণিতে তিউনিশিয়ার মোহামেদ খালিল জেন্দোবিরকে ১৬-১০ পয়েন্টে হারান তিনি। ভারোত্তোলনে মেয়েদের ৪৯ কেজি ওজন শ্রেণিতে রুপা জিতেছেন ভারতের মিরাবাই চানু, যা ২১ বছর পর এই ইভেন্টে দেশটির প্রথম কোনো পদক।

১০ মিটার এয়ার রাইফেলে চীনের ইয়াং কিয়ান সোনা জেতেন শেষ শটে ৯.৮ স্কোর করে। রুপাজয়ী রাশিয়ার আনাস্তাশিয়া গালাশিনার স্কোর ছিল ২৫১.১। শেষ শটে ৮.৯ স্কোর করায় আর সোনা জেতা হয়নি গালাশিনার। করোনাভাইরাসের কারণে এবার পদক পরিয়ে দেওয়া হচ্ছে না কোনো প্রতিযোগীকে। তাই আইওসি প্রধান টমাস বাখ সামনে থাকলেও পাত্র থেকে নিজেই নিজের সোনার পদক তুলে নেন ইয়াং কিয়ান। এ ছাড়া ভারোত্তোলনে মেয়েদের ৪৯ কেজি ওজন শ্রেণিতে ২১০ কেজি ওজন তোলেন চীনের জিহু হউয়ের। স্ন্যাক, ক্লিন অ্যান্ড জার্ক আর টোটাল—তিন বিভাগেই অলিম্পিক রেকর্ড গড়েছেন তিনি। আর মেয়েদের ফেন্সিংয়ে ব্যক্তিগত এইপে ইভেন্টে রুমানিয়ার আনা মারিয়া পপেস্কুকে ১১-১০ পয়েন্টে হারিয়ে সোনা জিতেছেন চীনের সুন ইয়েন।

স্বাগতিক জাপানের হয়ে জুডোতে প্রথম সোনা এনে দিয়েছেন নাওহিসা তাকাতো। ছেলেদের ৬০ কেজি ওজন শ্রেণির ফাইনালে তাইওয়ানের ইয়াং ইউং-উয়েইকে হারান তিনি। জাপানের মার্শাল আর্টসের প্রাণকেন্দ্র নিপ্পন বুদোকানে সোনার পদক নিশ্চিত হওয়ার পর কান্নায় ভেঙে পড়েন তাকাতো। সাঁতারে ক্যান্সার জয় করে ফিরেছিলেন জাপানের ইকি রিকাকো। কিন্তু মেয়েদের ৪ গুণিতক ১০০ মিটার ফ্রিস্টাইলের বাছাইয়ে বাদ পড়ে যান রিকাকোসহ জাপানি প্রতিযোগীরা।

ছেলেদের শ্যুটিংয়ে ১০ মিটার এয়ার পিস্তলে ২৪৪.৮ স্কোর গড়ে সোনা জিতেছেন ইরানের জাভাদ ফরোগি। ৪১ বছর বয়সে প্রথমবার অলিম্পিকে অংশ নিয়েই বাজিমাত তাঁর। অলিম্পিক শ্যুটিংয়ে এটাই আবার প্রথম সোনা ইরানের। এই ইভেন্টে গত আসরের সোনাজয়ী ভিয়েতনামের হোয়াং জুয়ান ফাইনালেই পৌঁছতে পারেননি। ছেলেদের সাইক্লিং রোড রেসের সোনা ইকুয়েডরের রিচার্ড কারাপাজের। ১৯৯৬ সালের পর অলিম্পিকে এটা দ্বিতীয় সোনা জেতার কীর্তি ইকুয়েডরের কোনো খেলোয়াড়ের। এ ছাড়া ছেলেদের টেনিসে ‘গোল্ডেন স্লাম’ জয়ের অভিযানে শুরুটা দাপটে করেছেন নোভাক জোকোভিচ। প্রথম রাউন্ডে হুগো দেলিয়ানকে র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষে থাকা এই তারকা হারান ৬-২, ৬-২ গেমে। তবে প্রচন্ড গরমে টেনিস হওয়ায় সূচি বদলের আবেদন জানিয়েছেন জোকোভিচ। ছেলেদের হকিতে আবার মাঠেই উত্তাপ! স্পেন-আর্জেন্টিনার ম্যাচে ঘটেছে অপ্রীতিকর ঘটনা। আর্জেন্টিনার লুকাস রোসি হকিস্টিক দিয়ে আঘাত করে বসেন দাভিদ আলেগ্রির মাথায়। মেজাজ হারিয়ে রোসির গলা চেপে ধরেন স্প্যানিশ আরেক খেলোয়াড়!