kalerkantho

বুধবার । ২০ শ্রাবণ ১৪২৮। ৪ আগস্ট ২০২১। ২৪ জিলহজ ১৪৪২

স্কুল-কলেজের ছুটি ফের বাড়ল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৩ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্কুল-কলেজের ছুটি ফের বাড়ল

করোনা পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে আজ রবিবার থেকে স্কুল-কলেজ খোলার ঘোষণা দিয়েছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়, কিন্তু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার এক দিন আগেই গতকাল শনিবার ফের ছুটি বাড়ানো হলো। এ দফায় আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত কওমি মাদরাসাসহ সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি বাড়িয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

গতকাল ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন বলেছেন, ‘স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা বিবেচনা করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে। এই মুহূর্তে এর চেয়ে বিকল্প তো আমাদের আর কিছু নেই। তবে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করে বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক ব্যবস্থা কিংবা আইসিটিনির্ভর যে অবকাঠামো আছে তার সর্বোচ্চ ব্যবহারের চেষ্টা করছি।’

গতকাল শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে করোনা পরিস্থিতির আরো অবনতি হওয়ায় এবং দেশের কোনো কোনো অঞ্চলে আংশিকভাবে কঠোর লকডাউন কার্যকর থাকায় চলমান ছুটি আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মচারী ও অভিভাবকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও সার্বিক নিরাপত্তা বিবেচনায় এবং কভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে পরামর্শক্রমে দেশের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ইবতেদায়ি, কওমি মাদরাসাগুলোতে এই ছুটি কার্যকর হবে।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার জন্য আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত সব ধরনের সরকারি, বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কিন্ডারগার্টেনের চলমান ছুটি বাড়ানো হয়েছে। এ সময় নিজেদের ও অন্যদের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ থেকে সুরক্ষার লক্ষ্যে শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ বাসস্থানে অবস্থান করবে। পাশাপাশি অনলাইন শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়, শিক্ষার্থীদের বাসস্থানে অবস্থানের বিষয়টি অভিভাবকরা নিশ্চিত করবেন এবং স্থানীয় প্রশাসন তা নিবিড়ভাবে পরিবীক্ষণ করবে। সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকরা তাঁদের নিজ শিক্ষার্থীরা যাতে বাসস্থানে অবস্থান করে নিজের পাঠ্য বই অধ্যয়ন করে সেই বিষয়টি অভিভাবকদের মাধ্যমে নিশ্চিত করবেন।

পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলে থাকা শিক্ষার্থীদের টিকা দেওয়ার পরই উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খোলা হবে বলে এর আগেই জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি)। তবে একাডেমিক কাউন্সিলের অনুমোদনক্রমে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো সশরীরে পরীক্ষা নিতে পারবে।

 



সাতদিনের সেরা