kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

আরো ৬০ মৃত্যু মিয়ানমারের রাজপথে

সামরিক আদালতে ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড
থানায় হামলায় ১০ পুলিশ নিহত

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আরো ৬০ মৃত্যু মিয়ানমারের রাজপথে

মিয়ানমারে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে আরো অন্তত ৬০ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে শতাধিক মানুষ। গত শুক্রবার রাতে ও গতকাল সকালে ইয়াঙ্গুনের পার্শ্ববর্তী বাগো শহরে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। এদিকে সেনা কর্মকর্তার এক সহযোগীকে হত্যার দায়ে ১৯ জনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন সামরিক আদালত। দেশটির সামরিক অভ্যুত্থানের পর এ ধরনের রায় এটিই প্রথম।

অন্যদিকে জান্তাবিরোধী আঞ্চলিক সশস্ত্র গোষ্ঠীর হামলায় ১৪ পুলিশ সদস্য নিহত হয়েছে। উত্তরাঞ্চলীয় শান প্রদেশের নাউংমন শহরে গতকাল সকালে এ হামলা হয়।

জান্তা সরকারের পতন ঘটাতে এবং সু চিসহ শীর্ষ নেতাদের মুক্তির দাবিতে দুই মাসের বেশি সময় ধরে বিক্ষোভ চলছে মিয়ানমারে। বিক্ষোভ দমাতে গুলি ছুড়তেও পিছপা হচ্ছেন না নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। স্থানীয় পর্যবেক্ষক সংস্থা ‘অ্যাসিস্ট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনার্স’ (এএপিপি) জানিয়েছে, গত দুই মাসে নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিতে ৬২০ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। যদিও ধারণা করা হয়, প্রকৃত সংখ্যা আরো বেশি হবে। এ ছাড়া গত দুই মাসে গ্রেপ্তার ও গুম করা হয়েছে অন্তত দুই হাজার ৮০০ ব্যক্তিকে। তাঁদের মধ্যে সাংবাদিক, অভিনেতা, সরকারি আমলা, গায়ক, মানবাধিকারকর্মীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ রয়েছেন।

গত শুক্রবার রাতে ও গতকাল সকালে বাগো শহরে বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে নির্বিচারে গুলি চালান নিরাপত্তা বাহিনীরা সদস্যরা। স্থানীয় একাধিক গণমাধ্যম জানিয়েছে, সেখানে অন্তত ৬০ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে। অনেকেই বলছে, নিহতের সংখ্যা আরো বেশি হতে পারে। কারণ পুলিশ পুরো এলাকা ঘিরে রাখায় বাস্তব চিত্র বোঝা যাচ্ছে না।

দেশটির বাণিজ্যিক রাজধানী ইয়াঙ্গুনের একটি জেলায় সেনাবাহিনীর এক ক্যাপ্টেনের সহযোগীকে হত্যার দায়ে ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ড হয়েছে। গত শুক্রবার দেশটির সামরিক বাহিনীর মালিকানাধীন ‘মায়াবতী টেলিভিশন’ জানায়, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তদের মধ্যে ১৭ জন রায়ের সময় কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন না। নর্থ ওক্কালাপা নামের ওই জেলায় সামরিক আইন জারি ছিল। এ কারণে বিচার সামরিক আদালতে হয়েছে। তবে সেনা কর্মকর্তার ওই সহযোগী কবে, কেন কিংবা কাদের হাতে খুন হয়েছে, সে বিষয়ে বিস্তারিত জানা যায়নি।

এদিকে গতকাল সকালে শান প্রদেশের নাউংমন শহরের একটি থানায় হামলা চালায় আঞ্চলিক বিভিন্ন সশস্ত্র বাহিনীর একটি জোট। তাতে অন্তত ১৪ পুলিশ সদস্য নিহত হন। জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়া এই জোটে আরাকান আর্মি, তা-আং ন্যাশনাল লিবারেশন আর্মি ও মিয়ানমার ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক অ্যালায়েন্স আর্মির নামও রয়েছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে জানানো হয়েছে। সূত্র : রয়টার্স, এএফপি।