kalerkantho

মঙ্গলবার । ১ আষাঢ় ১৪২৮। ১৫ জুন ২০২১। ৩ জিলকদ ১৪৪২

বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে মোদির শ্রদ্ধা

‘বঙ্গবন্ধুর জীবন বাংলাদেশের সংগ্রামের ইতিহাস’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি    

২৮ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে মোদির শ্রদ্ধা

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় গতকাল জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিস্থলে পুষ্পস্তবক অর্পণের পর পরিদর্শন বইয়ে সই করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এ সময় পাশে ছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর বোন শেখ রেহানা। ছবি : মোদির টুইট থেকে

গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিসৌধে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকাল শনিবার সকাল ১১টা ২১ মিনিটে মোদিকে বহন করা হেলিকপ্টার টুঙ্গিপাড়া উপজেলা পরিষদ মাঠের হেলিপ্যাডে অবতরণ করে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে স্বাগত জানিয়ে বঙ্গবন্ধুর সমাধি কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

সকাল ১১টা ৩৯ মিনিটে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদি বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধের বেদিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। পুষ্পস্তবক অর্পণের পর তিনি কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় বিউগলে করুণ সুর বাজানো হয়। নরেন্দ্র মোদি বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের আত্মার শান্তি কামনা করে প্রার্থনা করেন। এ সময় সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানা উপস্থিত ছিলেন।

এরপর নরেন্দ্র মোদি বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধ কমপ্লেক্স পরিদর্শন এবং একটি বকুলগাছের চারা রোপণ করেন। তিনি বঙ্গবন্ধু ভবনে রাখা পরিদর্শক বইয়ে স্বাক্ষর করেন। সেখানে তিনি লিখেছেন, ‘বঙ্গবন্ধুর জীবন বাংলাদেশের জনগণের অধিকার এবং তাদের পরিচয় ও সংস্কৃতি সুরক্ষার সংগ্রামের ইতিহাস।’

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র অরিন্দম বাগচী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু বিগত শতকের অন্যতম সর্বোচ্চ নেতা। তাঁর জীবন ও আদর্শ এখনো লাখ লাখ মানুষকে অনুপ্রাণিত করছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘মুজিব চিরন্তন—বঙ্গবন্ধুর বার্তা সর্বকালের জন্য। আমরা তাঁর স্মৃতির প্রতি সম্মান জানাই।’

টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিসৌধে গিয়ে মোদির শ্রদ্ধা জানানো প্রসঙ্গে অরিন্দম বাগচী বলেন, এই প্রথম কোনো বিদেশি সরকারপ্রধান টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

মোদির বঙ্গবন্ধু সমাধিসৌধ কমপ্লেক্স পরিদর্শনের সময় খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) শেখ সালাউদ্দিন জুয়েল, প্রধানমন্ত্রীর চাচাতো ভাই শেখ হেলাল উদ্দিন এমপির ছেলে ও বাগেরহাট-২ আসনের এমপি শেখ সারহান নাসের তন্ময় উপস্থিত ছিলেন।

টুঙ্গিপাড়ার কর্মসূচি শেষ করে নরেন্দ্র মোদি দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটে হেলিকপ্টারযোগে কাশিয়ানী উপজেলার ওড়াকান্দির ঠাকুরবাড়ির উদ্দেশে রওনা দেন। নরেন্দ্র মোদির সফর উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছিল টুঙ্গিপাড়ার সমাধিসৌধ ও গোপালগঞ্জের গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলো।