kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

৪৭৩২ কোটি টাকা চায় ইসি

তিন অর্থবছরে এই টাকা ব্যয় করা হবে

সজীব হোম রায়   

৭ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



৪৭৩২ কোটি টাকা চায় ইসি

নির্বাচন অনুষ্ঠান, ভোটার তালিকা হালনাগাদকরণ, জাতীয় পরিচয়পত্র মুদ্রণ ও বিতরণসহ কয়েকটি খাতে আগামী তিন অর্থবছরে চার হাজার ৭৩২ কোটি ৬৭ লাখ ৩০ হাজার টাকা চায় নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এর মধ্যে আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরেই এক হাজার ১৪৫ কোটি ৩৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা চাইছে সংস্থাটি।

সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয়ের কাছে এই পরিমাণ টাকা চেয়ে চিঠি দিয়েছে কমিশন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

সূত্র মতে, নির্বাচন কমিশন আগামী অর্থবছরে নির্বাচন অনুষ্ঠান বাবদ এক হাজার ১৪৫ কোটি ৩৪ লাখ ৬০ হাজার টাকা চায়। এই খাতে ২০২২-২৩ অর্থবছরে ২৮৪ কোটি ৮৪ লাখ ৫০ হাজার টাকা এবং ২০২৩-২৪ অর্থবছরে দুই হাজার ৭৭০ কোটি ২৯ লাখ ২৫ হাজার টাকা ব্যয়ের প্রাক্কলন করেছে কমিশন।

ভোটার তালিকা হালনাগাদকরণ, জাতীয় পরিচয়পত্র মুদ্রণ ও বিতরণের জন্য ও নির্বাচন ক্যালেন্ডার অনুযায়ী ভোটার তালিকা খাতে আগামী অর্থবছরে ৬৫ কোটি টাকা, ২০২২-২৩ অর্থবছরে ৬৮ কোটি টাকা এবং ২০২৩-২৪ অর্থবছরে ৬৮ কোটি টাকা চাইছে সংস্থাটি।

জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগের বাজেটে আগামী অর্থবছরে ৮২ কোটি ৪৯ লাখ ৬৭ হাজার টাকা ব্যয়ের প্রাক্কলন করেছে কমিশন। এই খাতে পরের অর্থবছরে ৭৯ কোটি ৯৪ লাখ ৫০ হাজার এবং ২০২৩-২৪ অর্থবছরে ৮১ কোটি ৫৭ লাখ ৩৮ হাজার টাকা লাগবে বলে প্রাথমিকভাবে জানিয়েছে কমিশন।

নির্বাচন ও ভোটার তালিকা হালনাগাদ বিবেচনায় নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের ‘প্রশিক্ষণ ব্যয়’ খাতে আগামী অর্থবছরে ১২৩ কোটি ৯৭ হাজার টাকা ব্যয় করতে চায় কমিশন। এই খাতে পরের অর্থবছরে ৪৪ কোটি ৯৯ লাখ ২৬ হাজার টাকা এবং এর পরের অর্থবছরে ১৭৯ কোটি ৬৭ লাখ ৮১ হাজার টাকা ব্যয়ের পরিকল্পনা করেছে সংস্থাটি।

নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের অনুষ্ঠান/উৎসবাদি খাতে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আগামী ২০২১-২২ অর্থবছরে ১০ কোটি টাকা খরচ করতে চাইছে নির্বাচন কমিশন।

জানা গেছে, আগামী অর্থবছরে নির্বাচন ব্যয় খাতে ৪৩০ কোটি টাকা দেওয়ার পরিকল্পনা করছে অর্থ মন্ত্রণালয়। আর ২০২৩-২৪ অর্থবছরে দুই হাজার ৭৭০ কোটি টাকার বিপরীতে সর্বোচ্চ এক হাজার কোটি টাকা দেওয়ার কথা ভাবা হচ্ছে। তবে নির্বাচন কমশিন সচিবালয়ের চাহিদার তুলনায় অর্থ বিভাগের দেওয়া সিলিং কম হওয়ায় ২০২১-২২ অর্থবছরে ৭৬৭ কোটি ৪৮ লাখ ১৯ হাজার টাকা এবং ২০২৩-২৪ অর্থবছরে এক হাজার ৬৯৩ কোটি ৪৬ লাখ ৮৩ হাজার টাকার ঘাটতির বিষয়ে অর্থ বিভাগে আধাসরকারি পত্র (ডিও লেটার) দেবে নির্বাচন কমিশন।

মন্তব্য