kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১২ রজব ১৪৪২

বিশেষজ্ঞ মত

ভয়ের কিছু নেই, টিকা নিন নিঃসংকোচে

ডা. মো. নজরুল ইসলাম

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভয়ের কিছু নেই, টিকা নিন নিঃসংকোচে

ভ্যাকসিন বা টিকা এখন দুই ধরনের। ওরাল বা মুখে খাওয়ার টিকা আছে। আবার ইঞ্জেকশন পদ্ধতিতে শরীর ছিদ্র করে দেওয়ার টিকা আছে। করোনাভাইরাসের এখন পর্যন্ত যে কয়েকটি টিকা চালু হয়েছে তার সবই ইঞ্জেকশন পদ্ধতিতে দেওয়ার। আর যেকোনো ইঞ্জেকশন দিতে গেলে প্রথমত সুঁই ফোটানো জায়গায় কিছুটা ব্যথা হবে বা প্রতিক্রিয়া ঘটবে। এরপর হচ্ছে, যে ওষুধ শরীরের মধ্যে ঢুকছে তার কোনো না কোনো প্রতিক্রিয়া তো থাকতেই হবে। এটি তো ওষুধের ধর্ম। আর সেই প্রতিক্রিয়া কারো শরীরে বেশি অনুভূত হয় আবার কারো শরীরে টেরই পাওয়া যায় না। এটি যতটা না ওষুধের প্রভাব, তার চেয়ে বেশি হচ্ছে যে ওষুধটি শরীরে গ্রহণ করছে তার সহ্যক্ষমতার প্রভাব। উদাহরণ দিয়ে বলা যায়, গত ২৭-২৮ জানুয়ারি যাঁরা টিকা নিয়েছেন তাঁদের সবার শরীরে এক মাত্রায় ওষুধ কাজ করলেও এর উপলব্ধি বা অনুভূতির বহিঃপ্রকাশ একেকজনের একেক রকম হয়েছে। এই টিকা নেওয়ার পরে কারো হয়তো ব্যথা বা জ্বর জ্বর ভাব হয়েছিল, কারো হয়তো জ্বর হয়েছিলও, আবার বেশির ভাগেরই কোনো কিছুই হয়নি। তাঁরা হয়তো কিছু উপলব্ধি করতে পারেননি। প্রতিক্রিয়া যা-ই হোক না কেন তার সবই সেরে যায় দুই দিনের মধ্যে।

আরেকটি বিষয় হচ্ছে, যে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা আমাদের দেশে দেওয়া হচ্ছে, এখন পর্যন্ত কোথাও এর মারাত্মক কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। যা হচ্ছে তা স্বাভাবিক। এটা ওষুধের প্রতিক্রিয়া মাত্র। একে ঠিক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াও বলা চলে না। এ ছাড়া এই টিকা যে প্রতিষ্ঠানটিতে উৎপাদন হয়েছে, সেই সেরাম ইনস্টিটিউটের অবস্থান ভারতে হলেও এই প্রতিষ্ঠান বিশ্বের সবচেয়ে বড় এবং গ্রহণযোগ্য টিকা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান। বছরের পর বছর ধরে এই প্রতিষ্ঠান সারা বিশ্বে টিকা সরবরাহ করছে। বাংলাদেশে এর আগেও কোটি কোটি মানুষের টিকা এসেছে ওই সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে। এ ছাড়া অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার মতো প্রতিষ্ঠান এমনি এমনি সেরামকে তাদের স্বত্ব উন্মুক্ত করে দেয়নি। সেরামের সুনাম ও গ্রহণযোগ্যতার কারণেই বিনা পয়সায় ওই প্রতিষ্ঠানকে এই টিকা তৈরি করার জন্য অনুমতি দিয়েছে। এ জন্য কোনো রয়ালটিও তারা নেয়নি।

ফলে আমরা নির্দ্বিধায় বলতে পারি, এই টিকা নিয়ে ভয়ের কিছু নেই। আমরা সবাই নির্ভয়ে, নিঃসংকোচে টিকা নিতে পারি। আর টিকা নেওয়ার আগে মানসিকভাবে প্রস্তুতি রাখতে হবে যে টিকা নেওয়ার পর স্বাভাবিক কিছু প্রতিক্রিয়ার অনুভূতি বা বহিঃপ্রকাশ ঘটতেও পারে, আবার না-ও পারে।

বিশেষজ্ঞ : ভাইরোলজির অধ্যাপক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা