kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

নিউ ইয়র্কে সাকিব

আমার মতো ভুল যেন আর কেউ না করে

বিশেষ প্রতিনিধি, নিউ ইয়র্ক   

২৯ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আমার মতো ভুল যেন আর কেউ না করে

সমাপ্তি ঘটল এক বছরের নিষেধাজ্ঞার। ‘মুক্ত’ হলেন সাকিব আল হাসান। আজ বৃহস্পতিবার থেকে আবার আনুষ্ঠানিকভাবে সব ধরনের ক্রিকেট খেলতে পারবেন বাংলাদেশের এই অলরাউন্ডার। তাঁর প্রত্যাবর্তন স্মরণীয় করে রাখতে এই শুভক্ষণের মাত্র কয়েক ঘণ্টা আগে নিউ ইয়র্কে উষ্ণ অভ্যর্থনার আয়োজন করলেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। শুভ কামনা জানালেন প্রিয় খেলোয়াড়কে। সেই অনুষ্ঠানে সাকিব বললেন, ‘আমার মতো ভুল যেন আর কেউ না করে।’

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার রাতে (বাংলাদেশ সময় গতকাল বুধবার সকালে) যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের কুইন্স প্যালেস মিলনায়তনে এই অনুষ্ঠান হয়। করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারণে সামাজিক দূরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধির নানা নিয়ম মেনে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে শো টাইম মিউজিক। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শো টাইম মিউজিকের কর্ণধার আলমগীর খান আলম। সাংবাদিক ও লেখক শামীম আল আমিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে সাকিবকে নানা ধরনের প্রশ্নের সুযোগ পান প্রবাসীরা।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের গর্ব সাকিব আল হাসান তাঁর বক্তব্যের শুরুতেই করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে যারা মারা গেছে, তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। স্মরণ করিয়ে দেন, করোনা এখনো মারাত্মক ঝুঁকি। সবাইকে সতর্ক থাকার কথা বলেন তিনি।

অনৈতিক প্রস্তাব পেয়েও সংশ্লিষ্ট কোনো কর্তৃপক্ষকে না জানানোয় গত বছরের ২৯ অক্টোবর সাকিবকে নিষিদ্ধ করে আইসিসি। মূল শাস্তি ছিল দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা, তবে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা ছিল স্থগিত।

এক বছর পর ফিরছেন, কেমন লাগছে? হেসে সংক্ষেপে সাকিব উত্তর দেন, ‘ভালো লাগছে। দোয়া করবেন, যেন দেশের জন্য ভালো খেলতে পারি। চেষ্টা সব সময়ই থাকবে।’ প্রবাসীরা শুভ কামনা জানিয়ে বলেন, সাকিব ফিরবেন বীরের বেশে। কিন্তু গত একটি বছর যে কারণে জীবন থেকে চলে গেল, সেটা নিয়ে কি সাকিবের কোনো আফসোস আছে? এমন প্রশ্নের জবাবে সাকিব বলেন, ‘আমার মতো ভুল যেন আর কেউ না করে।’

গতকাল বুধবার রাত ১২টার পর থেকেই সাকিবের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা উঠে গেছে। একটি বছর কিভাবে কেটেছে, এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘পরিবারকে সময় দিয়েছি। আপনারা জানেন, প্রথম সন্তানকে সময় দিতে পারিনি। দ্বিতীয় সন্তান সেটা পেয়েছে। বেবি সিটিং করেছি। আর অবশ্যই ক্রিকেটকে মিস করেছি।’

সাকিব জানান, ৪ নভেম্বর (আগামী বুধবার) দেশে ফিরছেন তিনি। ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে তাঁর সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রয়েছে। নিয়মতান্ত্রিক উপায়েই দ্রুত ক্রিকেটে ফিরবেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি বলেন, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপসহ সামনের দিনগুলোতে বাংলাদেশ বিশ্ব ক্রিকেটে ভালো করবে বলেই তাঁর বিশ্বাস।

করোনা মহামারিতে গোটা দুনিয়া বদলে গেছে। ক্রিকেটেও তো প্রভাব পড়বে। এ বিষয়ে সাকিব আল হাসান বলেন, একটি দরজা বন্ধ হয়ে গেলে আরো দরজা খুলে যায়। নিশ্চয়ই উপায় বের হবে। ভবিষ্যৎ নিয়ে আশাবাদের কথাই শোনালেন বিশ্বক্রিকেটের এই বরপুত্র। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা