kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৬ কার্তিক ১৪২৭। ২২ অক্টোবর ২০২০। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

১২৯ কেন্দ্রের মধ্যে ৮৫টিই ঝুঁকিপূর্ণ

পাবনা প্রতিনিধি   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



১২৯ কেন্দ্রের মধ্যে ৮৫টিই ঝুঁকিপূর্ণ

পাবনা-৪ (ঈশ্বরদী-আটঘরিয়া) আসনের উপনির্বাচনে আজ শনিবার ভোট নেওয়া হবে। সুষ্ঠুভাবে এ নির্বাচন অনুষ্ঠানে নির্বাচন কমিশনসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন বলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানিয়েছেন। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত একটানা ভোট নেওয়া হবে।

এ উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি অংশ নিচ্ছে। দল তিনটি থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন যথাক্রমে নুরুজ্জামান বিশ্বাস, হাবিবুর রহমান হাবিব ও রেজাউল করিম।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ শেখ জানান, নির্বাচনী এলাকার মোট ভোটার তিন লাখ ৮১ হাজার ১১২ জন। এর মধ্যে পুরুষ এক লাখ ৯১ হাজার ৬৯৭ জন এবং নারী ভোটার রয়েছেন এক লাখ ৮৯ হাজার ৪১৫ জন। দুই উপজেলার মোট ১২৯টি ভোটকেন্দ্রে ভোটকক্ষ রয়েছে ৭২৪টি।

আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির বিষয়ে জানতে চাইলে পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম কালের কণ্ঠকে জানান, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনী পরিবেশ বজায় রাখতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। নির্বাচনের দিন প্রতিটি কেন্দ্রে পর্যাপ্ত পুলিশ সদস্য এবং কেন্দ্রের বাইরে টহল নিশ্চিত করা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিজিবি সদস্যরা এদিন কাজ করবেন। পুলিশ সুপার জানান, নির্বাচনী এলাকায় এরই মধ্যে ১০ প্লাটুন বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

পাবনা পুলিশ সুপারের দপ্তরের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী নির্বাচনী এলাকার ১২৯টি ভোটকেন্দ্রের মধ্যে ৮৫টিকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর মধ্যে ৬৩টি ঈশ্বরদীর এবং ২২টি আটঘরিয়ার।

পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ জানালেন, করোনাকালে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কারণে সংশ্লিষ্ট সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ভোটারদের লাইনে দাঁড়ানো, কেন্দ্রে পর্যাপ্ত স্যানিটাইজারসহ অন্যান্য স্বাস্থ্য সুরক্ষাসামগ্রী রাখার কথা বলা হয়েছে। এর বাইরে প্রার্থীদের তাঁদের কর্মী-সমর্থকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য অনুরোধ করতে বলা হয়েছে। 

নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসার ও পাবনা জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা আব্দুল লতিফ শেখ ভোটারদের আস্থা অর্জনে তাঁদের ভোটকেন্দ্রে যেতে উদ্বুদ্ধকরণে নানা ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানিয়েছেন। তিনি জানান, সকাল ৯টায় ভোট শুরুর আগে ভোটকেন্দ্রে ব্যালট পেপার পৌঁছাবে। ব্যালট পেপার ছাড়া অন্যান্য সামগ্রী এরই মধ্যে কেন্দ্রেগুলোতে পাঠানো হয়েছে।

সাবেক ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু গত ২ এপ্রিল মারা যাওয়ায় আসনটি শূন্য হয়। ১৯৯৬ সাল থেকে টানা আসনটি ছিল আওয়ামী লীগের দখলে। আওয়ামী লীগ আসনটি ধরে রাখাতে আর বিএনপি তাদের হারানো আসন পুনরুদ্ধারের প্রচেষ্টায় নেমেছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা