kalerkantho

শুক্রবার । ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭। ১৪ আগস্ট ২০২০ । ২৩ জিলহজ ১৪৪১

চলে গেলেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



চলে গেলেন যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম

দেশের অন্যতম শিল্পগোষ্ঠী যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম বাবুল আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। গতকাল সোমবার বিকেল ৩টা ৪০ মিনিটের দিকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে (সাবেক এ্যাপোলো) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষনিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর। তিনি স্ত্রী, এক ছেলে,  তিন মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মরহুমের মরদেহ এভারকেয়ার হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বাদ জোহর যমুনা ফিউচার পার্ক জামে মসজিদে সীমিত পরিসরে তাঁর জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর রাজধানীর বনানী কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হবে। পরিবারের পক্ষ থেকে মরহুমের রুহের মাগফিরাত ও দোয়া কামনা করা হয়েছে।

জানা যায়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে গত ১৪ জুন নুরুল ইসলামকে এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তাঁর কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। বিশিষ্ট এই শিল্পোদ্যোক্তার চিকিৎসায় বাংলাদেশের ১০ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পাশাপাশি চীনের তিনটি হাসপাতাল এবং সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে চিকিৎসা পরামর্শ দিয়েছেন।

নুরুল ইসলামের স্ত্রী সাবেক মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী এবং বর্তমান জাতীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম। ছেলে শামীম ইসলাম যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক। তাঁর তিন মেয়ে সারীয়াত তাসরীন সোনিয়া, মনিকা নাজনীন ইসলাম ও সুমাইয়া রোজালিন ইসলাম যমুনা গ্রুপের পরিচালক।

নুরুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা ও বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। শোক প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন প্রমুখ।  

যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যানের মৃত্যুতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শোকবার্তা পাঠিয়েছেন। শোক জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও সেলিমা রহমান। শোক জানিয়েছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকতউল্লা বুলু, আবদুল আউয়াল মিন্টু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী ও সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু।

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের মধ্যে গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দারসহ ২০ দলীয় জোটের নেতারা শোক জানিয়েছেন।

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের এমপি, জাতীয় পার্টির প্রধান পৃষ্ঠপোষক ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, জিয়া উদ্দীন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, মুজিবুল হক চুন্নু, মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাসহ পার্টির নেতাকর্মীরা মরহুমের মৃত্যুতে শোক ও গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন।

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি হাসানুল হক ইনু ও সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার শোক জানিয়েছেন। দৈনিক যুগান্তর সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি সাইফুল আলম মরহুমের মৃত্যুতে গভীর শোক ও পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা