kalerkantho

বুধবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৭। ৫ আগস্ট  ২০২০। ১৪ জিলহজ ১৪৪১

দেশে মৃত্যু প্রায় দুই হাজার

► ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ৪২
► নতুন ৩১১৪ জনসহ মোট শনাক্ত ১৫৬৩৯১ সুস্থ ৬৮০৪৮

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৪ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দেশে মৃত্যু প্রায় দুই হাজার

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরো ৪২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দুই হাজারের কাছাকাছি। তা সত্ত্বেও শনাক্ত মোট রোগী বিবেচনায় মৃত্যুর হার গত কয়েক দিনের মতো ১.২৬ শতাংশের ঘরেই আছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণ করে এমন চিত্র পাওয়া গেছে।

নিয়মিত বুলেটিনে গতকাল শুক্রবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা জানান, দেশে নতুন আরো একটি পরীক্ষাগার চালু হয়েছে, যা নিয়ে করোনাভাইরাস পরীক্ষাগারের সংখ্যা এখন ৭১। এর মধ্যে গতকাল ৬৩টি পরীক্ষাগার থেকে ফল পাওয়া গেছে। সাতটি বেসরকারি ও একটি সরকারি পরীক্ষাগার থেকে ফল আসেনি। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ১৪ হাজার ৭৮১টি  এবং পরীক্ষা হয়েছে ১৪ হাজার ৬৫০টি। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে আট লাখ ১৭ হাজার ৩৪৭টি। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্ত হয়েছে তিন হাজার ১১৪ জন। শনাক্তের হার ২১.২৬ শতাংশ। মোট শনাক্তসংখ্যা এক লাখ ৫৬ হাজার ৩৯১। এ পর্যন্ত মোট পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ১৯.১৩ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছে আরো এক হাজার ৬০৬ জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছে ৬৮ হাজার ৪৮ জন। মোট শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৪৩.৫১ শতাংশ।

মৃত্যুর তথ্য জানিয়ে বুলেটিনে বলা হয়েছে, গতকাল সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় ৪২ জন মারা গেছে। এ পর্যন্ত মারা গেছে মোট এক হাজার ৯৬৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ব্যক্তিদের মধ্যে ৩২ জন পুরুষ এবং ১০ জন নারী। বয়স বিভাজনে ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে একজন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে একজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে পাঁচজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে সাতজন এবং ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে তিনজন। এলাকা বিবেচনায় ঢাকা বিভাগে ১৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১০ জন, খুলনা বিভাগে তিনজন, রাজশাহী বিভাগে তিনজন, বরিশাল বিভাগে একজন, সিলেট বিভাগে তিনজন এবং রংপুর বিভাগে চারজন। তাদের মধ্যে ৩১ জন মারা গেছে হাসপাতালে এবং বাড়িতে ১১ জন।

হাসপাতালের তথ্য : গতকাল বুলেটিনে জানানো হয়, ঢাকা মহানগরীতে কভিড রোগীদের জন্য সাধারণ শয্যা আছে ছয় হাজার ৭৫টি এবং আইসিইউ শয্যা আছে ১৪৯টি। সব বিভাগ মিলে সাধারণ শয্যা আছে ১৪ হাজার ৭৭৫টি এবং আইসিইউ শয্যা আছে ৪০১টি। এ ছাড়া নারায়ণগঞ্জে ৩০০ শয্যা হাসপাতালে গত বৃহস্পতিবার নতুন করে ১০ শয্যার আইসিইউ সংযোজিত হয়েছে। সব মিলিয়ে হাসপাতালে সর্বমোট অক্সিজেন সিলিন্ডার আছে ১১ হাজার ১৪১টি, হাই-ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা আছে ২০৭টি এবং অক্সিজেন কনসেনট্রেটর আছে ৯৮টি। সারা দেশে সাধারণ শয্যায় ভর্তি করা রোগীর সংখ্যা চার হাজার ৭০৮। আইসিইউ শয্যায় ভর্তি করা রোগী ২০৯ জন। সারা দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী ভর্তি হয়েছে ৫৭৮ জন। আর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছে ৬৬৭ জন।

মন্তব্য