kalerkantho

শুক্রবার। ২৬ আষাঢ় ১৪২৭। ১০ জুলাই ২০২০। ১৮ জিলকদ ১৪৪১

এক দিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত ৪০১৪, মৃত্যু ৪৫ জনের

সুস্থ হওয়ার হার বাড়ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ জুন, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এক দিনে সর্বোচ্চ শনাক্ত ৪০১৪, মৃত্যু ৪৫ জনের

রবিবার সকাল থেকে গতকাল সোমবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় চার হাজার ১৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে, যা এখন পর্যন্ত দেশে শনাক্তের সর্বোচ্চ রেকর্ড। এর আগে গত ১৭ জুন শনাক্ত হয়েছিল চার হাজার আটজন। পাশাপাশি ১০ দিনের মাথায় ২৪ ঘণ্টার হিসাবে মৃত্যুর সংখ্যা আবার ৪৫ জনে উঠেছে। একই ধারায় ১০ দিন পর ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছে দুই হাজার ৫৩ জন।

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের নিয়মিত বুলেটিনে গতকাল স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, ৬৮টি পরীক্ষাগারের মধ্যে ৬৫টি পরীক্ষাগারে গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয় ১৭ হাজার ৪১৩টি। আগের জমানো নমুনাসহ পরীক্ষা হয় ১৭ হাজার ৮৩৭টি। এ পর্যন্ত  মোট পরীক্ষা হয়েছে সাত লাখ ৪৮ হাজার ৩৪টি। ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ শনাক্ত চার হাজার ১৪ (পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের হার ২২.৫০ শতাংশ)। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত এক লাখ ৪১ হাজার ৮০১ জন। সুস্থ হয়েছে ২৪ ঘণ্টায় দুই হাজার ৫৩ জন। মোট সুস্থ হয়েছে ৫৭ হাজার ৭৮০ জন এবং শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থ হওয়ার হার ৪০.৭৫ শতাংশ।

মৃত্যুর তথ্য তুলে ধরে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৫ জনসহ এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে এক হাজার ৭৮৩ জনের। শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১.২৬ শতাংশ। মৃতদের মধ্যে ৩৬ জন পুরুষ এবং ৯ জন নারী। বয়স বিভাজনে ২১-৩০ বছরের মধ্যে দুজন, ৩১-৪০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৪১-৫০ বছরের মধ্যে সাতজন, ৫১-৬০ বছরের মধ্যে ১১ জন, ৬১-৭০ বছরের মধ্যে ১৪ জন, ৭১-৮০ বছরের মধ্যে ছয়জন, ৮১-৯০ বছরের মধ্যে একজন এবং ৯১-১০০ বছরের মধ্যে একজন। যাদের ভেতর ঢাকা বিভাগে ২২ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১০ জন, খুলনা বিভাগে পাঁচজন, রাজশাহী বিভাগে একজন, বরিশাল বিভাগে তিনজন, সিলেট বিভাগে তিনজন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে একজন রয়েছে। হাসপাতালে মারা গেছেন ৩০ জন, বাড়িতে ১৪ জন এবং মৃত অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় একজনকে। বুলেটিনে জানানো হয়, ঢাকা মহানগরীতে কভিড-১৯ রোগীদের জন্য সাধারণ বেড আছে ছয় হাজার ১৫টি এবং আইসিইউ বেড আছে ১৩৪টি। সব বিভাগ মিলে সাধারণ বেড আছে ১৪ হজার ৬৯০টি এবং আইসিইউ বেড আছে ৩৭৪টি। সব হাসপাতালে সর্বমোট অক্সিজেন সিলিন্ডার আছে ১১ হাজার ১০৮টি। হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা আছে ১০৪টি এবং অক্সিজেন কনসেনট্রেটরের সংখ্যা ৯৮টি। সারা দেশে সাধারণ বেডে ভর্তীকৃত রোগী চার হাজার ৮৮১ জন এবং আইসিইউ বেডে ভর্তীকৃত রোগী ২১৩ জন। সারা দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ভর্তীকৃত রোগী ৭১৯ জন এবং ছাড়প্রাপ্ত রোগী ৬৪৬ জন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা