kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৯  মে ২০২০। ৫ শাওয়াল ১৪৪১

বিশেষ লেখা

নিয়ম না মানলে ভয়ংকর বিপদ

জুয়েল আইচ

৭ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নিয়ম না মানলে ভয়ংকর বিপদ

নভেল করোনাভাইরাস বা কভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বব্যাপী। কোথাও কোথাও ভয়ংকর রূপ ধারণ করেছে। প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি এখনো। বেঁচে থাকার উপায় হিসেবে প্রত্যেক মানুষকে অন্য কারো কাছ থেকে দূরে থাকার, ঘরে থাকার এবং কিছু স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ জানানো হয়েছে। নিজের ভালোর জন্যই এই বিধিনিষেধ মেনে চলতে হবে। নতুন ভাইরাসটি চীন থেকে ইউরোপ, আমেরিকায় ছড়িয়ে পড়েছে। সেসব দেশে এই রোগটি যেভাবে ছড়িয়ে পড়েছে এবং যেভাবে ওই সব দেশ এই রোগ মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে, সেটা আমাদের মতো দেশে হলে কী যে ভয়ংকর হবে তা হয়তো আমরা ধারণাও করতে পারছি না।

বিশ্বের উন্নত দেশগুলোয় চিকিৎসাব্যবস্থা অনেক উন্নত। আমরা একটু অসুস্থ হলেই যেসব দেশে ছুটে যাই উন্নত চিকিৎসার জন্য, সেসব দেশও এই মহামারি মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে। সেখানে আমাদের মতো দেশ এই অবস্থায় পড়লে কী হবে সেটা হয়তো আমরা এখনো বুঝতেই পারছি না।

আমাদের দেশের অনেক মানুষ এখনো নিয়ম মানছেন না, ইচ্ছামতো ঘোরাফেরা করছেন। নিজের চোখ বন্ধ করে কেউ যদি মনে করে অন্য কেউ দেখল না তাহলে সাংঘাতিক ভুল করবে। যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বের সবচেয়ে উন্নত চিকিৎসার দেশ, তারাও মনে করেছিল কিছু হবে না। এখন সেখানে যে কান্নার শব্দ ভেসে বেড়াচ্ছে তা কল্পনাই করা যায়নি।

কোনো দেশে রোগ ধরা পড়ার পর মারাত্মক রূপ নিতে যত সময় লেগেছে, সেই সময়টা আমাদের দেশে কিছুদিনের মধ্যেই আসবে। এই অবস্থা মোকাবেলার জন্য আমাদের প্রস্তুত হতে হবে। ‘ওপরওয়ালার’ প্রতি ভরসা করে বসে থাকলে হবে না। যা করণীয় তা করতেই হবে। সাবান দিয়ে বারবার হাত ধুতেই হবে। কারো মুখে আমার মুখের বাতাস দিতে পারব না, নিতেও পারব না। এ জন্য নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত আমাদের ঘরেই থাকতে হবে। এটা মানতেই হবে, এর কোনো বিকল্প নেই। আমাদের মনে রাখতে হবে, আরো ভয়ংকর দিন সামনে আসছে, রোগের পর আসবে মহামন্দা। সুতরাং খাল কেটে আমরা যেন কুমির না আনি।

একদিক দিয়ে আমাদের সৌভাগ্য যে রোগের ধাক্কা আমাদের দেশে অনেক পরে এসেছে। প্রথম দিকে এলে আমরা হয়তো বুঝেই উঠতে পারতাম না। এখন বিশ্বের অবস্থা দেখে আমাদের শিক্ষা নিতে হবে, সতর্ক হতে হবে।

আমরা দুঃসময় পার করছি। অনেকেই ঘরবন্দি হয়ে আছি। এ সময়টায়ও যেন আমরা আনন্দে পার করতে পারি, সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আমরা যেন আতঙ্কিত হয়ে না পড়ি। যা কিছুই হোক না কেন আমরা যেন মেনে নিতে পারি, সেই মানসিক শক্তি ধারণ করতে হবে। মরার আগে মরে যাওয়ার কোনো মানে হয় না। মনে রাখতে হবে, আমরা যুদ্ধজয়ী জাতি। যুদ্ধের ময়দানেও আমাদের মনে একটা আনন্দ ছিল—আমরা দেশের জন্য লড়ছি। আমরা ন্যায়ের পথে আছি। আমরা সেই যুদ্ধে জিতেছি। মনে জোর আর সচেতন থাকলে এবারও আমরা জিতে যাব।

লেখক : বিশ্বনন্দিত জাদুশিল্পী

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা