kalerkantho

বুধবার । ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩ জুন ২০২০। ১০ শাওয়াল ১৪৪১

বিশেষজ্ঞ মত

টাকা ছাপিয়ে হলেও করতে হবে অর্থের সংস্থান

ড. আহসান এইচ মনসুর

৫ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টাকা ছাপিয়ে হলেও করতে হবে অর্থের সংস্থান

একদিকে রাজস্ব নেই। অদক্ষতার কারণে সরকারের রাজস্ব ব্যবস্থাপনা একেবারেই নাজুক। এ কারণে স্বাস্থ্য খাতে ব্যয় করা যায়নি। ফলে  আমাদের প্রস্তুতিও দুর্বল। অন্যদিকে করোনার প্রভাবে প্রায় সব খাতই হুমকির মুখে। আমি মনে করি, মধ্যমেয়াদে অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন আনতে হবে। তবে এই মুহূর্তে সারভাইভ করতে হবে। অনতিবিলম্বে ফিন্যানশিয়াল প্যাকেজ বা ফিসক্যাল প্যাকেজ ঘোষণা করতে হবে। যত দূর সম্ভব বিদেশি সহায়তা নিতে হবে। তবে বহুলাংশে টাকা ছাপিয়েই করতে হবে। ঘাটতি বাজেট হিসেবেই করতে হবে।

যেহেতু এখন মন্দার সময়। মূল্যস্ফীতি হবে না। তো সেই সুযোগটা নিতে হবে। কারণ মানুষকে তো না খাইয়ে মরতে দেওয়া যাবে না। যে প্রতিষ্ঠানগুলো, বিশেষ করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি প্রতিষ্ঠানকে তো বিজনেসে ফিরিয়ে আনতে হবে। সে জন্য ব্যাপক প্রণোদনার প্রয়োজন রয়েছে। সহায়তা করতে হবে। সে জন্য সরকারকে এখন পেছনে তাকানোর সময় নেই। যা হওয়ার হয়েছে। এখন ফিসক্যাল ম্যানেজমেন্ট ঢেলে সাজাতে হবে। রাজস্ব ঘাটতি ৭০-৮০ হাজার কোটি টাকা হয়েছে। এমনিতেই সরকার পারত না। সেটা নিয়ে চিন্তা করে লাভ নেই। সরকারকে এখন যা করতে হবে তা হলো—মানুষকে না খেয়ে মরার হাত থেকে রক্ষা করতে হবে এবং ছোট-বড় সব শিল্প যাতে ঘুরে দাঁড়াতে পারে সে জন্য সহায়তা দিতে হবে। সেটা ঋণ হোক, ঋণ পুনঃ তফসিল করে হোক, নতুন ঋণ দিয়ে হোক, বাড়িভাড়া মওকুফ করে হোক ইত্যাদি করতে হবে। অর্থের সংস্থান সরকার করতে পারবে বিদেশি উৎস থেকে। এটা কোনো সমস্যা হবে না। সরকারকে নতুন করে চিন্তা করতে হবে। অনেক সময়ক্ষেপণ করা হয়েছে। আর্থিক ও রাজস্ব ব্যবস্থাপনায় বড় ধরনের সংস্কার আনতে হবে। দেশে এক দশকে এ খাতে তেমন সংস্কার করা হয়নি। যার খেশারত আমরা এখন দিচ্ছি।

লেখক : নির্বাহী পরিচালক, পিআরআই

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা