kalerkantho

রবিবার। ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৭ জুন ২০২০। ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

বিশ্বে মৃত্যু ৫১ হাজার ছাড়াল

ইসরায়েলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী আক্রান্ত ► মক্কা-মদিনায় কারফিউ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



বিশ্বে মৃত্যু ৫১ হাজার ছাড়াল

নভেল করোনাভাইরাস মহামারিতে বিশ্বজুড়ে প্রাণহানির সংখ্যা ৫১ হাজার ছাড়াল। গত ডিসেম্বরের শেষ দিকে চীনের উহান শহরে প্রাণী থেকে মানুষের শরীরে ভাইরাসটির প্রথম সংক্রমণ ঘটে। এরপর মাত্র তিন মাসের ব্যবধানে এই বিপুলসংখ্যক মানুষকে প্রাণ হারাতে দেখল বিশ্ব। এরই মধ্যে রেকর্ডসংখ্যক মানুষ কভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছে। সংক্রমিতের সংখ্যা ১০ লাখ পেরিয়ে গেছে।

এদিকে করোনায় মৃত্যুপুরীর রূপ পাওয়া ইতালিতে মৃতের সংখ্যা কমলেও মেয়াদ বেড়েছে সেখানকার অবরুদ্ধ দশার। এরই মধ্যে স্পেন ও যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা যথাক্রমে ১০ হাজার ও পাঁচ হাজার ছাড়িয়েছে। করোনা আক্রান্ত হয়ে ছয় মাস বয়সী এক শিশু মারা গেছে মার্কিন মুলুকে। যুক্তরাষ্ট্র ও কাতারে মারা গেছে আরো ১৯ বাংলাদেশি।

বৈশ্বিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের হিসাব অনুযায়ী, গতকাল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত সোয়া ১২টা পর্যন্ত বিশ্বের ২০৪টি দেশ ও অঞ্চলে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মোট শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১০ লাখ ৮২৯। এ সময়ের মধ্যে মারা গেছে ৫১ হাজার ৩৫৬ জন। সুস্থ হয়েছে দুই লাখ দশ হাজার ১৯৯ জন।

গত বুধবার জেনেভায় সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডাব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রিয়েসুস বলেছিলেন, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ১০ লাখ হয়ে যাবে। এর ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই আক্রান্তের সেই সংখ্যা দেখল বিশ্ব।

ওই সংবাদ সম্মেলনে ডাব্লিউএইচও প্রধান পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে করোনা মোকাবেলার নীতিমালায় পরিবর্তন আনার আভাসও দেন। টেড্রোস বলেন, ‘আমাদের কাছে এটি এখনো নতুন একটি ভাইরাস। এর বিষয়ে আমরা প্রতিনিয়ত শিখছি। যেহেতু অবস্থার পরিবর্তন হচ্ছে, নতুন তথ্য আসছে, এর ওপর ভিত্তি করে আমরা আমাদের পরামর্শও বদল ফেলব।’ এত দিন মাস্ক ব্যবহারের পরামর্শ না দিলেও এবার সংস্থাটির কাছ থেকে এমন পরামর্শ আসতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

করোনার অন্যতম কেন্দ্রস্থল ইতালিতে এক সপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যুর রেকর্ড হয়েছে বুধবার। এদিন সেখানে মারা গেছে ৭২৭ জন। এর পরও ঝুঁকি নিতে চাইছে না দেশটির সরকার। সেখানে অবরুদ্ধ দশা আগামী ১৩ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। আগের ঘোষণা অনুযায়ী আজ শুক্রবার পর্যন্ত ওই নিষেধাজ্ঞা ছিল। বুধবার ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুজুপ্পে কোন্তে বলেছেন, ‘আমরা যদি এখন অবরুদ্ধ দশা শিথিল করি, তাতে আমাদের সব ধরনের প্রচেষ্টা নিষ্ফল হবে। যখন আমাদের বিশেষজ্ঞরা পরিস্থিতি ভালো বলবেন, তখনই নিষেধাজ্ঞা শিথিল করা হবে।’ গতকাল ইতালিতে আরো ৭৬০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাতে করে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৯১৫।

ইউরোপের আরেক দেশ ফ্রান্সে মৃত্যুতে উল্লম্ফন ঘটেছে। বুধবার ২৪ ঘণ্টায় সেখানে মারা গেছেন ৫০৯ জন। এক দিনের মৃত্যুর হিসাবে এটিই সর্বোচ্চ। এর আগে মঙ্গলবার দেশটিতে মারা যায় ৪৯৯ জন। সব মিলিয়ে সেখানে চার হাজার ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। আর আক্রান্তের সংখ্যা ৫৬ হাজার ছাড়িয়েছে। সংক্রমণের হিসাবে চীনকে টপকিয়ে চতুর্থ অবস্থানে এসেছে জার্মানি। গতকাল বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় জার্মানিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ায় ৮১ হাজার ৭২৮, যেখানে চীনে সংক্রমিতের সংখ্যা ৮১ হাজার ৫৮৯। অবশ্য আক্রান্ত শীর্ষ আট দেশের মধ্যে জার্মানিতে মৃতের সংখ্যা সবচেয়ে কম, ৯৯৭। আক্রান্তের বিচারে শীর্ষ দেশ যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশ সময় গতকাল সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় পাঁচ হাজার ১১৬। শুধু বুধবারই দেশটিতে মারা যায় ৮৮৪ জন। এটি এক দিনে যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। এ পর্যন্ত ইতালি ও স্পেনের চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কম মানুষের মৃত্যু হলেও তা চীনের চেয়ে বেশি।

বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, আক্রান্তের বিচারে শীর্ষ দেশ যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজার ছাড়িয়ে গেছে। জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশ সময় গতকাল সকাল ৮টা ৩৫ মিনিটে যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় পাঁচ হাজার ১১৬। শুধু বুধবারই দেশটিতে মারা যায় ৮৮৪ জন। এটি এক দিনে যুক্তরাষ্ট্রে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড। বুধবারের মৃতদের মধ্যে কানেকটিকাটের ৬ সপ্তাহের একটি শিশুও আছে। ধারণা করা হচ্ছে, এটিই দেশটিতে কভিড-১৯ আক্রান্ত সবচেয়ে কম বয়সী কারো মৃত্যু। এ পর্যন্ত ইতালি ও স্পেনের চেয়ে যুক্তরাষ্ট্রে কম মানুষের মৃত্যু হলেও তা চীনের চেয়ে বেশি। গত রবিবার যুক্তরাষ্ট্রের জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানী অ্যান্থোনি ফৌসি পূর্বাভাস দেন, করোনাভাইরাস মহামারিতে যুক্তরাষ্ট্রে এক থেকে দুই লাখ মানুষ প্রাণ হারাতে পারে।

অন্যদিকে এক দিনে রেকর্ডসংখ্যক মানুষের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে স্পেনে প্রাণহানির সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, বুধবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এক দিনে ৯৫০ জনের মৃত্যুর পর দেশটিতে প্রাণহানির সংখ্যা ১০ হাজার তিন জনে দাঁড়িয়েছে। এর আগে বুধবার দেশটিতে মৃতের সংখ্যা ছিল ৯ হাজার ৫৩ জন। গতকাল স্পেনে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক লাখ ১০ হাজার ২৩৮, যেখানে আগের দিন আক্রান্তের সংখ্যা ছিল এক লাখ দুই হাজার ১৩৬।

ইসরায়েলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী আক্রান্ত : ইসরায়েলের স্বাস্থ্যমন্ত্রী ইয়াকোভ লিত্জম্যান ও তাঁর স্ত্রীর শরীরে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব মিলেছে। দেশটির সবচেয়ে প্রবীণ এই মন্ত্রী বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন। গতকাল ইসরায়েলের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে ইসরায়েলি দৈনিক হারেত্জ এ খবর দিয়েছে। খবরে বলা হয়, বুধবার রাতে আক্রান্ত ৭১ বছর বয়সী স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও তাঁর স্ত্রীর শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়ে। এর পর থেকে তাঁরা আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিতে শুরু করেছেন। মন্ত্রীর দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর তাঁর উপদেষ্টা এবং স্বাস্থ্য দপ্তরের মহাপরিচালকসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু, দেশটির গুপ্তচর সংস্থা মোসাদের প্রধান ইয়োসি কোহেন ও জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থার প্রধান মেইর বেন শাব্বাত কোয়ারেন্টিনে গেছেন। সম্প্রতি তাঁদের সঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাক্ষাৎ হয়েছিল।

হারেত্জ জানিয়েছে, ইসরায়েলে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত ৩১ জনের মৃত্যু হয়েছে। আক্রান্ত হয়েছে ছয় হাজার ২১১ জন, যাদের মধ্যে ১০৭ জনের অবস্থা গুরুতর।

মক্কা-মদিনায় কারফিউ : সৌদি আরবের পবিত্র নগরী মক্কা ও মদিনায় গতকাল কারফিউ জারি করা হয়েছে। তবে প্রাপ্তবয়স্ক বাসিন্দারা জরুরি চিকিৎসাসেবা ও খাবার সংগ্রহের জন্য সকাল ৬টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত যাতায়াত করতে পারবেন। কারফিউ জারি করে দেওয়া রাজ ডিক্রিতে বলা হয়েছে, বৃহস্পতিবার থেকে এই কারফিউ জারি করা হলো। পরবর্তী নোটিশ না দেওয়া পর্যন্ত তা বহাল থাকবে। তবে সরকারি ও বেসরকারি যেসব প্রতিষ্ঠান জরুরি সেবায় নিয়োজিত সেগুলো এর আওতামুক্ত থাকবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা