kalerkantho

সোমবার । ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ১  জুন ২০২০। ৮ শাওয়াল ১৪৪১

‘করোনা যুদ্ধ’ জিতে ফিরেছেন তাঁরা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৩১ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘করোনা যুদ্ধ’ জিতে ফিরেছেন তাঁরা

যুক্তরাজ্যের প্রিন্স চার্লস থেকে শুরু করে ফুটবল তারকা পাওলো দিবালা—প্রায় প্রতিটি অঙ্গনের অনেক তারকা ব্যক্তিই করোনাভাইরাস ডিজিজ-২০১৯ (কভিড-১৯)-এ আক্রান্ত হয়েছেন। তবে আশার কথা হলো, তাঁদের মধ্যে অনেকেই সুস্থ হয়ে ফিরেছেন স্বাভাবিক জীবনে। কেউ কেউ সুস্থ হওয়ার পথে। এ ছাড়া বেশির ভাগ উপসর্গই ছিল মৃদু। ‘করোনা যুদ্ধ’ জয় করে ফিরেছেন, এমন তারকা ব্যক্তিদের নিয়েই এই প্রতিবেদন—

সপ্তাহখানেক আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হন যুক্তরাজ্যের প্রিন্স চার্লস। তবে রাজপরিবারের একটি সূত্র জানিয়েছে, ভাইরাসটি ৭১ বছর বয়সী প্রিন্সের দৈনন্দিন জীবনে তেমন কোনো প্রভাব ফেলতে পারেনি। আইসোলেশনে থাকলেও তিনি যাবতীয় কাজকর্ম করে যাচ্ছেন। গত ১৩ মার্চ কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর স্ত্রী সোফি ট্রুডোর শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি শনাক্ত হয়। তবে এরই মধ্যে পুরোপুরি সেরে উঠেছেন তিনি। গত শনিবার ফেসবুকে এক ভিডিও বার্তায় ৪৪ বছর বয়সী সোফি ট্রুডো বলেন, ‘স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ আমাকে পুরোপুরি সুস্থ ঘোষণা করেছে।’ অবশ্য স্ত্রী সুস্থ হলেও আরো দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টিনে থাকার ঘোষণা দিয়েছেন ট্রুডো। ব্রেক্সিট ইস্যুতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রধান মধ্যস্থতাকারী হিসেবে আছেন মাইকেল বার্নিয়ার। তিনি কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন। তবে সর্বশেষ টুইটে ৬৯ বছর বয়সী বার্নিয়ার লিখেছেন, তিনি ক্রমেই সুস্থ হয়ে উঠছেন।

গত ১০ মার্চ হলিউড তারকা টম হ্যাংকসের (৬৩) মধ্যে করোনাভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হন তাঁর স্ত্রী এবং হলিউড তারকা রিটা উইলসনও (৬৩)। তবে দুজনই এখন পুরোপুরি সেরে উঠেছেন। করোনামুক্ত হয়ে গত রবিবার অস্ট্রেলিয়া থেকে যুক্তরাষ্ট্রে ফেরেন এই দম্পতি। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নিজেদের বাড়িতে অবস্থান করছেন তাঁরা। ‘হোবস অ্যান্ড শ’ সিনেমার তারকা ও ব্রিটিশ অভিনেতা ইদ্রিস ইলবার শরীরে গত ১৬ মার্চ করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। গত শুক্রবার এক টুইটার বার্তায় ৪৭ বছর বয়সী ইলবা জানান, তিনি ও তাঁর স্ত্রী ভালো আছেন। তাঁদের শরীরে করোনাভাইরাসের কোনো উপসর্গ নেই। গত ১৫ মার্চ কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হওয়ার কথা জানান ‘কোয়ান্টাম অব সলিস’ সিনেমার নায়িকা এবং ফরাসি অভিনেত্রী ওলগা কুরিলেংকো। এরই মধ্যে পুরোপুরি সেরে উঠেছেন তিনি। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ৪০ বছর বয়সী এই তারকা লিখেছেন, ‘আমাকে বিশেষ কোনো ওষুধও খেতে হয়নি। কিছু ভিটামিন খেয়েছি। সঙ্গে প্যারাসিটামল, যাতে জ্বর নিয়ন্ত্রণে থাকে।’ ‘গেম অব থ্রোনস’ তারকা ক্রিস্টোফার হিবজু গত ১৭ মার্চ করোনায় আক্রান্ত হন। সম্প্রতি এক টুইট বার্তায় নরওয়ের ৪১ বছর বয়সী এই অভিনেতা লিখেছেন, ‘আমি ও আমার পরিবারের সদস্যরা ভালো আছি। সামান্য সর্দি-কাশি ছাড়া আমার শরীরে আর কোনো উপসর্গ নেই।’ কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছিলেন আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের আক্রমণভাগের খেলোয়াড় পাওলো দিবালা। তবে এরই মধ্যে পুরোপুরি সেরে উঠেছেন তিনি। গত ২২ মার্চ তাঁর শরীরে ভাইরাসটি ধরা পড়ে। সম্প্রতি এক টুইট বার্তায় ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাসের এই তারকা লিখেছেন, ‘শুরুতে আমার স্বাস্থ্য জটিলতা ছিল। তবে এখন অনেক ভালো আছি।’ এরই মধ্যে ক্লাবের অনুশীলনেও ফিরেছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর এই সতীর্থ।

কভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছেন স্প্যানিশ ক্লাব ভ্যালেন্সিয়ার বেশ কয়েকজন ফুটবলার। তাঁদের মধ্যে আর্জেন্টাইন ডিফেন্ডার ইজিকুয়েল গ্যারেও আছেন। তবে এখন তিনি সুস্থ। ইতালির সাবেক ফুটবল তারকা পাওলো মালদিনিও করোনায় আক্রান্ত। তিনিও অনেকটাই সেরে উঠেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা