kalerkantho

বুধবার । ২০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩ জুন ২০২০। ১০ শাওয়াল ১৪৪১

করোনাভাইরাস

আক্রান্ত বরিস ও তাঁর স্বাস্থ্যমন্ত্রী

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৮ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আক্রান্ত বরিস ও তাঁর স্বাস্থ্যমন্ত্রী

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে স্বেচ্ছায় আইসোলেশনে রয়েছেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। গতকাল শুক্রবার তাঁর দেহে ভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়ার পর তিনি আইসোলেশনে যান। আক্রান্ত হয়েছেন তাঁর স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাট হ্যানককও। খোদ প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় উদ্বেগ ছড়িয়েছে রাজনৈতিক মহলে।

এর আগে গত ১১ মার্চ তাঁর মানসিক স্বাস্থ্যবিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি নাডিন ডোরিসের দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের তথ্য মেলে। ১৫ দিন পর প্রধানমন্ত্রী জনসনেরও একই গতি হয়। তবে তাঁর সংক্রমণ মৃদু বলে জানিয়েছেন তিনি নিজেই। আপাতত বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সব দাপ্তরিক কাজকর্ম করবেন বলে জানিয়েছেন জনসন।

গতকাল টুইটারে ভিডিও বার্তায় জনসন জানান, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় জ্বর ও ক্রমাগত কাশির উপসর্গ দেখা দিয়েছিল। সেই কারণেই চিফ মেডিক্যাল অফিসারের পরামর্শমতো করোনাভাইরাসের পরীক্ষা করিয়েছিলাম। আজ সেই পরীক্ষার রিপোর্ট কভিড-১৯ পজিটিভ এসেছে।

জনসনের টুইটের ঘণ্টা দুয়েক পরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী হ্যানকক টুইট করে জানান, তিনিও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন এবং এখন আইসোলেশনে আছেন।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী আরো জানান, আপাতত বাড়ি থেকেই কাজ করবেন। তিনি বলেছেন, ‘যে বিশেষজ্ঞ দল করোনাভাইরাসের মোকাবেলায় কাজ করছে, তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি।’ করোনাভাইরাসকে রুখে দিতে গোটা দেশে ব্যস্ত সময় পার করতে থাকা চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীসহ সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে জনসন বলেছেন, ‘সবাই মিলে একসঙ্গে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করব।’

সারা বিশ্বের মতো ব্রিটেনেও ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। গতকাল পর্যন্ত সেখানে মোট আক্রান্ত হয়েছে ১১ হাজার ৬৫৮ জন। মৃত্যু হয়েছে ৫৭৮ জনের। চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছে ১৩৫ জন। মহামারি মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নানা কর্মকাণ্ড চলছে। চলতি সপ্তাহের প্রথম দিকে ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের বড় ছেলে প্রিন্স চার্লস করোনায় আক্রান্ত বলে খবর প্রকাশিত হয়। এরপর দেশের প্রধানমন্ত্রীর সংক্রমণ নিশ্চিত হওয়ায় উদ্বেগ ছড়াল ব্রিটেনের রাজনৈতিক মহলে। গত কয়েক দিনে জনসন যাদের সংস্পর্শে এসেছেন, তাদের চিহ্নিত করার কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছে ব্রিটিশ প্রশাসন। বরিসের পার্টনার ক্যারি সায়মন্ড এ মাসের প্রথম দিকে জানিয়েছিলেন, তিনি সন্তানসম্ভাবনা এবং সেলফ আইসোলশনে আছেন। তাঁর সর্বশেষ অবস্থা জানা যায়নি। সূত্র : এএফপি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা