kalerkantho

শুক্রবার। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৪ ডিসেম্বর ২০২০। ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

হোম কোয়ারেন্টিন

জেল-জরিমানায়ও ‘ইচ্ছামতো চলাফেরা’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ মার্চ, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



জেল-জরিমানায়ও ‘ইচ্ছামতো চলাফেরা’

করোনাভাইরাসে দেশে প্রথম মৃত্যুর খবরে দেশজুড়ে নতুন করে ভীতি ছড়িয়ে পড়েছে। ভীতি ছড়ালেও বিদেশফেরত অনেকেই ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনের ছকে বাঁধা থাকতে চাইছে না। প্রশাসনের কড়া নজরদারিতেও তাদের ইচ্ছেমতো চলাফেরা ঠেকানো যাচ্ছে না। ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে জেল-জরিমানা করেও কাজ হচ্ছে না। গতকাল বুধবারও হোম কোয়ারেন্টিনের ছক না মানায় অনেককেই জরিমানা গুনতে হয়েছে।

সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর) থেকে গতকাল পাওয়া সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী দেশে ছয় হাজার ৩৯৩ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।

এদিকে বিদেশ থেকে আগত বাংলাদেশিদের বন্দর থেকেই বাধ্যতামূলকভাবে সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন কোয়ারেন্টিনে রাখার নির্দেশনা চেয়ে গতকাল রিট করা হয়েছে। বিভিন্ন দেশ থেকে আসা প্রবাসীদের দেশে ফিরে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হলেও অনেকেই তা মানছে না। এ কারণেই গতকাল হাইকোর্টে এ রিট আবেদন করা হয়। এদিকে গতকাল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান জানিয়েছেন, যারা বিদেশ থেকে আসবে তাদের হোম কোয়ারেন্টিনের নির্দেশনা মানতে হবে। আক্রান্ত হয়ে কোয়ারেন্টিনের নির্দেশ অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেল-জরিমানা : করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের জারি করা বিধি-নিষেধ লঙ্ঘন করে প্রাইভেট পড়ানোর অপরাধে গতকাল বুধবার দুপুরে মানিকগঞ্জের সিংগাইরের দুটি কোচিং সেন্টারের চার শিক্ষককে সাত দিনের কারাদণ্ড ও এক নারী শিক্ষককে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। দণ্ডাদেশ পাওয়া শিক্ষকরা হলেন—আল-মামুন, হাফিজুর রহমান, মনিরুল ইসলাম, খায়রুল ইসলাম ও শিউলি আক্তার।

মাদারীপুরের কালকিনিতে হোম কোয়ারেন্টিনে না থাকায় স্পেন ও ইতালিফেরত দুই প্রবাসীকে একই সঙ্গে ২৫ হাজার টাকা আর্থিক জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এ আর্থিক জরিমানা করা হয়। নওগাঁর ধামইরহাটে বিদেশফেরত ১১ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা রয়েছে। হোম কোয়ারেন্টিনের শর্ত ভঙ্গ করায় ব্রুনেই প্রবাসী আলামিনকে ভ্রাম্যমাণ আদালত এক হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন। সুনামগঞ্জের ছাতকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশনা না মানায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে গিয়াস উদ্দিন নামের এক প্রবাসীকে জরিমানা করা হয়েছে। মানিকগঞ্জের শিবালয়ে হোম কোয়ারেন্টিনে না থাকায় ইরাক প্রবাসী খোরশেদ আলমকে পাঁচ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। চট্টগ্রামের রাউজানে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বাড়ির বাইরে যাওয়ায় এক প্রবাসীকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। শরীয়তপুরে হোম কোয়ারেন্টিনে না থেকে ঘোরাঘুরি করার দায়ে সাগর মণ্ডল নামের এক ইতালি প্রবাসীকে ২৫ হাজার টাকা ও রবিন সরদার নামে আরেক ইতালি প্রবাসীকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাইরে ঘোরাফেরা করার প্রমাণ পাওয়ায় জামালপুরের বগাবাঈদ এলাকায় গতকাল বুধবার সৌদিফেরত এক নারীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। কিশোরগঞ্জের ভৈরবে গত এক সপ্তাহে বিদেশফেরত ১২৭ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়। এর মধ্যে কোয়ারেন্টিনের নিয়ম না মানায় স্থানীয় প্রশাসন ছয়জনকে আটক করে। পরে তাদের আইসোলেশন সেন্টারে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। করোনাভাইরাস সন্দেহে বরগুনায় ভারত থেকে ফিরে আসা এক ব্যক্তিকে বরগুনা জেলা সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টিন লঙ্ঘনের অপরাধে মৌলভীবাজারে তিনজনকে অর্থদণ্ড দিয়েছে জেলা প্রশাসন। সাতক্ষীরায় প্রকাশ্যে চলাফেরা করায় মো. কামরুজ্জামান নামের এক যুবককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। টাঙ্গাইলের সখীপুরে সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়াফেরত দুই যুবককে হোম কোয়ারেন্টিন মেনে না চলায় জরিমানা করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় বিদেশফেরত দুই ব্যক্তিকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

এদিকে চাঁদপুরে করোনাভাইরাস ঠেকাতে তিন নদীর মোহনা ও পাশের চরে ভ্রমণকারীর যাতায়াত বন্ধ করে দিয়েছে জেলা প্রশাসন। এ ছাড়া করোনা সচেতনতায় ব্যাপক প্রচারণার উদ্যোগ নিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। গতকাল দুপুরে চাঁদপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় বিভিন্ন যানবাহন ও দোকানগুলোতে এই বিষয়ে প্রচারপত্র বিলি করা হয়। এদিকে চট্টগ্রামের রাউজানে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের জন্য প্রস্তুতি হিসেবে সুলতানপুর হাসপাতালে ৩০ শয্যা ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঁচ শয্যার কোয়ারেন্টিন বেড প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

লালমনিরহাটের পাটগ্রামের বুড়িমারী স্থলবন্দরের আন্তর্জাতিক অভিবাসন চৌকি (আইসিপি) দিয়ে ভারতে যাওয়ার সময় ভারতের চ্যাংরাবান্ধা ইমিগ্রেশন গৌতম দেব (২১) নামের এক নেপালি পাসপোর্ট যাত্রীকে বাংলাদেশে ফেরত দিয়েছে।

হোম কোয়ারেন্টিন : করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) করোনা ইউনিটে গত মঙ্গলবার রাতে একজনকে ভর্তি করা হয়েছে। একই দিন দুপুরে ওই রোগী হাসপাতালের জরুরি বিভাগে এলে তাকে প্রথমে মেডিসিন ওয়ার্ডে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এদিকে বরিশাল বিভাগে ১৯৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে ১০৪ জন নতুন। করোনাভাইরাস সতর্কতায় চট্টগ্রামে ৯১ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। এর মধ্যে গত মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে গতকাল বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সর্বশেষ ৬০ জনকে কোয়ারেন্টিনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বী এসব তথ্য জানান। সিলেট বিভাগের চার জেলায় ৬৩৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। তাদের বেশির ভাগই প্রবাসী ও তাদের স্বজন। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় ২০২ জনকে নতুন করে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। রাজশাহী বিভাগের হোম কোয়ারেন্টিনে রয়েছে ১২০ জন। এর মধ্যে রাজশাহীতে রয়েছে ছয়জন। মানিকগঞ্জে গত ২৪ ঘণ্টায় হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে ৫১ জনকে। এ নিয়ে জেলায় মোট হোম কোয়ারেন্টিনে প্রবাসীদের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৪৪০।

এ ছাড়া নীলফামারীতে ৩৫ জন, নড়াইলে ৩৯ জন, সাতক্ষীরায় ২৪ জন, মেহেরপুরে ৯ জন, মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ১৯ জন, বগুড়ার আদমদীঘিতে ২১, ধুনটে চার ও নন্দীগ্রামে ১০ জন, চাঁদপুরে ১৬৭ জন, পিরোজপুরে ৩২ জন, টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে দুজন, বাগেরহাটের চিতলমারী ও কচুয়ায় ৫৬৪ জন, সুনামগঞ্জে ৪০ জন, নেত্রকোনায় ৫৯ জন, সিরাজগঞ্জে ১২ জন, ঝিনাইদহে ২৭৪ জন, নাটোরে ১৫ জন, শরীয়তপুরে ২৭৭ জন, মাদারীপুরে ৪৪ জন, বরগুনায় ২৭ জন, রাজবাড়ীতে ৬০ জন, গাইবান্ধায় ৫০ জন, রাঙামাটিতে ৯ জন, নারায়ণগঞ্জে ৩৮ জন, ময়মনসিংহে ১১৯ জন, বান্দরবানে পাঁচজন, পঞ্চগড়ে আটজন এবং গাজীপুরে ৫৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

[প্রতিবেদন তৈরিতে তথ্য দিয়ে সহায়তা করেছেন কালের কণ্ঠ’র নিজস্ব প্রতিবেদক, আঞ্চলিক অফিস ও প্রতিনিধিরা]

 

মন্তব্য