kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

হাইকোর্টের নির্দেশ

৭ মার্চকে জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস ঘোষণা করতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৭ মার্চকে জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস ঘোষণা করতে হবে

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ঐতিহাসিক ভাষণের দিনটিকে চিরস্মরণীয় করে রাখতে জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস হিসেবে ঘোষণা করে এক মাসের মধ্যে গেজেট প্রকাশের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে মুজিববর্ষের মধ্যেই দেশের সব জেলা-উপজেলা কমপ্লেক্সে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ওই আদেশ বাস্তবায়ন বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদসচিবকে অগ্রগতি এক মাসের মধ্যে আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া ২০০৯ সালের রায়ের পর শিশুপার্ক ও মন্দিরের কমপ্লেক্স কেন অপসারণ করা হয়নি তার ব্যাখ্যা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ গতকাল মঙ্গলবার ওই আদেশ দেন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক অ্যাডভোকেট ড. বশির আহমেদের করা এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ওই আদেশ দেন আদালত। রিট আবেদনের ওপর ড. বশির নিজেই শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার এ বি এম আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার।

আদালত অন্তর্বর্তীকালীন নির্দেশনার পাশাপাশি রুল জারি করেন। রুলে পাঠ্যপুস্তকে ৭ই মার্চের ইতিহাস অন্তর্ভুক্ত করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না এবং বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ভাষণস্থলে লিবার্টি টাওয়ার স্থাপন করার কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানতে চাওয়া হয়েছে।

১৯৭১ সালের ৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দেওয়া ভাষণকে ইউনেসকো বিশ্ব প্রামাণ্য ঐতিহ্য হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার পর ওই দিনটি জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস হিসেবে ঘোষণার নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদন করেছিলেন ড. বশির আহমেদ। আবেদনে হাইকোর্ট ২০১৭ সালের ২০ নভেম্বর রুল জারি করেন। রুলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের যে মঞ্চে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ ভাষণ দিয়েছিলেন, মুক্তিযোদ্ধারা বঙ্গবন্ধুর কাছে অস্ত্র সমর্পণ করেছিলেন এবং স্বাধীনতার পরপরই ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীকে সংবর্ধনা দেওয়া হয়েছিল, সেই মঞ্চ কেন পুনর্নির্মাণ, বঙ্গবন্ধুর আঙুল উচানো ভাস্কর্য স্থাপন ও ৭ই মার্চ জাদুঘর প্রতিষ্ঠার নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না এবং ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চকে জাতীয় ঐতিহাসিক দিবস হিসেবে কেন ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চাওয়া হয়।

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা