kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৭ চৈত্র ১৪২৬। ৩১ মার্চ ২০২০। ৫ শাবান ১৪৪১

সংবাদ সম্মেলনে কাদের

বিএনপি কোন পথে বুঝতে পারছি না

মন্ত্রিসভায় এ মুহূর্তে আর রদবদল নয়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিএনপি কোন পথে বুঝতে পারছি না

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে বিএনপি যে কোন পথে হাঁটছে তা আমার জানা নেই। আমি বুঝতে পারছি না। কারণ পথ মাঝে মাঝে বেঁঁকে যায়।’

গতকাল রবিবার মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী জানান, এ মুহূর্তে মন্ত্রিসভায় আর রদবদলের সম্ভাবনা নেই। তিনি বলেন, ‘মন্ত্রিসভায় সম্প্রতি একটা রদবদল হয়েছে। তাই খুব তাড়াতাড়ি মন্ত্রিসভায় বিন্যাস, পুনর্বিন্যাস, সম্প্রসারণ—এটা হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম। যেহেতু রদবদলটা এই মুহূর্তে হয়েছে পারফরম্যান্স বা গতির জন্য, সেখানে নতুন করে মেজর কোনো পরিবর্তন বা সম্প্রসারণ এই মুহূর্তে হবে না। এটা হয়তো আরো পরে হতে পারে।’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ফোনালাপ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘দুটি প্রধান রাজনৈতিক দলের সাধারণ সম্পাদক কোনো একটি বিষয়ে কথা বলতেই পারেন। এটা কোনো অপরাধ নয়। এটা গোপনীয় কোনো বিষয়ও নয়।’ তিনি বলেন, ‘তাঁদের কেউ বলছেন আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবেন, আবার কেউ বলেন মানবিক কারণে তাঁর মুক্তি দেওয়া হোক। তাঁরা কোন পথে মুক্তি চান তা আগে ঠিক করতে বলুন।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি আগেই বলেছি এটা রাজনৈতিক মামলা নয়, এটা দুর্নীতির মামলা। এ বিষয়ে তাঁরা প্রধান বিচারপতির সঙ্গে কথা বলতে পারেন। জামিন বা মুক্তির বিষয়টি আদালতের ব্যাপার। আর যদি প্যারোল চান, তাহলে সেটা হতে পারে। কিছু নিয়মে প্যারোলের বিষয়টি রয়েছে। এ ক্ষেত্রে তাঁরা যদি সে আবেদন করেন আর যদি তাঁদের আবেদন যুক্তিযুক্ত হয় তাহলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও সরকার বিষয়টি দেখবে।’ মন্ত্রিসভার দায়িত্ব পুনর্বিন্যাস প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘কাজে গতি ও সুবিধার জন্য এটা করা হয়েছে। হয়তো আমি যে স্থানে আছি প্রধানমন্ত্রী মনে করছেন আমাকে অন্য আরেকটা স্থানে দিলে পারফরম্যান্স আরো ভালো হবে। পুরো বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ার।’

গত বৃহস্পতিবার দপ্তর বদলের পালায় গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় থেকে শ ম রেজাউল করিমকে দেওয়া হয়েছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে। এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘এটা ডিমোশন-প্রমোশনের বিষয় নয়। মন্ত্রী মন্ত্রীই, মন্ত্রণালয় মন্ত্রণালয়ই।’ তিনি বলেন, ‘এখন সারা বিশ্বে বাংলাদেশের মাছের বাজার খুবই বর্ধমান। মাছ থেকে আয়ের ক্ষেত্রে আমাদের পজিশন অনেক হাই। সেদিক থেকে বিচার করলে আগের গৃহায়ণমন্ত্রী যে মন্ত্রণালয় পেয়েছেন, এই মন্ত্রণালয়কে খাটো করে দেখা যায় না। কাকে দিয়ে কোন জায়গায় পারফরম্যান্স বেশি হবে সেটা প্রধানমন্ত্রী ভালো জানেন। কাকে দিয়ে কাজটা ভালো হবে সেটা প্রধানমন্ত্রী পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখেন।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা