kalerkantho

সোমবার । ২৯ আষাঢ় ১৪২৭। ১৩ জুলাই ২০২০। ২১ জিলকদ ১৪৪১

উত্তরায় গণসংযোগে আতিক

মেয়র হলে জনতার মুখোমুখি হব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মেয়র হলে জনতার মুখোমুখি হব

পুনরায় মেয়র নির্বাচিত হতে পারলে সিটি করপোরেশনে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত করার দিকে বিশেষ গুরুত্ব দেবেন আতিকুল ইসলাম। জনপ্রত্যাশা পূরণে জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে জনগণের দূরত্ব কামাতে বিশেষ উদ্যোগী হবেন। নির্বাচিত হলে নিয়মিত প্রতিটি ওয়ার্ডে জনগণের মুখোমুখি হবেন। গতকাল সোমবার রাজধানীর উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরে গণসংযোগ করার সময় এ ঘোষণা দেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম। 

আতিক বলেন, ‘সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মানুষ যদি ভোট দিয়ে আমাকে বিজয়ী করে তাহলে মেয়র আসবে আপনাদের কথা শুনতে, অভিযোগ জানতে। প্রশ্ন করবেন আপনারা, সমাধান দেব আমরা। নির্বাচিত হলে মেয়র ও কাউন্সিলরদের প্রতি মাসে জনগণের মুখোমুখি করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘কাউন্সিলররা ও মেয়র জনগণের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করলে অনেক সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। অভিযোগ না জানলে কাজ করা যায় না। আমি অংশগ্রহণমূলক নগর ব্যবস্থাপনার দিকে সবাইকে উৎসাহিত করব। আপনাদের দায়িত্ব ভোট দিয়ে জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করা, জনপ্রতিনিধিরা নির্বাচিত হয়ে আপনাদের প্রত্যাশা পূরণ করবে।’

গণসংযোগের সময় মাদকমুক্ত এলাকা গড়ার ব্যাপারে ‘সব কিছু করারও’ কথা জানালেন আতিকুল ইসলাম। উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে, যুবসমাজকে সঠিক পথে রাখতে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য তিনি কাজ করবেন বলে জানান ভোটারদের।

আতিক বলেন, ‘আপনাদের সবাইকে নিয়ে সবার অংশগ্রহণের মাধ্যমে একটি সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে চাই। সেই আন্দোলন হবে মাদকের বিরুদ্ধে, কল্যাণের পক্ষে। মাদকমুক্ত শহর গড়ার লক্ষ্যে আমরা সবাই মিলে কাজ করব। তরুণদের ভবিষ্যতের জন্য আমাদের মাদকমুক্ত সমাজ গড়তেই হবে।’

গণসংযোগ শুরু করার সময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী এবং সমর্থকদের দিক-নির্দেশ দেন নৌকার এ মেয়র প্রার্থী। নির্বাচনী প্রচার বা ভোট চাইতে গিয়ে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটানো এবং জনদুর্ভোগ এড়ানোর ব্যাপারে সতর্ক থাকতে বলেন আতিকুল। একই সঙ্গে অন্যান্য প্রার্থীর কর্মী-সমর্থদের প্রচারে বিঘ্ন সৃষ্টি হয় এমন কিছু না করার ব্যাপারেও সতর্ক করে দেন উপস্থিত সবাইকে।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘নির্বাচন সামনে রেখে জনগণের কাছে আপনাদের যেতে হবে, উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে নৌকা মার্কার পক্ষে ভোট চাইতে হবে। আর খেয়াল রাখতে হবে, গণসংযোগের সময় জনগণের ভোগান্তি যেন না হয়। অন্যান্য প্রার্থীর ক্ষেত্রেও যেন কোনো অসুবিধা না হয়। জনদুর্ভোগ হলে কিন্তু ভোট বাড়বে না, ভোট কমবে।’

গতকাল ৭, ১১ নম্বর সেক্টর, বাউনিয়া, নলভোগ, কালিয়ারটেক এলাকায় গণসংযোগ করে নৌকায় ভোট প্রার্থনা করেছেন আতিকুল। অন্যান্য দিনের মতো এদিনও ভোটারদের কাছে গিয়ে কোলে নিয়েছেন শিশুদের। জড়িয়ে ধরে বয়স্কদের কাছে দোয়া ও ভোট চেয়েছেন। এ ছাড়া উত্তরা এলাকায় আতিকুল ইসলামের বাড়ি হওয়ায় এলাকাটির ভোটারদের তিনি নাম ধরে ডেকেছেন এবং খোঁজখবর নিয়েছেন। একই সঙ্গে নির্বাচনের আগমুহূর্ত পর্যন্ত নৌকার জন্য ভোট চাইতে এলাকাবাসীর প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।

১১ নম্বর সেক্টরে পথসভায় আতিক বলেন, ‘আমি উত্তরা এলাকায় থাকি। এ এলাকার মানুষদের আমি চিনি, তাঁরাও আমাকে চেনেন। মানুষের আগ্রহ রয়েছে আমার প্রতি এবং নৌকার প্রতি। আমার বিশ্বাস এই এলাকাবাসী আমাকে আশাহত করবেন না।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা