kalerkantho

বুধবার । ২২ জানুয়ারি ২০২০। ৮ মাঘ ১৪২৬। ২৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

ভারত যাচ্ছেন না পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভারত যাচ্ছেন না পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ফাইল ছবি

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের পর পূর্বনির্ধারিত ভারত সফর বাতিল করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালও। তিন দিনের সফরে গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় নয়াদিল্লি যাওয়ার কথা ছিল পররাষ্ট্রমন্ত্রীর। অন্যদিকে আজ শুক্রবার সকালে মেঘালয়ে যাওয়ার কথা ছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর।

এদিকে পূর্বনির্ধারিত ভারত সফর হঠাৎ বাতিল করায় প্রশ্নের মুখে পড়েছে নয়াদিল্লি। ভারতে নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সংশয় ও শঙ্কার মধ্যে এই সফর বাতিল করার পেছনে যোগসূত্র খুঁজেছে ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যম। নয়াদিল্লিতে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ সম্মেলনেও এ নিয়ে প্রশ্নের মুখোমুখি হন মুখপাত্র রবিশ কুমার। তিনি বলেন, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী, পররাষ্ট্রসচিব দেশের বাইরে আছেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে এ সময় দেশে থাকতে হবে।

ভারতীয় মুখপাত্র আরো বলেন, বাংলাদেশ ও ভারত দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীই বলেছেন যে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক অত্যন্ত জোরালো ও বিস্তৃত।  দুই দেশের সম্পর্কে ‘সোনালী অধ্যায়’ চলছে।

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন নিয়ে ভারতের অভিযোগ নাকচ করে গত বুধবার বক্তব্য দিয়েছিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন।

রবিশ কুমার বলেন, ‘আমরা এও স্বীকার করেছি যে বাংলাদেশের

বর্তমান সরকার সংখ্যালঘুদের উদ্বেগ দূর করতে তাদের সংবিধান ও আইন অনুযায়ী বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছে।’

জানা গেছে, ভারত মহাসাগরবিষয়ক সংলাপে যোগ দিতে গতকাল ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লি যাওয়ার কথা ছিল পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেনের। আগামীকাল শনিবার ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. সুব্রামানিয়াম জয়শঙ্করের সঙ্গে তাঁর আলাদা বৈঠকেরও সম্ভাবনা ছিল। তবে শেষ মুহূর্তে তাঁর সফরটি বাতিল করা হলো।

বাংলাদেশের পক্ষ থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফরসূচির কথা গণমাধ্যমকে জানানো না হলেও নয়াদিল্লি ওই সম্মেলনসংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তিতে ড. মোমেনের সফরের কথা উল্লেখ করেছিল। গত বুধবারই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশের পাঁচ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদলের ভারত মহাসাগরীয় সম্মেলনে যোগ দেওয়াসংক্রান্ত সরকারি আদেশও জারি করা হয়েছিল।

ভারতে নতুন নাগরিকত্ব আইনসংক্রান্ত বিল রাজ্যসভায় গৃহীত হওয়ার পরদিনই ড. মোমেনের ওই সফর বাতিলের খবর ভারতীয় গণমাধ্যমে বিশেষ গুরুত্ব পেয়েছে। ভারতের বাংলা পত্রিকা আনন্দবাজারে এ সফর বাতিল ভারতে নাগরিক আইন প্রণয়নের জের কি না সে বিষয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে।

তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনের বরাত দিয়ে ভারতের সংবাদমাধ্যম এএনআই বলেছে, শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস, বিজয় দিবসসহ আরো কিছু অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার লক্ষ্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ভারত সফর বাতিল করতে হয়েছে। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্রসচিব মো. শহীদুল হকও বর্তমানে বিদেশে আছেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলেছেন, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফর বাতিলের সঙ্গে ভারতের নাগরিকত্ব আইনের কোনো সম্পৃক্ততা নেই। প্রতিমন্ত্রী, সচিব—দুজন দেশের বাইরে আছেন। এদিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খানও ভারত সফর স্থগিত করেছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। ভারতের মেঘালয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমার আমন্ত্রণে আজ শুক্রবার সেখানে যাওয়ার কথা ছিল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফ মাহমুদ অপু গতকাল সন্ধ্যায় কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘সফরটি স্থগিত করা হয়েছে। পরে সুবিধাজনক সময়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেঘালয় সফর করবেন।’

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, বেশ কিছুদিন আগে মেঘালয়ের মুখ্যমন্ত্রী আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে। সে অনুযায়ী ১৩ ডিসেম্বর যাওয়ার বিষয়টি চূড়ান্ত করেছিলেন মন্ত্রী। কিন্তু ভারতে নাগরিকত্ব আইন সংশোধনের বিল পাস হওয়ার ঘটনায় উত্তর-পূর্ব ভারতে উত্তেজনা এবং মেঘালয়ের শিলংসহ বিভিন্ন স্থানে কারফিউ জারি করার প্রেক্ষাপটে গতকাল সফর স্থগিত করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা