kalerkantho

বুধবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৩ রবিউস সানি     

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলা

আপিল বিভাগে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আপিল বিভাগে খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের আবেদন খারিজ করে হাইকোর্টের দেওয়া আদেশের বিরুদ্ধে আপিল আবেদন করা হয়েছে। ওই আপিল আবেদনে খালেদা জিয়ার জামিন চাওয়া হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদনটি করা হয়েছে।

আগামী সপ্তাহে আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালতে ওই আবেদন উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘আশা করি এবার আর সরকারপক্ষ বিরোধিতা করবে না।’

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত বছরের ২৯ অক্টোবর খালেদা জিয়াকে সাত বছর কারাদণ্ড দিয়ে রায় ঘোষণা করেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত। এরপর ওই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন  খালেদা জিয়া। একই সঙ্গে জামিনের আবেদন করা হয়। হাইকোর্ট গত ৩০ এপ্রিল ওই আপিল শুনানির জন্য গ্রহণ করেন। সেই সঙ্গে জামিনের আবেদন নথিভুক্ত করা হয়। একই সঙ্গে দুই মাসের মধ্যে মামলাটির নথি হাইকোর্টে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়। ওই নির্দেশ অনুযায়ী নিম্ন আদালত থেকে গত ২০ জুন মামলার নথি হাইকোর্টে পাঠানো হয়। এরপর শুনানি হয় খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের ওপর। শুনানি শেষে গত ৩১ জুলাই তা সরাসরি খারিজ করে দেন হাইকোর্ট।

সুপ্রিম কোর্ট ও নিম্ন আদালত মিলে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এখন ১৭টি মামলা বিচারাধীন। এসবের মধ্যে দুটি মামলায় (জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা) তাঁর ১৭ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

খালেদা জিয়ার জামিনে মুক্তি এবং তাঁর সুচিকিৎসর জন্য প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চেয়েছেন বিএনপি থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য মো. হারুনুর রশীদ। গতকাল জাতীয় সংসদ অধিবেশনে পয়েন্ট অব অর্ডারে আলোচনার সুযোগ নিয়ে তিনি বলেন, ‘তিনি (খালেদা জিয়া) বাংলাদেশের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। দীর্ঘদিন বিরোধীদলীয় নেতার দায়িত্ব পালন করেছেন। দেশের আন্দোলন-সংগ্রামে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। আমি সংসদ নেতাকে বিনীতভাবে অনুরোধ করব, অন্তত ওনার চিকিৎসর জন্য জামিনে মুক্তি দিন।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা