kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

ওবায়দুল কাদের জানালেন

প্রধানমন্ত্রীর করা তালিকায় ১৫০০ অনুপ্রবেশকারী আওয়ামী লীগে

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি    

২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



প্রধানমন্ত্রীর করা তালিকায় ১৫০০ অনুপ্রবেশকারী আওয়ামী লীগে

আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারীদের যে তালিকা তৈরি করেছেন দলীয় সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তাতে এক হাজার ৫০০ জনের নাম রয়েছে বলে জানিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, এরা যেন আওয়ামী লীগের কোনো পদে আসতে না পারে, সেদিকে নজর রাখতে নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার দুপুরে ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের গাজীপুরের কালিয়াকৈরের সফিপুরে ফ্লাইওভারের নির্মাণকাজ দেখতে গিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দলে অনুপ্রবেশকারীদের একটি তালিকা তৈরি করেছেন। তিনি নিজেই এর মনিটরিং করছেন। এ তালিকায় দেড় হাজারের মতো নাম রয়েছে। আগামী সম্মেলনের মধ্য দিয়ে এসব অনুপ্রবেশকারী তথা বিতর্কিত ও অপকর্মকারী লোকজন যাতে আওয়ামী লীগের কোনো পর্যায়ের নেতৃত্বে আসতে না পারে, সে জন্য তালিকাটি বিভাগের

দায়িত্বপ্রাপ্তদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

অনুপ্রবেশকারীদের পরিচয় তুলে ধরে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, সাম্প্রদায়িক শক্তি থেকে যারা আসে, চিহ্নিত চাঁদাবাজ, চিহ্নিত মাদক কারবারি, চিহ্নিত ভূমিদস্যু, যাদের ইমেজ খারাপ, যাদের রাজনীতি জনগণের কাছে খারাপ—এরাই অনুপ্রবেশকারী।

তিনি বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক দল ছাড়া অন্যান্য রাজনৈতিক দলের ক্লিন ইমেজের লোকগুলোকে আমরা আওয়ামী লীগে স্বাগত জানাই। যারা ভদ্র, শিক্ষিত, দলে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে না, জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য, তারা আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী নয়, তাদের আমরা স্বাগত জানাই।’

সড়কের শৃঙ্খলা প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাই সরকারের বড় চ্যালেঞ্জ। এ জন্য সরকার আটঘাট বেঁধেই নেমেছে। সড়কে শৃঙ্খলাটাই বড় সংকট। সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সড়ক নিরাপত্তা আইন করা হয়েছে। দেশে এখন আর অবকাঠামোগত কোনো সমস্যা নেই, যথেষ্ট উন্নয়ন হয়েছে। শৃঙ্খলা না থাকলে উন্নয়নের কোনো দাম নেই।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী বলেন, ‘বহু প্রতীক্ষিত সড়ক পরিবহন আইন আজকে (গতকাল) কার্যকর হতে চলেছে। সকাল থেকে আমি সড়ক পরিবহন আইনের কার্যকারিতা মনিটর করছি। আমি এ পথে এসে খোঁজখবর নিয়েছি এবং নিচ্ছি—এর প্রতিক্রিয়ায় রাস্তার অবস্থাটা কী দাঁড়ায়।’

এ সময় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, সড়ক ও জনপথের ঢাকা বিভাগীয় তত্ত্বাবধায়ক সবুজ উদ্দিন খান, গাজীপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সাইফুদ্দিন, জেলা প্রশাসক এস এম তরিকুল ইসলাম, জেলা পুলিশ সুপার শামসুন্নাহার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা