kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৯ নভেম্বর ২০১৯। ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২১ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আবরারের পরিবারের সাক্ষাৎ

হত্যা মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৫ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হত্যা মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির নির্দেশ

নৃশংস খুনের শিকার বুয়েট শিক্ষার্থী আবরারের পরিবারের সদস্যরা গতকাল গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী তাঁদের সমবেদনা জানান। ছবি : ফোকাস বাংলা

বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যার বিচার দ্রুত শেষ করতে আইনমন্ত্রীকে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সোমবার বিকেলে আবরার ফাহাদের বাবা বরকতউল্লাহ, মা রোকেয়া খাতুন, ছোট ভাই আবরার ফাইয়াজ সাব্বিরসহ পরিবারের সদস্যরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে সাক্ষাৎ করতে গেলে তিনি এ নির্দেশ দেন।

পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেসসচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে এ তথ্য জানান। ইহসানুল করিম বলেন, ‘গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাতের সময় আবরারের মা রোকেয়া খাতুন কান্নায় ভেঙে পড়েন। এ সময় অশ্রুসিক্ত প্রধানমন্ত্রী তাঁকে বুকে জড়িয়ে ধরেন এবং তাঁর পাশের চেয়ারে বসে তাঁকে সান্ত্বনা দেন।’

রোকেয়া খাতুন প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, ‘আপনি মায়ের আসনে থেকে ঘটনার পর যে ভূমিকা নিয়েছেন সে জন্য আপনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই। আমি আপনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’ এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি ঘটনাটি শোনার সঙ্গে সঙ্গে তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছি। আমি দেখতে চাইনি কে কার লোক। আপরাধী কে বা কোন দল করে সেটা বিবেচনা করিনি।’

আবরারের মাকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ঘটনার পরপরই সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করতে পুলিশকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। শিক্ষার্থীরা ফুটেজ সংগ্রহে কেন বাধা দিয়েছিল সেটা বোধগম্য নয়। আপনাকে সান্ত্বনা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই। শুধু বলব, আমাকে দেখেন, স্বজন হারানোর বেদনা আমি বুঝি। আমিও এক রাতে সব হারিয়েছিলাম। আমি তখন বিচারও পাইনি।’

ইহসানুল করিম আরো জানান, আবরারকে হত্যাকারীরা অমানুষ হয়ে গেছে বলে ক্ষোভ জানান প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎকালে আবরারের মা রোকেয়া খাতুন ও বাবা বরকতউল্লাহ প্রশাসন, পুলিশ ও দেশবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।

এ সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ছাত্রলীগের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মীর নির্যাতনে গত ৬ অক্টোবর প্রাণ হারান বুয়েটের তড়িৎ কৌশল বিভাগের ছাত্র আবরার ফাহাদ।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা