kalerkantho

শুক্রবার। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৪ ডিসেম্বর ২০২০। ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

‘দেশবিরোধী চুক্তি’

বিএনপির দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিএনপির দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা

‘প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরে স্বাক্ষরিত দেশবিরোধী চুক্তি বাতিল এবং চুক্তির বিরোধিতা করায় বুয়েটের ছাত্র আবরারকে হত্যার’ প্রতিবাদে দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আগামীকাল শনিবার ঢাকাসহ সারা দেশে মহানগর সদরে এবং রবিবার জেলা সদরে জনসমাবেশ।

গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির স্থায়ী কমিটির পক্ষ থেকে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ড. মোশাররফ বলেন, ‘দেশের স্বার্থবিরোধী চুক্তি বাতিল এবং এই চুক্তির বিরোধিতার কারণে শহীদ আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে আমরা আগামী শনিবার (আগামীকাল) ঢাকাসহ দেশের সব মহানগর সদরে এবং আগামী রবিবার সব জেলা সদরে জনসমাবেশ অনুষ্ঠানের কর্মসূচি ঘোষণা করছি। দেশ ও দেশের মানুষকে বাঁচাতে দল-মত-নির্বিশেষে খালেদা জিয়াকে মুক্ত এবং অবৈধ সরকারের পতনের মাধ্যমে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য আগামী দিনে গণতান্ত্রিক আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধভাবে অংশগ্রহণের জন্য দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘ভারত সফরে স্বাক্ষরিত সব চুক্তি ও সমঝোতার বিষয়ে বিস্তারিত আমরা জানতে চাই এবং দেশের স্বার্থ হানিকর সব চুক্তি বাতিল চাই।’

তিনি বলেন, ফেনী নদী আগে বাংলাদেশেরই নদী ছিল—যৌথ নদী ছিল না। বর্তমান সরকার আরো ছয়টি যৌথ নদীর সঙ্গে ফেনী নদীর নাম সংযুক্ত করে একসঙ্গে এসব নদীর পানিবণ্টন নিয়ে আলোচনায় রাজি হয়। আমাদের পররাষ্ট্রসচিব বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এই পানি না দিলে সাব্রুম শহর কারবালা হয়ে যেত বলে মন্তব্য করেছেন। কারবালা কারোরই কাম্য নয়। ফারাক্কা, তিস্তার পানির ন্যায্য হিস্যা না পাওয়ায় দেশ মরুকরণ ও লাখো মানুষের আর্তনাদ তাঁর কানে পৌঁছে না। ফেনী নদীতে শুকনা মৌসুমে পানির অভাবে চাষাবাদের ক্ষতি, মুহুরী প্রকল্প অকার্যকর হওয়ার নিশ্চিত আশঙ্কা দেখেও তিনি ও তাঁর সরকার সাব্রুমকে কারবালা হতে না দিতে যতটা উদ্যোগী নিজের দেশের জনগণের আহাজারি, আর্তনাদ ও সর্বনাশ তাদের কাছে ততটাই মূল্যহীন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ এলপিজি আমদানিকারক দেশ হয়ে প্রতিবেশীর প্রয়োজনে তা রপ্তানি ব্যক্তি ও গোষ্ঠী বিশেষকে লাভবান করার জন্য, দেশকে নয়। দেড় হাজার কিলোমিটার পথের স্থলে এখন মাত্র ২০০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে এলপিজি গ্যাস ভারতে পৌঁছবে। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) বলেছিলেন, দেশের স্বার্থে বিদেশিদের গ্যাস দিতে রাজি হননি বলে ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসতে পারেননি। এবার আমদানি করা ডিউটি ফ্রি এলপিজি দেওয়ার উদ্দেশ্য তাহলে কী?

আসামের নাগরিক পঞ্জির কারণে কয়েক লাখ আসামবাসীকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেওয়ার ব্যাপারে দুই প্রধানমন্ত্রীর যৌথ বিবৃতিতে ইতিবাচক কোনো স্পষ্ট প্রতিশ্রুতির উল্লেখ নেই বলে দাবি করেন ড. মোশাররফ।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সরকারের কূটনৈতিক ব্যর্থতার কারণেই রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।

সংবাদ সম্মেলনে স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা