kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বিশেষজ্ঞ মত

দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে এ অপরাধ কমবে

নাসিরুদ্দিন আহমেদ

৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে




দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে এ অপরাধ কমবে

এ দেশের ধনী ব্যক্তিরা বিলাসবহুল গাড়ি কিনে থাকে। এসব ব্যক্তির বেশির ভাগেরই অভিজাত এলাকায় বাড়ি বা ফ্ল্যাট আছে। বড় ব্যবসা আছে বা বড় বড় পদে চাকরি করে। বিলাসবহুল গাড়ি ও বাড়ির মালিকরা রাজস্ব পরিশোধে সক্ষম। বিভিন্ন কৌশলে এসব ব্যক্তি রাজস্ব ফাঁকি দিলে তা মেনে নেওয়া উচিত নয়। এসব ব্যক্তির মধ্যে অনেকে নিজের সুবিধা আদায় করতে যার কাছে কাজ থাকে, তাকে বা তাদের অনৈতিক সুবিধা দিয়ে উদ্দেশ্য পূরণ করে। অর্থলোভী ব্যক্তিরা দেশের কথা চিন্তা না করে নিজেদের ভোগবিলাসের জন্য এসব অসৎ ব্যক্তিকে সহযোগিতা করে। যারা অন্যায় করে এবং যারা অন্যায় করতে সহযোগিতা করে উভয়ই সমান অপরাধী। এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া উচিত।

বিলাসবহুল গাড়ির মালিকদের মধ্যে অনেকেই সম্পদশালী হওয়ার কারণে তারা সমাজের প্রভাবশালী। এদের দুর্নীতির তথ্য অনেক সময় প্রকাশ হয়েও হয় না।

সরকারের সব প্রতিষ্ঠান যদি অনলাইনে নিজেদের মধ্যে তথ্যের আদান-প্রদান করতে সক্ষম হতো, তবে এ ধরনের দুর্নীতি কমে যেত। ইটিআইএন না দিয়ে বা ভুয়া ইটিআইএন দিয়ে বিলাসবহুল গাড়ি নিবন্ধন করলে সঙ্গে সঙ্গে অনলাইনে যাচাই করার সুযোগ আছে। আমি মনে করি, প্রতি ক্ষেত্রেই সৎ-অসৎ আছে। তাই যাঁরা বিলাসবহুল গাড়ি নিবন্ধন দিচ্ছেন এবং যাঁরা এ নিবন্ধন ঠিক আছে কি না যাচাই করছেন, সবারই অনলাইনে কাজ করার পরিবেশ তৈরি করতে হবে।

বিলাসবহুল গাড়ি নিয়ে জালিয়াতি বন্ধ করা সম্ভব হলে সরকার বড় অঙ্কের রাজস্ব আদায়ে সক্ষম হতো। এ জালিয়াতির সঙ্গে অনেক বড় চক্র জড়িত থাকার কথা শোনা যায়। সরকারের কঠোর নজরদারিতে এ চক্র চিহ্নিত করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হলে ভবিষ্যতে এ অপরাধ করার প্রবণতা কমে যাবে।

লেখক : সাবেক চেয়ারম্যান, এনবিআর

 

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা