kalerkantho

ঢাকা ছেড়ে রংপুরে সাকিব

ক্রীড়া প্রতিবেদক   

১ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



ঢাকা ছেড়ে রংপুরে সাকিব

রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। গতকাল বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার্স-২-এর সম্মেলনকক্ষে তাঁর সঙ্গে বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান। ছবি : কালের কণ্ঠ

কিছুদিন আগেই রংপুর রাইডার্সের এক কর্মকর্তা জানিয়েছিলেন, আগস্টের শুরুর দিকে একটি বড় চমকের ঘোষণার কথা। তবে যাঁকে ঘিরে চমকের আয়োজন, তাঁর ব্যস্ত সূচি মেলাতেই বোধ হয় ক্যালেন্ডারের অষ্টম মাস শুরুর আগের দিনেই এলো বড় সেই ঘোষণা। ঢাকা ডায়নামাইটস ছেড়ে রংপুর রাইডার্সে যোগ দিলেন সাকিব আল হাসান। আপাতত চুক্তির মেয়াদ এক বছর। ৬ ডিসেম্বর মাঠে গড়াবে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) সপ্তম আসর। গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন সাকিব। বসুন্ধরা ইন্ডাস্ট্রিয়াল হেডকোয়ার্টার্স-২-এর সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয় চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন রংপুর রাইডার্সের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান সাফওয়ান সোবহান ও রংপুর রাইডার্সের চেয়ারম্যান মোস্তফা আজাদ মহীউদ্দীন।

মাকে নিয়ে পবিত্র হজ পালনের উদ্দেশ্যে দিন কয়েকের ভেতরই ঢাকা ছাড়বেন সাকিব আল হাসান। বিশ্বকাপের পর শ্রীলঙ্কা সিরিজে বিশ্রামে থাকলেও ব্যস্ততা কম নেই সাকিবের। চট্টগ্রামে নাগরিক সংবর্ধনা নিয়ে আসার পরদিন ঢাকায় রংপুর রাইডার্সের সঙ্গে চুক্তি সই। আজ ডেঙ্গু সচেতনতা বৃদ্ধির একটি কর্মসূচিতেও যাওয়ার কথা রয়েছে। সব কিছুর ভিড়ে ক্রিকেট নিয়ে ভাববার সময় বোধ হয় কমই পেয়েছেন, তবু রংপুর রাইডার্সকে নিয়ে ভবিষ্যতের একটা ছবি এঁকে ফেলেছেন সাকিব। আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না এলেও সাকিবই হতে যাচ্ছেন রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক, এটা প্রায় নিশ্চিত। সাকিবও সেভাবেই ভেবেছেন, ‘টম মুডি আছে। আমরা সানরাইজার্স  হায়দরাবাদে একসঙ্গে কাজ করেছি। বেশির ভাগ দায়িত্ব সে-ই পালন করবে। আমার দায়িত্ব থাকবে বাকিদের কাছ থেকে কিভাবে সেরাটা বের করে আনা যায় সেটা চেষ্টা করা। অধিনায়ক হিসেবে আগেও দায়িত্ব পালন করেছি। সবার সঙ্গে পরিচয় আছে। তাই খুব একটা সমস্যা হবে বলে মনে হয় না।’

গেল মৌসুমে ক্রিস গেইল, এবি ডি ভিলিয়ার্স, অ্যালেক্স হেলসের মতো বড় তারকা খেলেছেন রংপুর রাইডার্সে। বিপিএলে এসেছিলেন ডেভিড ওয়ার্নার, স্টিভেন স্মিথ, জেসন রয়, জস বাটলারের মতো তারকাও। এবারও এউইন মরগান, শেন ওয়াটসনের মতো তারকা ক্রিকেটারের আসার খবর পাওয়া গেছে। সাকিব মনে করেন, বিপিএলের ভাবমূর্তি ভালো হচ্ছে এবং দেশের বাইরে বিপিএলের গ্রহণযোগ্যতা বাড়ছে বলেই তারকা ক্রিকেটাররা আসতে শুরু করেছেন, ‘আমি তো চাই আগ্রহটা আরো বাড়ুক। কারণ এটা দিন শেষে আমাদের দেশের ক্রিকেটে ভূমিকা রাখবে। এখন সবাই বিপিএলের জন্য আগ্রহ প্রকাশ করছে, যেটা কয়েক বছর আগেও ছিল না। বিসিবির প্রতি কৃতজ্ঞ যে তারা বড় বড় ক্রিকেটারদের বিপিএলে নিয়ে আসছে।’

সাকিবের রংপুর রাইডার্সে সই করার সঙ্গে সঙ্গেই নিশ্চিত হয়ে গেছে, ফ্র্যাঞ্চাইজিটির গত দুই আসরের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা আর থাকছেন না। ফ্র্যাঞ্চাইজির এক কর্মকর্তাই বলছিলেন; আইকন প্লেয়ার একজনের বেশি থাকার নিয়ম নেই, তাই মাশরাফিকে আসছে মৌসুমে দেখা যাবে না রংপুর রাইডার্সে। প্রশ্নটা করা হয়েছিল সাকিবকেও। তিনি অবশ্য এড়িয়েই গেছেন, ‘সিদ্ধান্তটা আসলে আমার না।’ সাকিব আর মাশরাফি অবশ্য একসঙ্গে খেলেছিলেন বিপিএলে। ২০১৩ সালের বিপিএলে ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটরসের হয়ে একসঙ্গেই খেলেছিলেন সাকিব ও মাশরাফি, সেবার চ্যাম্পিয়নও হয়েছিল বাতিল হয়ে যাওয়া ফ্র্যাঞ্চাইজিটি। সাকিব হয়েছিলেন আসর সেরা। তবে এবার তাঁদের জোট বাঁধার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। অন্য কোনো ভূমিকায় মাশরাফিকে দেখা যাবে কি না—এমন প্রশ্নে সাকিবের উত্তর, ‘সেটা আমি জানি না, এটা দলের সিদ্ধান্ত।’ তাই বলা যায়, রংপুরকে এখন পর্যন্ত একমাত্র শিরোপা জেতানো মাশরাফি আর থাকছেন না। সাকিবেরও এটা দ্বিতীয়বারের মতো রংপুর রাইডার্সের হয়ে খেলা। ২০১৫ মৌসুমে রংপুর রাইডার্সের হয়ে খেলেছিলেন সাকিব, তবে তখন দলের ম্যানেজমেন্টে ছিলেন না বর্তমান কর্তারা। পালাবদল হয়ে সাফওয়ান সোবহানের হাত ধরে বসুন্ধরা গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতা ও ব্যবস্থাপনাতেই রংপুর রাইডার্স হয়ে ওঠে বিপিএলের অন্যতম শক্তিশালী শিরোপাপ্রত্যাশী দল। তাই আবার যখন ফিরলেন সাকিব, তখন চোখটা থাকবে যে শিরোপায় সেটাও বলে দিলেন স্পষ্ট করে, ‘বসুন্ধরা কিংস প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আশা করছি আমরাও এবার চ্যাম্পিয়ন হব।’

তিন মৌসুম ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে খেলার পর নতুন ঠিকানায় সাকিব। রংপুর রাইডার্সের চেয়ারম্যান মোস্তফা আজাদ মহীউদ্দীন জানালেন, ‘এর আগে এ রকম হয়, এর আগেও তিনজন আইকন খেলোয়াড় দল পরিবর্তন করেছে। আমরা দুই পক্ষ মিউচ্যুয়াল অ্যাগ্রিমেন্ট করেছি। আমরাও তাকে (সাকিব) চেয়েছি, সেও আমাদের দলে আসতে রাজি হয়েছে।’ পর পর তিন আসরে ঢাকা ডায়নামাইটসের নেতৃত্বে ছিলেন সাকিব। দলকে তিনবার ফাইনালে তুলেছেন, ২০১৬ সালে শিরোপা জিতলেও এরপর আর পারেননি শিরোপা জেতাতে। কখনো ক্রিস গেইল, কখনো তামিম ইকবালের বিধ্বংসী ইনিংস শিরোপা কেড়ে নিয়েছে সাকিবের দলের। এবার দলই পরিবর্তন করেছেন সাকিব। আশা করছেন, সঙ্গে হয়তো পরিবর্তন হবে ফাইনাল ভাগ্যেরও!

 

মন্তব্য