kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৩ জুলাই ২০১৯। ৮ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৯ জিলকদ ১৪৪০

আমরা ‘ওয়ান ম্যান আর্মি’ নই

২০ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



আমরা ‘ওয়ান ম্যান আর্মি’ নই

অস্ট্রেলিয়া ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে নানা প্রশ্নের ভিড়ে মাশরাফি বিন মর্তুজাকে এমন প্রশ্নও শুনতে হলো যে বাংলাদেশ এই মুহূর্তে আসলে একজনেরই দল। সেটি সাকিব আল হাসানের। কিন্তু বাংলাদেশ অধিনায়ক মানলেন না। বরং উদাহরণ দিয়ে প্রশ্নকর্তার যুক্তি খণ্ডন করলেন। সেই সঙ্গে আরো অনেক প্রশ্নের জবাব তো দিলেনই। সেগুলো থেকেই নির্বাচিত কিছু অংশ এখানে তুলে ধরা হলো। সংবাদ সম্মেলনে ছিলেন কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিও।

প্রশ্ন : শ্রীলঙ্কা ম্যাচটি ভেসে যাওয়ার পর ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারানো নিশ্চয়ই দারুণ স্বস্তিদায়ক?

মাশরাফি বিন মর্তুজা : অবশ্যই। টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে জয়ের কোনো বিকল্পই ছিল না আমাদের। পয়েন্ট হারানোর পর আমাদের ট্র্যাকে ফেরাটা ভীষণ প্রয়োজনও ছিল। সেটি হওয়ায় ছেলেরা এখন অনেক আত্মবিশ্বাসী।

প্রশ্ন : ১৪ বছর আগে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশের একমাত্র জয়। সেই ম্যাচে আপনি খেলেছেন। যদি বলি অস্ট্রেলিয়ার মতো প্রতিপক্ষের সঙ্গে ডরভয়হীন ক্রিকেট খেলার ক্ষেত্রে এই সময়ে বাংলাদেশের ক্রিকেট কতটা বদলেছে?

মাশরাফি : হ্যাঁ, ১৪ বছর অনেক লম্বা সময়। এবং সেই জয়টি আমরা পেয়েছিলাম এই দেশেই (ইংল্যান্ডে)। এই সময়ে অনেক বদলেছে আমাদের ক্রিকেট। আমাদের ড্রেসিংরুমে এমন বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারই আছে, যারা বিশ্বাস করে আমরা হারাতে পারি যে কাউকেই। যদিও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কাজটি সহজ হবে না। বিশেষ করে এই কন্ডিশনে ওদের ফর্ম যা, তাতে কঠিনই হবে। কিন্তু ওই যে বললাম বিশ্বাসের কথা। ভালো শুরু পেলে কী হবে, আপনি আগেই বলে দিতে পারবেন না। আমরা লড়াই করব।

প্রশ্ন : ২০০৫-র সেই জয়ের পরও বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়ার কাছ থেকে তেমন সমীহ পায়নি। একের পর এক অস্ট্রেলিয়া সফর বাতিল হয়েছে আপনাদের। কালকের (আজ) ম্যাচে যোগ্য প্রতিপক্ষ হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করার তাড়নাও কি থাকবে আপনাদের?

মাশরাফি : সত্যি বললে আমার মনে হয় না যে আমাদের প্রমাণ করার কিছু আছে। তবে হ্যাঁ, এটি হতাশাজনক যে আপনি আতিথ্য দিচ্ছেন না বা খেলতে আসছেন না। সফরে গিয়েও অনেক কিছু শেখার থাকে। বিশেষ করে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, নিউজিল্যান্ড এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় খেলতে গেলে। এর পরও আমি বলব, যা ঘটার ঘটে গিয়েছে। সেগুলো নিয়ে ভাবার কিছু দেখি না। এটি এমন একটি টুর্নামেন্ট, যেখানে সবাই ভালো খেলতে চায়। আগের চেয়ে আমরা ভালো দল, সেটিও প্রমাণ করার উপযুক্ত সময় এটি। তা ছাড়া টুর্নামেন্টে টিকে থাকার ক্ষেত্রেও এটি ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ আমাদের জন্য। অস্ট্রেলিয়াকে হারানো কঠিন তবে অসম্ভব নয়। সম্ভব করতেই আমরা লড়ব।

প্রশ্ন : আগের প্রশ্নের সূত্র ধরেই বলি, অস্ট্রেলিয়ায় আপনারা শেষ টেস্টও খেলেছেন ১৬ বছর আগে। ওই দেশে টেস্ট খেলার সুযোগ নিশ্চয়ই চান।

মাশরাফি : হ্যাঁ, চাই। আমরা অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট খেলেছি, তাও তো অনেক দিন হয়ে গেল। আমরা ডারউইন ও কেয়ার্নসে খেলেছিলাম। ওই দলে আমিও ছিলাম। এরপর আর সেখানে টেস্ট খেলতে না পারা অবশ্যই হতাশাজনক। আমি ঠিক নিশ্চিত নই যে কাল আমরা জিতলেও এই সমস্যার সমাধান হবে কি না। তবে এটিও নিশ্চিত করছি যে কালকের (আজ) ম্যাচ খেলার সময় এই ব্যাপারটি আমাদের মাথায় থাকবে না। আমাদের ভালো খেলতে হবে এবং নিশ্চিত করতে হবে যেন আমরা টুর্নামেন্টে টিকে থাকি।

প্রশ্ন : সাকিব আল হাসানের পারফরম্যান্স কি পুরো দলকে জাগিয়ে তুলেছে?

মাশরাফি : বাংলাদেশের হয়ে ক্যারিয়ার শুরু করার পর থেকেই সাকিব অসাধারণ। নিজের ওপর আস্থা রাখে সে। আশা করছি, ওর ভালো খেলাটা অব্যাহত থাকবে। তবে দলের অন্যদেরও সমর্থন লাগবে। আগের ম্যাচে যে সমর্থন সে লিটনের কাছ থেকে পেয়েছে। তামিম এবং সৌম্যও দারুণ শুরু পেয়েছিল। বোলারদেরও নিজেদের মেলে ধরতে হবে। এখানকার (নটিংহ্যাম) উইকেট যেহেতু ব্যাটিং সহায়কই হওয়ার কথা, সুতরাং অস্ট্রেলিয়াকে অল্পের মধ্যে আটকে রাখার জন্য ওদের দুর্দান্ত পারফরম্যান্সও জরুরি।

প্রশ্ন : এখন তো বাংলাদেশকে ‘ওয়ান ম্যান আর্মি’ বলেই মনে হচ্ছে। টুর্নামেন্টে এই ব্যাপারটি তো দলের জন্য বিপজ্জনকও হয়ে উঠতে পারে।

মাশরাফি : আমি ‘ওয়ান ম্যান আর্মি’ বলব না। ঠিক আছে, সাকিব রান করছে। দলের জন্য দারুণ ব্যাপার। কিন্তু অন্যরাও তো ভালো করছে। আগের ম্যাচে মুস্তাফিজের বোলিংয়ের কথাই ধরুন। এক ওভারে দুটি উইকেট তুলে দেওয়ার কথা ভাবুন। সাইফ উদ্দিনও বোলিং করছে এবং উইকেট নিচ্ছে। ক্রিস গেইল কী করতে পারে, আপনারা তো তা জানেনই। ওর উইকেট সাইফ উদ্দিনেরই নিয়ে দেওয়া। কাজেই আমরা ‘ওয়ান ম্যান আর্মি’ নই। কেউ একজন সেঞ্চুরি করলে সে প্রচারমাধ্যমের দৃষ্টি কেড়ে নেবে, এটাই স্বাভাবিক। সাকিবের পারফরম্যান্সও ব্যতিক্রমী। এই মুহূর্তে ও নিজের সেরা খেলাই খেলছে। কিন্তু মুস্তাফিজ, সাইফ উদ্দিনরাও ভালো খেলছে। মুশির কথা কেন বলছেন না? মিরাজও দারুণ বোলিং করছে।

 

 

মন্তব্য