kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১২ রবিউস সানি     

খালেদার প্যারল নিয়ে দর-কষাকষি!

আবদুল্লাহ আল মামুন   

২৬ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



খালেদার প্যারল নিয়ে দর-কষাকষি!

ফাইল ছবি

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিয়ে ভালো চিকিৎসার জন্য প্যারলের চেষ্টা চালাচ্ছেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। তাঁদের কাছে এ মুহূর্তে বিএনপির কারাবন্দি নেত্রীর স্বাস্থ্যের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ বলে বিবেচিত হচ্ছে। সে জন্য দলের একজন প্রভাবশালী নেতা ও খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যদের সম্মতিতে প্রতিনিধির মাধ্যমে সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে এরই মধ্যে কয়েক দফা বৈঠকও হয়েছে প্রধানমন্ত্রীর একজন উপদেষ্টার সঙ্গে। সেসব বৈঠকে যথেষ্ট অগ্রগতিও হয়েছে বলে সরকারের উচ্চপর্যায়ের একটি সূত্রে জানা গেছে।

তবে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের একটি অংশ চায় তাঁদের সাজাপ্রাপ্ত নেত্রী আইনি লড়াইয়ের মাধ্যমে মুক্তি পেয়ে দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে ফিরে আসুন। ওই অংশটি খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যাপারে সরকারের কাছে নতি স্বীকার করতে নারাজ। বিদেশে চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে প্যারল দিতে সরকারের পক্ষ থেকে অনেক আগেই আভাস দেওয়া হলেও বিএনপির ওই অংশটি তাতে সাড়া দেয়নি। খালেদা জিয়া নিজেও প্যারল নিতে নারাজ। তিনি বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা নিতে চান না।

সরকারি সূত্র মতে, বিএনপির এক সিনিয়র নেতা এবং খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যরা সরকারের প্রতি বৈরী অবস্থান থেকে সরে আসতে চান। তাঁরা বলছেন, লন্ডনে নিয়ে চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়াকে প্যারল দেওয়া হলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নির্বাচিত বিএনপির ছয় এমপি শপথ নেবেন। এ বিষয়টি সরকারকে স্পষ্টভাবে জানানো হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের কাছে এ মুহূর্তে খালেদা জিয়ার সুস্থ থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ। অন্যদিকে বিএনপির কট্টরপন্থী অংশটি দর-কষাকষি করে খালেদা জিয়ার মুক্তির চরম বিরোধী। খালেদা জিয়ার প্যারলের বিনিময়ে বিএনপির ছয় এমপির শপথ নেওয়ার ব্যাপারে তাঁদের অসম্মতির কথা সরকারকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। অবশ্য সরকার চাইছে খালেদার প্যারলের বিষয়ে বিএনপির উভয় অংশ সম্মতি প্রকাশ করুক।

এ ব্যাপারে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক কালের কণ্ঠকে বলেন, বিষয়টি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়ার প্যারলের বিষয়ে আবেদন করা হলে সরকার বিবেচনা করে দেখবে। এখন পর্যন্ত বিএনপি বা খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে প্যারলের আবেদন করার কোনো সংবাদ তিনি পাননি বলে জানান।

গত বছর ৪ নভেম্বর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন, বিএনপি চাইলে বিদেশে চিকিৎসার জন্য খালেদা জিয়ার প্যারলের বিষয়টি বিবেচনা করা হবে।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ কালের কণ্ঠকে বলেন, খালেদা জিয়ার সর্বোচ্চ চিকিৎসার জন্য কারা কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিয়েছে। এর পরও মেডিক্যাল বোর্ড যদি বিদেশে চিকিৎসার জন্য সুপারিশ করে, তাহলে অবশ্যই সরকার বিষয়টি বিবেচনা করবে।

খালেদা জিয়ার প্যারলের বিষয়ে সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে কি না জানতে চাইলে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন কালের কণ্ঠকে বলেন, তিনি এ ব্যাপারে কিছুই জানেন না। তিনি আরো বলেন, সরকার বিচার বিভাগে হস্তক্ষেপ না করুক এবং খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা নিশ্চিত করুক, সেটাই তাঁরা বারবার বলে আসছেন। খোকন বলেন, ‘দেশে সরকারের নিয়ন্ত্রণ আছে এমন চিকিৎসকদের মাধ্যমে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করাতে চাই না।’

বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও খালেদা জিয়ার অন্যতম আইনজীবী ব্যারিস্টার মীর হেলাল কালের কণ্ঠকে বলেন, আইনি লড়াই চালিয়ে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার নির্দেশ রয়েছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা