kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

উল্টো পথের ‘যন্ত্রদানবে’ নিভল তিন ছাত্রের প্রাণ

সড়কে আরো ছয়জনের মৃত্যু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৮ মিনিটে



উল্টো পথের ‘যন্ত্রদানবে’ নিভল তিন ছাত্রের প্রাণ

পিকআপের চাপায় পা হারানো যশোরের মেয়ে নিপার ক্ষতিপূরণসহ সাত দফা দাবিতে গতকাল সকাল ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত বেনাপোল-যশোর ও নাভারণ-সাতক্ষীরা মহাসড়ক অবরোধ করে শার্শার শিক্ষার্থীরা। ছবি : স্টার মেইল

আরো বেপরোয়া, আরো ভয়ংকর সড়কের ‘যন্ত্রদানব’। এবার উল্টো পথে এসে নিভিয়ে দিয়ে গেল তিন ছাত্রের জীবনপ্রদীপ। সবচেয়ে মর্মস্পর্শী ঘটনাটি গাজীপুরের। কলেজের তিন বন্ধু পরীক্ষা দিয়ে মোটরসাইকেলে ফিরছিল বাসায়। উল্টো পথে আসা অটোরিকশার ধাক্কায় তারা ছিটকে পড়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করতে যাওয়ার আগেই ওই পথে চলাচলকারী ময়মনসিংহগামী সৌখিন পরিবহনের একটি বাস তাদের পিষে চলে যায় বীরদর্পে। এতে তিন বন্ধুর দুজন নাসির ও রবিন লাশ হয়ে ফেরে বাসায়। অন্য বন্ধু আল আমিন হাসপাতালে লড়ছে মৃত্যুর সঙ্গে। এদিকে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে বাস নামের ‘যন্ত্রদানব’ ছুটে আসে উল্টো পথে। কেড়ে নেয় স্কুলছাত্র অন্তরের প্রাণ। আরেক কলেজছাত্র মাহাফুজের জীবন নিভেছে জয়পুরহাটের পাঁচবিবির সড়কে। ওই দুর্ঘটনায় মাহাফুজের সঙ্গে প্রাণ দিয়েছেন তবিবর নামের একজন। এ ছাড়া চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ, ঢাকার ডেমরা ও ধামরাই এবং চট্টগ্রামে আলাদা দুর্ঘটনায় মারা গেছে আরো চারজন। এ ব্যাপারে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক, আঞ্চলিক অফিস ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

গাজীপুর : কলেজে পৌরনীতি পরীক্ষা দিয়ে গতকাল শনিবার দুপুরে মোটরসাইকেলে বাসায় ফিরছিল তিন বন্ধু। ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের দক্ষিণ সালনা এলাকার কনকর্ড গার্মেন্টের সামনে উল্টো পথে আসা একটি অটোরিকশা ওই মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে মোটরসাইকেল আরোহী তিন বন্ধু ছিটকে মহাসড়কের ওপর পড়ে। আশপাশের লোকজন তাদের উদ্ধার করতে গেলে ময়মনসিংহগামী সৌখিন পরিবহনের একটি বাস তিন কলেজছাত্রকে পিষ্ট করে চলে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই গাজীপুর মহানগরীর মাস্টারবাড়ির বাহাদুরপুর এলাকার জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে জুম্মান হোসেন নাসির (১৮) এবং ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর ভীমবাজার এলাকার মো. রাইজউদ্দিন আকনের ছেলে রবিন হোসেন আকনের (১৯) মৃত্যু হয়। আহত আরেক বন্ধু মাস্টারবাড়ী এলাকার আল আমিন (১৮) রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

সন্ধ্যায় অ্যাম্বুল্যান্সে তাদের নিথর দেহ বাড়ি পৌঁছলে এক হৃদয়বিদারক পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। আত্মীয়-স্বজন, সহপাঠী ও প্রতিবেশীদের কান্না ও আহাজারিতে ভারী হয়ে ওঠে পরিবেশ।

দুই ভাই-বোনের মধ্যে নাসির ছিল বড়। তার বাবা গাজীপুরের ভোগড়া চৌরাস্তার পাইকারি কাঁচাবাজারের আড়তের সর্দার। রবিন দুই ভাই এক বোনের মধ্যে ছিল সবার বড়। তার বাবা পেশায় অটোরিকশাচালক। 

নাসিরের ফুফাতো ভাই ফারুক হোসেন জানান, নাসিরের স্বপ্ন ছিল লেখাপড়া শেষ করে চাকরি করবে। পরিবারের হাল ধরবে। দরিদ্র মা-বাবারও স্বপ্ন ছিল ছেলে বড় হবে। কিন্তু দুর্ঘটনা সব স্বপ্ন শেষ করে দিয়েছে।

সদর থানার ওসি সমীর চন্দ্র সূত্রধর জানান, দুর্ঘটনার পর বাসটি পালিয়ে গেছে। 

মুন্সীগঞ্জ : উল্টো পথে বাস এসে কেড়ে নিয়েছে স্কুলছাত্র অন্তরের (১২) প্রাণ। গতকাল শনিবার দুপুরে মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে পদ্মা সেতুর টোল প্লাজার কাছে এ ঘটনা ঘটে। অন্তর হোসেন স্থানীয় মেদিনী মণ্ডল আনোয়ার চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র ছিল। সে উত্তর মেদিনী মণ্ডল গ্রামের রাজা মিয়ার ছেলে। এ ঘটনার পরপরই অন্তরের সহপাঠীরা ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ক অবরোধ করে। প্রায় দেড় ঘণ্টা অবরোধের কারণে যানজট দেখা দেয় ব্যস্ততম এ মহাসড়কে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গতকাল দুপুরে অন্তরের স্কুলে টিফিনের ছুটি হয়। এ সময় সে স্কুল থেকে বেরিয়ে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের টোল প্লাজার কাছে মহাসড়ক পার হয়ে টিফিনের জন্য যাচ্ছিল। কিন্তু উল্টো পথে আসা ঢাকাগামী বনফুল পরিবহনের (ঢাকা মেট্রো ব-১৫-২১৮০) একটি বাস তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই অন্তরের মৃত্যু হয়। এ সময় বাসটি দ্রুতগতিতে ঢাকার দিকে চলে যায়। পথে শ্রীনগরের ছনবাড়ী এলাকার একটি পেট্রল পাম্পের সঙ্গে আবারও ধাক্কা খায় বাসটি। এ সময় জনতা বাসটি জব্দ করলেও চালক পালিয়ে যায়। পরে হাইওয়ে পুলিশ এসে বাসটি নিয়ে যায়।

এদিকে অন্তরের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে সহপাঠীরা। তারা ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের ওই স্থানে অবরোধ করলে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। এ সময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা মহাসড়কে আন্ডারপাস কিংবা ওভারব্রিজের দাবিতে স্লোগান দেয়। পরে বিকেলে লৌহজংয়ের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কাবিরুল ইসলাম খান ও ওসি মো. মনির হোসেন ঘটনাস্থলে গিয়ে অন্তর হোসেন হত্যার বিচার ও তাদের দাবি পূরণের আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা অবরোধ তুলে নেয়।

হাসাড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ওসি গোলাম মোর্শেদ তালুকদার জানান, বাসটি পালিয়ে যাওয়ার সময় শ্রীনগরের ছনবাড়ীতে একটি পেট্রল পাম্পের ওপর তুলে দেয়। এ সময় জনতা ধাওয়া করলে বাসের চালক পালিয়ে যায়। বাসটি জব্দ করা হয়েছে। লৌহজং থানার ওসি মো. মনির হোসেন জানান, ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কাবিরুল ইসলাম খান জানান, ছাত্র-ছাত্রীদের দাবি যৌক্তিক। কারণ মহাসড়কের পূর্ব প্রান্তের গ্রাম থেকে স্কুলে আসতে হলে ঝুঁকি নিয়ে মহাসড়ক পার হয়ে এবং দেয়াল টপকে আসতে হয়। তাদের এই দাবি বাস্তবায়নে জেলা প্রকাশক আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা অবরোধ তুলে নেয়। পদ্মা সেতু প্রকল্প পরিচালকের সঙ্গে যোগাযোগ করে আগামী ৯০ দিনের মধ্যে এখানে একটি ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণের চেষ্টা করা হবে। এ ছাড়া প্রশাসনের পক্ষ থেকে অন্তরের পরিবারকে খাসজমির বন্দোবস্তসহ একটি ঘর তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে। এদিকে অন্তরের দাফনের জন্য বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তার পরিবারকে ২০ হাজার টাকা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন বিদ্যালয়টির শিক্ষক আবু নাছের লিমন।

পাঁচবিবি (জয়পুরহাট) : পাঁচবিবিতে দুটি মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে কলেজছাত্রসহ দুজনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল দুপুরে পাঁচবিবি-কামদিয়া সড়কের বৃদ্ধিগ্রাম এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলো মহিপুর হাজী মহসিন সরকারি কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র দানেজপুর গ্রামের সাইফুল ইসলামের ছেলে মাহাফুজ (১৭) এবং পানিয়াল গ্রামের মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে মো. তবিবর রহমান (৫৫)। জানা যায়, মাহাফুজ ও রাতুল মোটরসাইকেল নিয়ে পাঁচবিবি থেকে কামদিয়ার দিকে যাওয়ার সময় বিপরীত দিক থেকে আসা তবিবরের মোটরসাইকেলের সঙ্গে বৃদ্ধিগ্রাম এলাকায় মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তবিবরের মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত হয় মাহাফুজ ও রাতুল। আহতদের জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মাহাফুজকে মৃত ঘোষণা করেন। গুরুতর আহত রাতুলকে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ (আঞ্চলিক) : চাঁপাইনবাবগঞ্জ-সোনামসজিদ মহাসড়কের শিবগঞ্জ একাডেমি মোড় এলাকায় গতকাল বিকেলে ট্রাকের চাপায় পথচারী মনিরুল ইসলাম মিনু (৬৫) নিহত হয়েছেন। তিনি শিবগঞ্জের চককীর্তি ইউনিয়নের ডুবলি ভাণ্ডারের সলি মণ্ডলের ছেলে।

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রাম নগরীর কাস্টমস মোড় এলাকায় লরির চাপায় ওসমান গনি (২৯) নামের এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। গত শুক্রবার গভীর রাতে কাস্টমস মোড়ের ৪ নম্বর জেটি গেটে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ওসমান একটি ওষুধ কম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি ছিলেন। চাঁদপুরের কচুয়ার আবুল খায়েরের ছেলে ওসমান নগরীর সল্টগোলা মিস্ত্রি পুকুরপার এলাকায় একটি বাসায় বাস করতেন।

রাজধানী : ডেমরার সারুলিয়া এলাকায় গতকাল দুপুরে ট্রাকের চাপায় অটোরিকশাচালক আব্দুছ সালাম (৪৫) নিহত হয়েছেন। সকালে স্থানীয় একটি মাদরাসার অনুষ্ঠানের মাইকিং করতে বের হন সালাম। পরে সারুলিয়া এলাকায় এলে ট্রাকের চাপায় মারাত্মক আহত হন তিনি। পরে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় বেলা দেড়টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

ধামরাই (ঢাকা) : ধামরাইয়ে গতকাল বিকেলে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের বাথুলী বাসস্ট্যান্ডে সুয়াপুর গ্রামের আপেল বেপারীর ছেলে আবুল হোসেন বাসে ওঠার সময় অন্য একটি বাস তাঁকে চাপা দেয়। পরে তাঁকে মানিকগঞ্জ সদর হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাতে তিনি মারা যান। 

বরিশাল : বরিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় বিএম কলেজের ছাত্রী শিলা হালদারসহ সাতজন নিহতের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সড়ক অবরোধ করেছে শিক্ষার্থীরা। গতকাল সকালে নথুল্লাবাদ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের সামনে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়ক অবরোধ করে তারা। সেখানে তারা বিভিন্ন যানবাহনের কাগজপত্র চেক করে এবং ঘাতক চালকের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবিতে স্লোগান দেয়। এদিকে সড়ক দুর্ঘটনায় চিকিৎসাধীন গুরুতর আহতদের মধ্যে সাত বছরের শিশু তাঈম (৭) মারা গেছে। উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেওয়ার পথে সে মারা যায়।

এদিকে ‘দুর্জয়’ বাসের চালক আবদুল জলিলকে গত শুক্রবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাকে বাবুগঞ্জ উপজেলার আরজি কালিকাপুর এলাকার নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে চালক ও সহকারীদের আসামি করে একটি হত্যা মামলা করা হয়। এদিকে দুর্ঘটনার কারণ তদন্তে জেলা প্রশাসকের উদ্যোগে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা