kalerkantho

বুধবার । ১৬ অক্টোবর ২০১৯। ১ কাতির্ক ১৪২৬। ১৬ সফর ১৪৪১       

এক প্রকল্পে এক পিডি রাখা ও গাড়ি ফেরতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

এক লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকার সংশোধিত এডিপি অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



এক প্রকল্পে এক পিডি রাখা ও গাড়ি ফেরতের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ার পরও ওই প্রকল্পের আওতায় কেনা যানবাহন যাঁরা এখনো ফেরত দেননি, তাঁদের শিগগিরই পরিবহন পুলে যানবাহন জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই সঙ্গে একটি প্রকল্পে একজনই প্রকল্প পরিচালক নিয়োগের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলানগরের জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় প্রধানমন্ত্রী এসব নির্দেশনা দিয়েছেন। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান।

সভায় এক লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকার সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়ন প্রকল্প (এডিপি) অনুমোদন দেওয়া হয়।

এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় যেসব গাড়ি কেনা হয়, প্রকল্পটি শেষ হওয়ার পর নিয়ম অনুযায়ী তা পরিবহন পুলে জমা দেওয়ার কথা। কিন্তু অনেকে তা জমা দেয় না। কোন জিপ কোথায় ব্যবহার হয়, কোথায় ময়লা-আবর্জনা পড়ে অব্যবহূত পড়ে থাকে, সব তথ্যই তাঁর জানা আছে।

সরকারি যানবাহনের যাচ্ছেতাই ব্যবহার ও এর অপব্যবহার নিয়ে গতকাল এনইসি সভায় পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) সচিব আবুল মনসুর মোহাম্মদ ফয়েজুল্লাহ প্রধানমন্ত্রীর সামনে প্রতিবেদন তুলে ধরলে তিনি এ নির্দেশনা দেন।

এ সময় আইএমইডি সচিব প্রধানমন্ত্রীকে জানান, সারা দেশে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নজরদারির জন্য আইএমইডির কাছে পর্যাপ্ত গাড়ি নেই। তখন প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘চাইলে হেলিকপ্টারও পাবেন। আমার কাছে কোনো কিছুর অভাব নেই।’

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের উদ্ধৃতি দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এনইসি সভায় প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন যে আটটি বিভাগীয় শহরে আইএমডির অফিস চালু করতে। যাতে করে মাঠপর্যায়ে প্রকল্প নজরদারি করা সহজ হয়। আইএমইডিতে যেহেতু প্রকৌশলী নেই, তাই সরকারের নজরদারি করা একমাত্র সংস্থাটির জন্য প্রকৌশল ইউনিট কিংবা ল্যাব করারও নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এর পাশাপাশি আইএমইডিকে শক্তিশালী করতে এর জনবল, গাড়িবহর ও যন্ত্রবহর বাড়ানোরও নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। 

সভায় অর্থসচিব ও জনপ্রশাসনসচিব অবসরপ্রাপ্ত অভিজ্ঞ আমলাদের প্রকল্প পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেওয়ার প্রস্তাব করলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তা নাকচ করে দেন। তিনি বলেন, যাঁরা অবসরে চলে গেছেন, তাঁদের পিডি হিসেবে নিয়োগ দেওয়া যাবে না। কারণ কোনো প্রকল্পে অনিয়ম করলে তাঁদের ধরার সুযোগ থাকবে না। তাঁরা এরই মধ্যে পেনশনসহ সব কিছু নিয়ে গেছেন। সরকারের প্রতি তাঁদের দায়বদ্ধতা থাকবে না। স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিও থাকবে না।

সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর উদ্ধৃতি দিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, প্রকল্প পরিচালককে অবশ্যই প্রকল্প এলাকায় থাকার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এ ছাড়া এক প্রকল্পে একজনই প্রকল্প পরিচালক থাকবেন। একাধিক প্রকল্পে একজন প্রকল্প পরিচালক (পিডি) দায়িত্ব পালন করতে পারবেন না। এটা প্রধানমন্ত্রীর সুস্পষ্ট নির্দেশ। তবে বিশেষ প্রয়োজনে কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন কাউকে না পাওয়া গেলে সে ক্ষেত্রে একজন পিডি একাধিক প্রকল্পে দায়িত্ব পালন করতে পারবেন। এ ছাড়া প্রত্যেক জেলা ও উপজেলায় একটা মাস্টার প্ল্যান তৈরি করার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

চলতি অর্থবছরে এডিপির আকার ছিল এক লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। সেখান থেকে আট হাজার কোটি টাকা কমিয়ে এক লাখ ৬৫ হাজার কোটি টাকার সংশোধিত এডিপি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রাষ্ট্রীয় কোষাগার থেকে দেওয়া হয়েছে এক লাখ ১৪ হাজার কোটি টাকা। বাকি ৫১ হাজার কোটি টাকা উন্নয়ন সহযোগীদের কাছ থেকে পাওয়ার আশা করছে সরকার।

সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগকে প্রায় সাড়ে ২৪ হাজার কোটি টাকা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগকে—সাড়ে ২৩ হাজার কোটি টাকা এবং তৃতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ পেয়েছে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা।

সভায় বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদসহ বেশ কয়েকজন মন্ত্রী তাঁদের চাহিদামাফিক টাকা পাননি বলে প্রধানমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ করেন। তখন প্রধানমন্ত্রী বাড়তি দুই হাজার কোটি টাকা পরিকল্পনামন্ত্রীর কাছে রেখে দেওয়ার নির্দেশ দেন। বাড়তি টাকা লাগলে অর্থবছর শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত মন্ত্রীর কাছ থেকে নেওয়ার কথা বলেন।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা