kalerkantho

শনিবার । ২৫ মে ২০১৯। ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৯ রমজান ১৪৪০

উপাচার্য দেখা দিলেন না, আন্দোলন স্থগিত

উপাচার্য গেলেন অনশনকারীদের দেখতে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

১৯ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উপাচার্য দেখা দিলেন না, আন্দোলন স্থগিত

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচন বাতিল করে নতুন করে ভোটের দবিতে উপাচার্যের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয় ভোট বর্জনকারীরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

‘আমাদের দাবির বিষয়ে উপাচার্যের স্পষ্ট বক্তব্য শুনতে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা তাঁর কার্যালয়ের সামনে অবস্থান করেছি। কিন্তু তিনি আমাদের সঙ্গে দেখা করতে আসেননি। প্রশাসনের নৈতিক অবস্থা দুর্বল হওয়ায় ভিসি (উপাচার্য) স্যার দেখা করতে আসেননি। আমরা ক্ষুব্ধ। অবস্থান কর্মসূচি আজকের মতো স্থগিত। পরবর্তী কর্মসূচি পরে জানিয়ে দেওয়া হবে।’ ডাকসু পুনর্নির্বাচনের আন্দোলন স্থগিত করে গতকাল সোমবার বিকেল ৫টায় সাংবাদিকদের এ কথাই বললেন সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খান।

আন্দোলনের আরেক নেত্রী অরণি সেমন্তী খান বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে কথা বলতে প্রশাসনের এত ভয় কিসের? ভিসি স্যার আমাদের অভিভাবক। তিনি মতবিনিময় করার প্রয়োজনই বোধ করলেন না। এই প্রশাসনকে আমরা ধিক্কার জানাই।’ পরবর্তী কর্মসূচির বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আলোচনা শেষে জানানো হবে।’

পুনরায় ডাকসু নির্বাচন, উপাচার্যের পদত্যাগ, মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে গতকাল দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত এ অবস্থান কর্মসূচি পালন করে নির্বাচন বর্জনকারী পাঁচ প্যানেল। পাঁচ ঘণ্টা অবস্থান শেষে উপাচার্যের দেখা না পেয়ে আন্দোলন স্থগিত করে তারা।

এর আগে পূর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী সকাল ১১টায় নির্বাচন বর্জনকারী পাঁচ প্যানেলের প্রতিনিধি ও সমর্থকরা রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে জড়ো হয়। সেখান থেকে মিছিল নিয়ে ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটের দিকে উপাচার্য কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেয়। এতে কয়েক শ শিক্ষার্থী অংশ নেয়। তবে কর্মসূচিতে ছিলেন না প্রগতিশীল ছাত্র ঐক্যের ভিপি প্রার্থী লিটন নন্দী ও ডাকসুর সদ্য নির্বাচিত ভিপি নুরুল হক নুর। অবস্থান কর্মসূচিতে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে স্লোগান দেওয়া হয়। একপর্যায়ে উপাচার্যের পক্ষ থেকে সহকারী প্রক্টর আব্দুর রহীম আন্দোলনকারীদের বলেন, ‘উপাচার্য স্যার অসুস্থ। গলায় ব্যথা। কথা বলতে পারছেন না। এ জন্য তাঁর পক্ষে দেখা করা সম্ভব নয়।’ এরপর আন্দোলনকারীদের কয়েকজন উপাচার্য কার্যালয়ের দেয়ালে কয়েকটি তির্যক মন্তব্য লেখে। এর একটি ছিল ‘ভিসি অসুস্থ (শারীরিক ও মানসিকভাবে)।’

এদিকে ডাকসু নির্বাচনে অনিয়মের সুষ্ঠু তদন্তের দাবিতে রাজু ভাস্কর্যে অনশনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সকাল ১১টার দিকে দেখা করেন উপাচার্য অধ্যাপক মো. আখতারুজ্জামান। এ সময় অনশনকারীদের মধ্যে শোয়েব মাহমুদ, তাওহীদ তানজিম, রাফিয়া তামান্না ও রবিউল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। প্রায় ঘণ্টাখানেক আলোচনা শেষে শোয়েব মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিভিন্ন হলে ভোটের অনিয়ম, ভোটারদের লিখিত অভিযোগ ও হামলার ভিডিও ফুটেজ ভিসি স্যারকে দেওয়া হয়েছে। স্যার বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে নানা অভিযোগ খতিয়ে দেখতে যে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে, তারা ডকুমেন্টগুলো খতিয়ে দেখবে।’

 

মন্তব্য