kalerkantho

রবিবার। ১৮ আগস্ট ২০১৯। ৩ ভাদ্র ১৪২৬। ১৬ জিলহজ ১৪৪০

ডিএমপির বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা

কেন্দ্রে সিসিটিভি, যানবাহনে নিয়ন্ত্রণ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে




ডিএমপির বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া জানিয়েছেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ডিএমপি। তিনি জানান, নির্বাচনে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি ভোটকেন্দ্র ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার (সিসিটিভি) আওতায় থাকবে। প্রবেশমুখে বসানো হবে চেকপোস্ট। নিয়ন্ত্রণে থাকবে সাধারণ যান চলাচল।

গতকাল শনিবার বিকেলে শাহবাগ থানায় এক ব্রিফিংয়ে ডিএমপি কমিশনার এ কথা জানান। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী।

এর আগে গতকাল সকালে ডিএমপি সদর দপ্তরে ডাকসু নির্বাচন নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ও সরকারের অন্যান্য বিভাগকে নিয়ে একটি সমন্বয় সভার আয়োজন করা হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. এ এস এম মাকসুদ কামাল, সাধারণ সম্পাদক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম, প্রক্টর ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী ও ড. এস এম মাহফুজুর রহমান। এ ছাড়া ডিএমপির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা, ফায়ার সার্ভিস, সিটি করপোরেশন, পিডাব্লিউডি ও ডিপিডিসি প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে ডাকসু নির্বাচনকেন্দ্রিক নিরাপত্তার ব্যবস্থার বিষয়টি বিশেষ গুরুত্ব পায়।

জানা যায়, গতকাল সকাল ১১টায় ডিএমপি সদর দপ্তরে ডাকসু নির্বাচন সংক্রান্ত নিরাপত্তা ও সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। সমন্বয় সভায় সভাপতিত্ব করেন ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। সভায় কমিশনার বলেন, ডাকসু নির্বাচনকেন্দ্রিক গৃহীত নিরাপত্তার মধ্যে থাকবে পর্যাপ্ত সিসি ক্যামেরা। ভোটকেন্দ্রের প্রবেশপথে বসানো হবে আর্চওয়ে। নির্বাচনের দিন বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টিকার ব্যতীত কোনো গাড়ি ক্যাম্পাসে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। নির্বাচনের আগে ১০ মার্চের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা থেকে বহিরাগতদের চলে যেতে হবে। ১১ মার্চ নির্বাচনের দিন কোনো বহিরাগতকে বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হবে না। যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রস্তুত থাকবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। ভোট দেওয়ার সময় ছাত্র-ছাত্রীদের অবশ্যই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বৈধ পরিচয়পত্র দেখাতে হবে।

শাহবাগ থানায় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তাসংক্রান্ত বৈঠকে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ডাকসু নির্বাচন ঘিরে রবিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরের দিন সোমবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, শিক্ষক, কর্মচারী, কর্মকর্তা এবং কর্তব্যরত ছাড়া কাউকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকতে দেওয়া হবে না। সে ক্ষেত্রে শাহবাগ, নীলক্ষেত, পলাশী, জগন্নাথ হল ক্রসিং, রুমানা ক্রসিং, শহীদুল্লাহ হল ক্রসিং ও হাইকোর্ট ক্রসিং—এই সাতটি জায়গায় ব্যারিকেড ব্যবস্থা থাকবে। সেখান দিয়ে শুধু বৈধ পাসধারীরা প্রবেশ করতে পারবে। যাদের বৈধ পাস থাকবে না তারা ভেতরে প্রবেশ করতে পারবে না। স্টিকারযুক্ত বৈধ মোটরসাইকেল ও গাড়ি ভেতরে প্রবেশ করতে পারবে। কোনো রকম দাহ্য পদার্থ  নিয়ে ভেতরে প্রবেশ করা যাবে না।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, সাংবাদিকদের মধ্যে প্রতিটি প্রিন্ট মিডিয়ার একজন ক্যামেরাম্যানসহ দুজন এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়ার চারজন সাংবাদিক ডিউটি পাস সাপেক্ষে ভেতরে প্রবেশ করতে পারবেন।

নিরাপত্তা বিষয়ে ডিএমপি কমিশনার আরো বলেন, পুলিশ প্রস্তুত থাকবে। যখন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ নির্দেশ দেবে পুলিশ দায়িত্ব পালন করবে। শিক্ষকবৃন্দ, প্রক্টরিয়াল বডি ও বিএনসিসি নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে। এরই মধ্যে গোয়েন্দা সংস্থা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় তল্লাশি এবং নজরদারি বৃদ্ধি করেছে বলেও জানান তিনি।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘কেউ কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা করার চেষ্টা করলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইতিমধ্যে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। সে ক্ষেত্রে আমরা সম্পূর্ণভাবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে সহযোগিতা করব।’ এ সময় তিনি বলেন, ডাকসু নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে।

মন্তব্য