kalerkantho

রবিবার । ২০ অক্টোবর ২০১৯। ৪ কাতির্ক ১৪২৬। ২০ সফর ১৪৪১                

যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসে প্রস্তাব

বাংলাদেশ ও পাকিস্তানকে জামায়াত নির্মূলের তাগিদ

জামায়াতের সঙ্গ ছাড়তে বিএনপিকে আহ্বান

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাংলাদেশ ও পাকিস্তানকে জামায়াত নির্মূলের তাগিদ

জামায়াতে ইসলামী ও উগ্রবাদী গোষ্ঠীগুলো থেকে বিএনপিসহ সব রাজনৈতিক দলকে সুস্পষ্টভাবে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ প্রতিনিধিসভায় একটি প্রস্তাব উত্থাপিত হয়েছে। ওই প্রস্তাবে জামায়াতকে ধর্মীয় স্বাধীনতা ও আঞ্চলিক স্থিতিশীলতার জন্য বড় হুমকি হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। এর পাশাপাশি বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সরকারকে জামায়াতকে নির্মূলের তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

প্রতিনিধিসভায় গত বৃহস্পতিবার রাতে প্রস্তাবটি আনেন যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানা রাজ্য থেকে নির্বাচিত প্রতিনিধি জিম ব্যাংকস। রীতি অনুযায়ী, এরপর পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য তা প্রতিনিধিসভার পররাষ্ট্রবিষয়ক কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে গত বছরের নভেম্বর মাসে প্রতিনিধিসভায় জামায়াতকে ঘিরে স্থিতিশীলতার হুমকিবিষয়ক একটি প্রস্তাব উঠলেও তা পররাষ্ট্রবিষয়ক কমিটির গণ্ডি পার হয়নি।

এবারের প্রস্তাবটির শিরোনাম দেওয়া হয়েছে ‘দক্ষিণ এশিয়ায় ধর্মভিত্তিক গোষ্ঠীগুলোর কারণে গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের প্রতি হুমকিতে উদ্বেগ প্রকাশ’। পাঁচ দফা প্রস্তাবের প্রথম দফায় বলা হয়েছে, ধর্মীয় উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদ রোধের পাশাপাশি মানবাধিকার, ধর্মীয় স্বাধীনতা ও অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের অভিন্ন স্বার্থের জন্য বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের আরো নিবিড়ভাবে সম্পৃক্ত হওয়া উচিত। দ্বিতীয় দফায়, জামায়াতে ইসলামী ও তার সহযোগীদের তৎপরতা বন্ধ এবং নির্মূল করতে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান সরকারের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

২০১৪ সালে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের একটি প্রস্তাবে বিএনপিকে জামায়াত থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানানোর কথা জিম ব্যাংকস উত্থাপিত প্রস্তাবে উল্লেখ রয়েছে। এ ছাড়া বিএনপিকে জামায়াতের সঙ্গ ছাড়তে খ্যাতিমান আইনজীবী ড. কামাল হোসেনের আহ্বান জানানোর প্রসঙ্গও রয়েছে। এসবের আলোকে প্রস্তাবের তৃতীয় দফায় বিএনপিসহ সব রাজনৈতিক দলকে জামায়াত ও উগ্রবাদী অন্যান্য গোষ্ঠী থেকে সুস্পষ্ট দূরত্ব বজায় রাখার আহ্বান জানানো হয়েছে।

প্রস্তাবের চতুর্থ দফায় যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর, আন্তর্জাতিক উন্নয়নবিষয়ক দপ্তর, স্বরাষ্ট্র দপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট সব দপ্তরকে জামায়াত ও যুক্তরাষ্ট্রে তাদের সহযোগী গোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে সব ধরনের অংশীদারি ও অর্থায়ন স্থগিত করার আহ্বান জানানো হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে জামায়াতের সহযোগী হিসেবে ইসলামিক সার্কেল অব নর্থ আমেরিকা, আইসিএনএ রিলিফ, হেল্পিং হ্যান্ড ফর রিলিফ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট, মুসলিম উম্মাহ অব নর্থ কোরিয়ার মতো সংগঠনের নাম প্রস্তাবটিতে উল্লেখ রয়েছে।

প্রস্তাবের পঞ্চম ও শেষ দফায় পাকিস্তানি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী লস্কর-ই-তৈয়বার সঙ্গে সম্পৃক্ততার অভিযোগসহ পাকিস্তান ও কাশ্মীরে হেল্পিং হ্যান্ড ফর রিলিফ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের তৎপরতার বিষয়ে তদন্ত করতে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা