kalerkantho

শহীদ সন্তানদের আহ্বান

মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীদের ভোট দেবেন না

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীদের ভোট দেবেন না

আজ শুক্রবার শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস। ১৯৭১ সালের এই দিনে দখলদার পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ও তাদের দোসর রাজাকার, আলবদর, আলশামস পরিকল্পিতভাবে বাঙালির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের হত্যা করেছিল। ওই হত্যাযজ্ঞের ঠিক দুই দিন পর ১৬ ডিসেম্বর জেনারেল নিয়াজির নেতৃত্বাধীন বর্বর পাকিস্তান বাহিনী আত্মসমর্পণ করে এবং স্বাধীন দেশ হিসেবে বাংলাদেশের অভ্যুদয় হয়। দিবসটি আজও শহীদ বুদ্ধিজীবীর সন্তানদের কাছে বড় বেদনার, শোকের হয়ে আসে।

একাত্তরের যুদ্ধাপরাধী ও বুদ্ধিজীবী হত্যায় জড়িতদের বিচারের রায় এরই মধ্যে কার্যকর করা শুরু হয়েছে। বুদ্ধিজীবী হত্যায় সরাসরি জড়িত চৌধুরী মইনুদ্দীন ও আশরাফুজ্জামান খান এখনো পলাতক। মুনীর চৌধুরী হত্যাকাণ্ড ও তাঁকে ধরে নিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সরাসরি জড়িত ছিলেন চৌধুরী মইনুদ্দীন ও আশরাফুজ্জামান খান। শহীদ মুনীর চৌধুরীর ছেলে আসিফ মুনীর তন্ময় গত রাতে কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এই হত্যার সঙ্গে জড়িতদের বিচারের রায় কার্যকর করা গেলে পুরো বিচারপ্রক্রিয়া শেষ করার দিকে দেশ এগিয়ে যাবে। বুদ্ধিজীবী হত্যাকাণ্ডের বিচার পর্ব শেষ করতে সরকারের পক্ষ থেকে তৎপরতা আরো জোরালো হবে, এটাই আমরা চাইছি।’

আর কয়েক দিন পরই জাতীয় সংসদ নির্বাচন। শহীদ পরিবারের সন্তানরা দিবসটিকে কেন্দ্র করে স্বাধীনতাবিরোধী রাজাকারদের ভোট না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। শহীদ ডা. আলীম চৌধুরীর কন্যা ডা. নুজহাত চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পূর্বসূরিদের রক্তের ঋণ শোধের চেষ্টা আমাদের তরুণদের মধ্যে আছে। আসন্ন নির্বাচনে তাঁরা যেন মুক্তিযুদ্ধবিরোধীদের পক্ষে ভোট না দেন, এই আহ্বান জানাব।’  

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের মধ্যে  আছেন অধ্যাপক মুনীর চৌধুরী, ডা. আলিম চৌধুরী, অধ্যাপক মুনিরুজ্জামান, ড. ফজলে রাব্বী, সিরাজ উদ্দিন হোসেন, শহীদুল্লা কায়সার, অধ্যাপক জি সি দেব, জ্যোতির্ময় গুহ ঠাকুরতা, অধ্যাপক সন্তোষ ভট্টাচার্য, মোফাজ্জল হায়দার চৌধুরী, সাংবাদিক খন্দকার আবু তাহের, নিজামউদ্দিন আহমেদ, এস এ মান্নান (লাডু ভাই), এ এন এম গোলাম মোস্তফা, সৈয়দ নাজমুল হক, সেলিনা পারভিনসহ আরো অনেকে।

দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে আলাদা বাণী দিয়েছেন।

দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলসহ পেশাজীবী, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আজ সকালে ঢাকার মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও রায়েরবাজার বধ্যভূমিতে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন। আলোচনাসভা ছাড়াও থাকবে মৌন মিছিল। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও প্রার্থনাসভার আয়োজন করা হয়েছে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সকাল ৭টা ৫ মিনিটে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সকাল ৭টা ৬ মিনিটে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রীর নেতৃত্বে শহীদ পরিবারের সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধারা সকাল ৭টা ২২ মিনিটে বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে, সকাল সাড়ে ৮টায় রায়েরবাজার বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। পরে সর্বস্তরের জনগণ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবে।

বাংলাদেশ বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ অন্যান্য বেসরকারি টিভি চ্যানেল বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচার করবে। দেশের সব জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী আওয়ামী লীগ এবারও দেশবাসীর সঙ্গে যথাযোগ্য মর্যাদায় শোকাবহ দিবসটি পালন করবে।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ভোরে সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়, বঙ্গবন্ধু ভবন ও দেশব্যাপী সংগঠনের কার্যালয়ে কালো পতাকা উত্তোলন, জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ। সকালে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন, বঙ্গবন্ধু ভবনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন, বিকেল ৩টায় কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আলোচনাসভার আয়োজন করেছে দলটি। এতে সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে এক বার্তায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শহীদ বুদ্ধিজীবীদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেছেন, পৈশাচিক সে হত্যাকাণ্ড জাতির জীবনে সৃষ্টি করেছে এক গভীর ক্ষত।

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ’৭১ সকাল সাড়ে ৯টায় রায়ের বাজারে বধ্যভূমিতে শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবে এবং বাংলাদেশে গণহত্যার আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি আদায়ের দাবিতে মানববন্ধন করবে।

আজ বিকেল ৪টা থেকে মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর মিলনায়তনে সপ্তাহব্যাপী অনুষ্ঠানমালার চতুর্থ দিনে শহীদ বুদ্ধিজীবী পরিবারের অনুভূতি প্রকাশ অনুষ্ঠান করবে। এ ছাড়া ‘এসডিজি এবং শিক্ষার সর্বজনীনতা ও গুনশীলতা নিশ্চিতকরণে বাংলাদেশ’ শীর্ষক বক্তৃতা প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। মিরপুর-১০ এ জল্লাদখানা বধ্যভূমি স্মৃতিপীঠে শহীদ পরিবারের সদস্যদের জন্য স্মৃতিচারণা অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘর।

আজ সকাল ৮টায় শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির নেতারা।

মিরপুরের শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধার্ঘ্য অর্পণ করবে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের নেতাকর্মীরা।

 

 

মন্তব্য