kalerkantho

শনিবার । ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৮ জমাদিউস সানি ১৪৪১

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের অনুমতি পেলেন তাবিথ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারের অনুমতি পেলেন তাবিথ

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে বিএনপি মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী তাবিথ আউয়ালকে প্রচারে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের অনুমতি দিল নির্বাচন কমিশন (ইসি)। গত শনিবার উত্তর সিটির রিটার্নিং অফিসার আবুল কাশেমের সই করা এসংক্রান্ত চিঠি তাবিথের কাছে পাঠানো হয়।

এর আগে গত ৩ জানুয়ারি তাবিথের পক্ষ থেকে ইসির কাছে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানতে চাওয়া হয়েছিল। আগামী ৩০ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার মধ্যরাতের পর প্রার্থীদের আনুষ্ঠানিক প্রচার বন্ধ হবে। রিটার্নিং অফিসারের পক্ষ থেকে তাবিথকে দেওয়া এই চিঠিতে অনুমতি দেওয়ার কথা বলা হলেও সঙ্গে শর্ত জুড়ে দেওয়া হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, নির্বাচনী আইন, আচরণবিধি ও প্রচলিত আইন মেনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার চালানোর অনুমতি দেওয়া হলো। একই সঙ্গে এ ধরনের প্রচারের ব্যয় নির্বাচনের মোট ব্যয়ের সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে এবং নির্বাচনী ব্যয়সীমা অতিক্রম করা যাবে না।

এর আগে তাবিথের চিঠিতে অনমুতি চেয়ে বলা হয়েছিল, ‘ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটারদের ইচ্ছার প্রতি যথাযথ সম্মান জানিয়ে নির্বাচনী প্রচারে বর্তমান সময় উপযোগী ওয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক, মেসেঞ্জার, ভাইবার, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম, আইভিআর ইত্যাদি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের ইচ্ছা পোষণ করছেন তিনি। নির্বাচন কমিশনের আইন ও বিধি-বিধান মেনে এবং সিটি করপোরেশন বিধিমালা অনুযায়ী প্রতীক বরাদ্দের আগে কোনো ধরনের নির্বাচনী প্রচার না করার নিশ্চয়তাও দিয়েছিলেন তিনি। চিঠি পাওয়ার পরপরই রির্টানিং অফিসার জানিয়েছিলেন আচরণবিধি দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আচরণবিধিতে ফেসবুক বা ইন্টারনেট মাধ্যমে নির্বাচনী প্রচারের বিষয়টি উল্লেখ নেই। ২২ ডিসেম্বর তফসিল ঘোষণার পর প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দের মধ্য দিয়ে ১০ জানুয়ারি আনুষ্ঠানিক প্রচার শুরু হয় ঢাকার দুই সিটিতে। 

তবে তাবিথ আউয়াল নির্বাচন কমিশনের অনুমতি পেলেও দুই সিটির সব প্রার্থীই তাঁদের প্রচারে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা