kalerkantho

বুধবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ১ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

নানা কৌশলে জমজমাট অভিনব নির্বাচনী প্রচার

ফেসবুকে প্রচারণার পাশাপাশি জানানো হচ্ছে নির্বাচনী কর্মকাণ্ডের হরেক খবর

কাজী হাফিজ ও লায়েকুজ্জামান   

২৩ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



নানা কৌশলে জমজমাট অভিনব নির্বাচনী প্রচার

ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস গতকাল ‘ব্যবসায়ী সম্মেলন ২০২০’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে নির্বাচনী প্রচার চালান। ছবি : কালের কণ্ঠ

‘চার শ বছর আগে দুটি নদীর অববাহিকায় স্থাপিত হয়েছিল আমাদের ঢাকা, আমাদের প্রাণের ঢাকা। যে ঢাকাকে আমরা ভালোবাসি। আমাদের ছিল ঐতিহ্য। আমাদের ছিল গর্ব। কিন্তু আজ আমরা আমাদের সেই ঐতিহ্যকে হারাতে বসেছি। আমরা চাই আমাদের সেই ঐতিহ্যকে সংরক্ষণ করে, তার স্বকীয়তা বজায় রেখে, আমাদের সেই ঢাকার অপরূপ রূপকে প্রস্ফুটিত করতে। শুধু আমাদের জন্য নয়, ঢাকাবাসীর জন্য নয়, দেশবাসীর নয় বরং বিশ্ববাসীর কাছে আমরা আমাদের ঐতিহ্যের সেই ঢাকার অপরূপ রূপকে তুলে ধরতে চাই।’ প্রতিশ্রুতিভরা এ কথাগুলো একটি ফেসবুক পেজ থেকে নেওয়া। ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপসের এ প্রতিশ্রুতির ভিডিও তাঁর ফেসবুক পেজ থেকে অনেকে দেখছেন, শেয়ার করছেন। একাধিক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে এখন তাৎক্ষণিক জানা যাচ্ছে তাঁর নির্বাচনী কর্মকাণ্ডের হরেক খবর।

দক্ষিণের বিএনপি প্রার্থী ইশরাক হোসেনও তাঁর ফেসবুক পেজে নির্বাচনী প্রচারণার ভিডিও চিত্র আপ করেছেন। তাতে ঢাকার ডেঙ্গু সমস্যাকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। শুরুতেই ডেঙ্গু আক্রান্তদের চিত্র তুলে ধরে তিনি বলছেন, ‘ঢাকা শহরের সবচেয়ে বড় সমস্যা হচ্ছে ডেঙ্গু। গত বছর এটি মহামারি পর্যায়ে পৌঁছে যায়। এটি নিয়ন্ত্রণে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণের ওপর জোর দেওয়া প্রয়োজন ছিল; কিন্তু তা করা হয়নি। মশা নিয়ন্ত্রণে ওষুধ সংগ্রহ নিয়ে দুর্নীতি হয়েছে।’ ইশরাক হোসেন প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তিনি মেয়র নির্বাচিত হলে মশা নিয়ন্ত্রণে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করবেন। ইশরাকের পক্ষে বিএনপি নিউজ নামের আরেকটি ফেসবুক পেজেও প্রচার চলছে। এতে আছে একটি নির্বাচনী গানের ভিডিও—‘ভাইবোন মুরব্বিগণ সকলের ভোট চায়/মেয়র খোকার যোগ্য সন্তান সবার প্রিয় ইশরাক ভাই।’

শুধু তাপস আর ইশরাক নন, অন্য সব মেয়র প্রার্থী এবং কাউন্সিলর প্রার্থীরাও তথ্য-প্রযুক্তির উৎকর্ষের এ যুগে প্রচারের কোনো কৌশলই বাদ রাখছেন না। আছে অভিনবত্বও। প্রার্থীদের পোস্টারে হ্যাশ ট্যাগ (#), ফেসবুক পেজ ও ওয়েবসাইটের ঠিকানাও জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে, সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে কিউআর কোড (কুইক রেসপন্স)। বাড়ি বাড়ি পৌঁছে ভোট চাওয়ার পুরনো কৌশলের অনুসরণ কিছুটা কমলেও গানে গানে প্রচার বেড়েছে। গান ও ভিডিও তৈরিতে সাহায্য নেওয়া হচ্ছে পেশাদার লোকজনের। এ ছাড়া শুধু ঢাকা থেকে নয়, ডিজিটাল মাধ্যমের সুযোগে সারা দেশ ও দেশের বাইরে থেকেও চলছে নানা ধরনের প্রচার।

প্রবাসে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির শাখা কমিটিগুলোর নেতারা ঢাকার মেয়র প্রার্থীদের পক্ষে সামাজিক যোগযোগ মাধ্যমের ওপর ভর করে প্রচারে অংশ নিচ্ছেন। নির্বাচনী প্রচারণার শুরুর দিকেই মালয়েশিয়া থেকে ফেসবুক লাইভে প্রচার চালানো হয় শেখ ফজলে নূর তাপসের পক্ষে। এ ধরনের ফেসবুক লাইভ এবং ইউটিউবে বিভিন্ন দেশ থেকে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকরা প্রতিদিনই প্রচারে অংশ নিচ্ছেন।

উত্তরে দেখা যায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামের ও তাঁর সমর্থকদের একাধিক ভিডিও চিত্রে উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি ও পরিকল্পনার প্রচার। ভিডিওতে ‘উন্নয়ন চলছে চলবে’, ‘সবাই মিলে সবার ঢাকা/সুস্থ, সচল আধুনিক ঢাকা’ এসব স্লোগানের সমান্তরালে তাঁর প্রতিশ্রুতি হচ্ছে— এই শহরে আপনাদের মতো আমারও বসবাস। ওয়ার্ল্ড ক্লাস ট্রাফিক সিস্টেম গড়ে তোলা একটি বিশাল চ্যালেঞ্জ। আমাদের বিশ্বাস একদিন মানুষ শান্তিতে রাস্তায় নামতে পারবে। মোহাম্মদপুর ও মহাখালীতে চালু হচ্ছে পুশবাটন সিগন্যাল। আরো অনেক এলাকায় এ টেকনোলজি চালু হবে। আগারগাঁওয়ের মতো অন্যান্য এলাকায়ও চালু হবে সাইকেল লেন। ৪০টি ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণ করা হবে।’ উত্তরের বিএনপি মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল আগের মেয়রের ব্যর্থতার খতিয়ান তুলে ধরে এ সমস্যা সমাধানের প্রতিশ্রুতি প্রচারে ফেসবুকের আশ্রয় নিয়েছেন। ভিডিওতে মশক নিয়ন্ত্রণে সাবেক মেয়রের ব্যর্থতার তথ্য প্রচার হচ্ছে।

এ ছাড়া প্রার্থীদের প্রতিদিনের প্রচারাভিযানের ভিডিও প্রচার হচ্ছে ফেসবুক, ভাইবার, হোয়াটসঅ্যাপে— সামাজিক সব যোগাযোগ মাধ্যমে। কোথায় কে চা বানিয়ে কর্মীদের খাওয়াচ্ছেন, কোন বিশিষ্ট ব্যক্তির দোয়া নিচ্ছেন, কতটা লোকের সমাগম হয়েছে, কার পক্ষে কোন কোন তারকা শিল্পীরা নেমেছেন, কোথায় কার ওপর হামলা হয়েছে, কোন প্রার্থীর স্ত্রী অথবা মা নির্বাচনী প্রচারণায় নেমেছেন এরও লাইভ প্রচার হচ্ছে।

কাউন্সিলর প্রার্থীরাও ডিজিটাল তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের দৌড়ে পিছিয়ে নেই। ঢাকা উত্তরের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আলেয়া সারওয়ার ডেইজীর ফেসবুকে আপ করা ভিডিওতে ক্লিক করলেই বেজে উঠছে ‘ডেইজী আপার সালাম নিন/লাটিম মার্কায় ভোট দিন’ গান। দেখা যাচ্ছে প্রার্থী হেঁটে আসছেন, আর তাঁর পেছনে জাতীয় পতাকা হাতে এক দল যুবক মোটরসাইকেল শোভাযাত্রা করে এগিয়ে আসছে। চটুল জনপ্রিয় সুর নিয়ে তৈরি প্যারোডিনির্ভর এসব ভিডিও চিত্রায়ণ এবং সম্পাদনায় রয়েছে পেশাদারের ছাপ।

এদিকে ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আফসারউদ্দিন খানের প্রচার মাইকে বাজছে অভিনব স্লোগান ‘আপনার শিশুকে টিকা দিন-আফসার ভাইকে ভোট দিন।’ উত্তরের ৬ নম্বর সেক্টরে একটি প্রচার ক্যাম্প থেকে সম্প্রতি কণ্ঠশিল্পী মনির খানের ভাইরাল হওয়া একটি গান খুব বাজানো হচ্ছে, যার প্রথম কলি হচ্ছে ‘বাংলাদেশে জন্মরে তোর, স্বভাব পাকিস্তানি/রাজাকারের মতো তুই যে করলি বেইমানি।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা