kalerkantho

মঙ্গলবার । ৫ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

ছেলের জন্য ভোট চাইলেন তাবিথের মা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ছেলের জন্য ভোট চাইলেন তাবিথের মা

বিএনপি মনোনীত প্রার্থী তাবিথ আউয়াল মালিবাগ এলাকায় গণসংযোগ করেন। ছবি : কালের কণ্ঠ

আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী তাবিথ আউয়ালের পক্ষে ধানের শীষে ভোট চাইলেন তাঁর মা নাসরিন আউয়াল। গতকাল শনিবার দুপুরে রাজধানীর ১৭ নম্বর ওয়ার্ডের খিলক্ষেত কুড়িল কাজীবাড়ী এলাকায় গণসংযোগে অংশ নেন তিনি। গণসংযোগের সময় নাসরিন আউয়াল ধানের শীষ প্রতীকের লিফলেট বিতরণ করেন। ভোটারদের কাছে ছেলে তাবিথ আউয়ালের জন্য ভোট চাইতে দেখা গেছে তাঁকে। এ সময় নাসরিন আউয়ালের সঙ্গে স্থানীয় মহিলা দলের নেত্রীরাও অংশ নেন। ছেলের জন্য মাকে ভোট চাইতে দেখে কাছে এসে কথা বলতে দেখা যায় ভোটারদের।

এদিকে গতকাল শনিবার রাজধানীর খিলগাঁও, মালিবাগ, শান্তিনগর, মধুবাগ, বনশ্রী, মগবাজার, হাজীপাড়া, রামপুরাসহ আশপাশের এলাকায় নির্বাচনী প্রচার চালান তাবিথ আউয়াল। খিলগাঁও তালতলায় নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর আগে নির্বাচন কমিশনের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আমরা জানতে চাই, কী হচ্ছে?’ একজন নির্বাচন কমিশনার বলেছেন, কেন্দ্র দখল করতে পারলে ইভিএমে ভোট চুরি করা যায়। এ বক্তব্য দিয়ে নির্বাচন কমিশন কী বলতে চাচ্ছে? ভোটকেন্দ্র দখল করা যাবে না—এ ব্যাপারে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রস্তুত কি না—এসব কথা আমাদের শঙ্কা বাড়িয়ে  দেয়।’

তাবিথ আউয়াল বলেন, ‘আমরা প্রচারে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। জনগণ অপেক্ষায় আছেন ভোট দেওয়ার জন্য। কিন্তু আমরা প্রতিদিন দেখছি পরিস্থিতি বদলাচ্ছে। ভোটাররা ভয়ে আছেন, কিন্তু তাঁরা ভোট দিতে চান। তাঁদের ভোটের অধিকার রক্ষা করতে চান। আমরা ভোটারদের নিরাপত্তা চাচ্ছি।’ মালিবাগ চৌধুরীপাড়ায় প্রচারণার সময় সেখানে উপস্থিত নেতাকর্মী ও জনগণকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘নির্বাচিত হলে দুর্নীতিমুক্ত একটি সিটি করপোরেশন উপহার দিতে পারব। মেয়র ও কাউন্সিলর সবাইকে জবাবদিহির মধ্যে থাকতে হবে। তাহলে মানুষের সেবা নিশ্চিত হবে।’ বনশ্রীতে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ঢাকা শহর থমকে গেছে। ট্রাফিকব্যবস্থা, মশা নিধন, বর্জ্য নিষ্কাশন, ড্রেনেজ সিস্টেম—এসব সমস্যা সমাধানে পরিকল্পনা আছে। বাসযোগ্য ঢাকা গড়তে আমি স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা গ্রহণ করব।’ এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘ঢাকা মহানগরীর পরিকল্পনা গ্রহণে জনগণের মতামত নেওয়া হয় না। কাউন্সিলরদের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করা হয় না। কাউন্সিলরদের ক্ষমতা দিতে হবে। উন্নয়ন কাজে তাদের সম্পৃক্ত করতে হবে।’

তাবিথ আউয়াল বলেন, ‘জনগণ ভোট দিতে চায়, ভোট দেওয়ার পরিবেশ তৈরির দায়িত্ব ইসির। ভোটারদের মধ্যে কিছুটা শঙ্কা কাজ করছে ঠিকই, কিন্তু এবার তারা সব ভয়ভীতি উপেক্ষা করে কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে প্রস্তুত রয়েছে। ভোটাররা চায় গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে, ভোটের মাধ্যমে তারা তাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করতে।’ তিনি বলেন, ‘সব ভোটকেন্দ্রে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে হবে। ভোটাররা আমাদের জানিয়েছে, যত বাধাই আসুক না কেন তারা সব মোকাবেলা করে কেন্দ্রে যাবেন, ভোট দেবেন।’ এ সময় পার্ক, খেলার মাঠ, ফুটপাত দখলমুক্ত রাখার আশ্বাস দেন তিনি।

বিএনপির এই মেয়র পদপ্রার্থী বলেন, ‘মানুষের গণতন্ত্র হরণ করা হয়েছে। এখন জনগণ ভোট দিতে পারে না। এবার বিএনপির নেতাকর্মীরা ভোটারদের সাহস জোগাবে ভোটকেন্দ্রে নিয়ে যেতে এবং ভোটাররা যাতে সুশৃঙ্খলভাবে ভোট দিতে পারে সে সহযোগিতা করবে।’ তিনি বলেন, ‘নির্বাচন কমিশনারের ওপর আস্থা মানুষের নেই। তারা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করতে ব্যর্থ হয়েছে। তার পরও আমরা দেখতে চাই নির্বাচন কমিশন কী করে।’

এ সময় তাঁর সঙ্গে জনসংযোগে ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবীর খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুর রহমান হাবিব, আবুল হোসেন, এ বি এম মোশাররফ হোসেন, নিপুন রায় চৌধুরী, সাবেক ছাত্রদল নেতা আকরামুল হাসান, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, স্থানীয় কাউন্সিলর প্রার্থী হেলাল কবির, যুবদল ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা