kalerkantho

মঙ্গলবার । ৫ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৩ জমাদিউস সানি ১৪৪১

তাবিথের পোস্টার আমি লাগিয়ে দেব : আতিক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



তাবিথের পোস্টার আমি লাগিয়ে দেব : আতিক

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম গতকাল মিরপুর এলাকায় প্রচারণা চালান। ছবি : কালের কণ্ঠ

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) নির্বাচনে বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী তাবিথ আউয়ালের পোস্টার লাগিয়ে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী আতিকুল ইসলাম। একই সঙ্গে ধানের শীষের প্রার্থীর পোস্টার ছেঁড়ার অভিযোগও নাকচ করেন তিনি। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর মিরপুরে আলুব্দী ঈদগাহ এলাকায় নির্বাচনী প্রচারের সপ্তম দিনে এসব কথা বলেন তিনি।

আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা বিরোধী পক্ষের কারো পোস্টার ছিঁড়ব না। তাবিথকে বলব, আপনার পোস্টার দিন, আমি লাগিয়ে দেব। আমার কোনো নেতাকর্মী বা সমর্থক আপনাদের পোস্টার ছিঁড়েনি, ছিঁড়বেও না।’

এর আগে ধানের শীষের পোস্টার ছেঁড়ার অভিযোগ করেন তাবিথ আউয়াল। তাঁর অভিযোগের বিষয়ে আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘পুরো ঢাকায় তাবিথ আউয়ালের পোস্টার। আমি যদি বলতাম, আমাদের নেতারা যদি বলত পোস্টার ছিঁড়তে, তাহলে তাবিথ আউয়ালের একটি পোস্টারও থাকত না। আমাদের ছেঁড়া লাগবে না। অভিযোগ না করে শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকেন, ৩০ জানুয়ারি দেখা যাবে। নৌকা বিজয়ী হবেই।’

সরস্বতী পূজা উপলক্ষে নির্বাচন পেছানোর দাবির সঙ্গে একমত পোষণ করে আতিক বলেন, ‘আমি নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি, যদি সম্ভব হয়, অবশ্যই নির্বাচন পেছানো হোক। আমি আমার দলের পক্ষ থেকে এবং আমার পক্ষ থেকে এই দাবি করছি।’

গতকাল মিরপুরের বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও পথসভা করেছেন আতিকুল ইসলাম। এ সময় শিশু, নারী, প্রতিবন্ধী ও বয়স্কদের চলাচল উপযোগী নগর গড়ার প্রতিশ্রুতি দেন তিনি। এ ছাড়া নির্বাচিত হলে ছয় মাসের মধ্যে পুরো উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকা এলইডি বাতির মাধ্যমে আলোকিত করার ঘোষণা দেন তিনি। 

মিরপুরের ঈদগাহের জনসভায় বস্তিবাসীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘পুনর্বাসন না করে কোনো বস্তিবাসী উচ্ছেদ করা যাবে না। আমি নির্বাচিত হলে আইনি বিষয়টি দেখব। আর প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় বস্তিবাসীর জন্য ফ্ল্যাট করা হবে। সেখানে কেউ সাত দিনের জন্য থাকতে চাইলে সাত দিনের ভাড়া দেবে, আবার কেউ বছর ব্যাপী থাকতে চাইলে এক বছরের ভাড়া দেবে, এ রকম ব্যবস্থা করতে যাচ্ছি।’

মিরপুর এলাকায় গণসংযোগ ও প্রচারের সময় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল হোসেন, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক এম এ মান্নান কচি, সাবেক সংসদ সদস্য সাবিনা আক্তার তুহিন ও নাজমা আক্তার উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা