kalerkantho

শনিবার । ৪ আশ্বিন ১৪২৭। ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১ সফর ১৪৪২

যাত্রা

আল মাহমুদ

৫ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



যাত্রা

অঙ্কন : মাহবুবুল হক

অনেক দূরের পথ পাড়ি দিয়ে এক গোধূলিবেলায় এসেছি এখানে

তোমার প্রগাঢ় কণ্ঠের ধ্বনি শুনবো বলেই তুমিতো হেলায় তাকিয়ে আমাকে ইশারায়

বলো কোন সুদূরের যাত্রী তুমি হে, পুরুষপ্রবণ থরথর করে উঠিয়াছে কেঁপে

আমার খবর চেয়েছো জানতে আমি থরথর কাঁপতে কাঁপতে বলেছি ধূসর এই

গৌধূলির তেপান্তরে মেলার খবর।

মেলা ভেঙে গেছে ঠেলা খেয়ে ফিরি আপনঘর—

কোথা ঘরবাড়ি, কোথায় নিবাস? কে জানে কোথায়?

আমাকে ঠেলছে সামনের দিকে, যেদিক থেকে রাত্রি নামছে প্রগাঢ় আঁধার ছড়িয়ে সামনে

আমি চলে যাই আমার নিবাস—খুঁজবো বলে—যদি ছলেবলে মাথা গুঁজবার ঠাঁইটুকু পাই নিজেই তাহলে

নিজের কণ্ঠ জড়িয়ে বলি আমি অলিগলি ধূসর গোধূলি এসেছি পেরিয়ে আশ্রয় দাও।

আমাকে এখন ঘরে তুলে নাও, আমি যে ক্লান্ত শ্রান্তও বটে

কিন্তু রাত্রি আসছে মৃতধাবমান আঁধার আমাকে ডাকুক এখন

আমার উপর নামুক রাত্রি—যাত্রীরা অবসান।

 

 

[আমি তাঁর কবিতা অনুলিখন করি এক দশক ধরে। এর মধ্যে কখন যে তাঁর প্রিয় একজন হয়েছিলাম বলতে পারব না। এখানে পত্রস্থ হওয়া কবিতাটি লেখা হয়েছিল ২০১৬ সালের ১৪ জুন। কবির দৃষ্টিশক্তি তখন ক্ষীণ—শ্যামল চন্দ্র নাথ]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা